kalerkantho

সোমবার । ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১১ রবিউস সানি ১৪৪১     

মুখোমুখি প্রতিদিন

ধারাবাহিকতা বজায় রাখা জরুরি

১২ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ধারাবাহিকতা বজায় রাখা জরুরি

ভারত ম্যাচের পর ছিল দুই সপ্তাহের বিরতি। এরপর গত ৪ তারিখ থেকে বাংলাদেশ দল তৈরি হচ্ছে ওমান ম্যাচের জন্য। মাসকাটে গিয়ে তারা প্র্যাকটিস ম্যাচ জিতেছে। এখন ওমান ম্যাচের কৌশল নিয়েই ট্রেনিং চলছে। আগামী ১৪ তারিখ বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের ওমান ম্যাচকে নিয়ে কাল কথা বলেছেন বাংলাদেশ দলের সহকারী কোচ মাসুদ পারভেজ কায়সার

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : প্র্যাকটিস ম্যাচ জেতার পর এখন ট্রেনিংয়ে কী অবস্থা খেলোয়াড়দের?

মাসুদ পারভেজ কায়সার : খেলোয়াড়দের অবস্থা ভালো। ওই ম্যাচ জেতার পর তাদের আত্মবিশ্বাস অনেক বেড়েছে। তবে ওমান অনেক শক্তিশালী দল। মাসকাট ক্লাবের ম্যাচ দিয়ে ওমানকে মাপা যাবে না। ওই প্র্যাকটিস ম্যাচে যেসব ভুল হয়েছিল, সেগুলো নিয়ে কাজ হচ্ছে। বিশেষ করে রক্ষণ সংগঠন নিয়ে আমরা বেশি সতর্ক, কারণ শক্তিশালী প্রতিপক্ষকে সুযোগ দিলে তারা চেপে ধরবে।

প্রশ্ন : শুধু রক্ষণ নিয়েই কী কাজ হয় ট্রেনিংয়ে?

কায়সার : রক্ষণ ও আক্রমণ নিয়ে আমাদের কাজ হয় বেশি। দুটো বক্সই আমাদের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ। কারণ শক্তিশালী দলের বিপক্ষে সুযোগ মিলবে কম, সেগুলো কাজে লাগাতে হবে আমাদের। গোল পেলে সব সময় খেলা ইতিবাচক থাকে। শুরুতে গোল খেয়ে গেলে পুরো ম্যাচে চাপে থাকতে হয়। এ ছাড়া ট্রানজিশন খুব জরুরি। বল হারালে আমরা কিভাবে খেলব, কার অবস্থান কী হবে, এটাই ট্রেনিংয়ে বিশেষভাবে গুরুত্ব দেওয়া হয়।

প্রশ্ন : ওমানকে কিভাবে দেখছেন বাংলাদেশের কোচিং স্টাফরা?

কায়সার : খুব শক্তিশালী দল ওমান। নিজেদের মাটিতে তারা বাংলাদেশকে শেষ করে দিতে চাইবে। তাদের আগের ম্যাচগুলোর ভিডিও বিশ্লেষণ হয়েছে, কোথায় তারা শক্তিশালী আর কোথায় দুর্বল সেগুলো চিহ্নিত করার চেষ্টা করেছি। খেলোয়াড়দেরও বলা হয়েছে এবং সেসব মাথায় রেখেই ট্রেনিং হচ্ছে।

প্রশ্ন : গত তিন ম্যাচে বাংলাদেশের খেলার উন্নতি দেখা গেছে...

কায়সার : প্রতিটি ম্যাচে ফুটবলাররা কৌশল মেনে নিজেদের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করেছে। ভারতের বিপক্ষে তো জেতা ম্যাচ ড্র হয়ে গেল। খেলার এই ধারাটা ওমান ম্যাচে অব্যাহত রাখতে হবে। ফুটবলের যে হাওয়াটা তৈরি হয়েছে, সেটা ধরে রাখতে হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা