kalerkantho

বুধবার । ২০ নভেম্বর ২০১৯। ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

আর্চারির নতুন ‘রোল মডেল’

১০ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ক্রীড়া প্রতিবেদক : তীর-ধনুকের খেলার সঙ্গে খুব মানিয়ে গেছে তীর ব্র্যান্ডটি। যেমন নামের দিক থেকে তেমনি বাস্তবের পথচলায়ও দুর্দান্ত সফল এ জুটি। তাই মাত্র দুই বছরেই বাংলাদেশ আর্চারি এখন বিশ্ব আর্চারির নতুন ‘রোল মডেল’!

বিওএতে কাল এ সফল জুটির চুক্তি নবায়ন হলো। এর আগে আর্চারি ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক কাজী রাজীব উদ্দিন আহমেদ চপল বলেছেন তাঁর অভিজ্ঞতার কথা, ‘কিছুদিন আগে আমি সৌদি আরব গিয়েছিলাম। তারা জানতে চেয়েছে আমরা কিভাবে আর্চারিতে এত উন্নতি করেছি। তারা অনেক টাকা বিনিয়োগ করে। আমাদের এখানে বাঁশের ধনুক দিয়ে খেলা শেখা শুরু হলেও ওরা শিক্ষানবিশদের হাতেও তুলে দেয় সাড়ে তিন হাজার ডলারের ধনুক। তবু তাদের উন্নতি হচ্ছে না। তাই সৌদি আরব আমাদের পরিকল্পনাটা জানতে চায়। তার মানে বাংলাদেশ এখন বিশ্ব আর্চারির রোল মডেল।’

বেশ কিছু আন্তর্জাতিক সাফল্যেই আর্চারির উন্নতিটা চোখে পড়ছে বিশেষভাবে। নির্ধারিত সময়ের আগেই তারা পৌঁছে যাচ্ছে লক্ষ্যে। বাংলাদেশ আর্চারির সরাসরি (কোটা প্লেস নিয়ে) অলিম্পিক গেমসে যাওয়ার লক্ষ্য ছিল ২০২৪ সালে। এর চার বছর আগেই রোমান সানা বাংলাদেশকে পৌঁছে দিয়েছেন সেই লক্ষ্যে। দেশের ক্রীড়া ইতিহাসে দ্বিতীয় অ্যাথলেট হিসেবে এই আর্চার সরাসরি অংশ নেবেন ২০২০ টোকিও অলিম্পিকে। রোমান সানার অবিশ্বাস্য সাফল্যে বিশ্ব পরিমণ্ডলে উঠে আসছেন তাঁর সতীর্থরাও। রিকার্ভ দলগত ইভেন্টে বাংলাদেশের চতুর্দশ স্থানে উত্তরণ তো আর এমনি এমনি হয়নি!

আর্চারি উত্তরণের এ গল্পে বড় ভূমিকা অবশ্যই সিটি গ্রুপের। ‘তীর’ ব্র্যান্ড নিয়ে ২০১৭ সালের অক্টোবরে এ বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান আর্চারির সহযোগী হয়েছিল। সেই প্রথম বছর আর্চারিতে তাদের বিনিয়োগ ছিল এক কোটি ৬০ লাখ টাকার মতো। দ্বিতীয় বছরে সেটা উন্নীত হয় দুই কোটি ২০ লাখে। কাল তৃতীয় বছরের জন্য দুই কোটি ৪১ লাখ টাকা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে সিটি গ্রুপ। এই অর্থের বেশির ভাগ দেওয়া হয় আর্চারির উন্নয়ন খাত—প্রশিক্ষণ, কোচিং ও সরঞ্জামের জন্য। সিটি গ্রুপের নির্বাহী পরিচালক জাফর উদ্দিন সিদ্দিকী বলেছেন, ‘আমরা লাভের কথা ভেবে আর্চারিতে আসিনি। খেলাটিকে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে একটা ভালো জায়গা করে দেওয়া আমাদের লক্ষ্য। খেলাটির উন্নতিই আমাদের কাছে মুখ্য।’

উন্নতির নতুন সোপানে পৌঁছাতে এসএ গেমসে স্বর্ণপদকের লক্ষ্য ঠিক করেছে বাংলাদেশ আর্চারি। রাজীব উদ্দিন অন্তত দুটি সোনা জয়ের কথা বলেছেন আসন্ন এসএ গেমসে, ‘এর আগে এসএ গেমস নিয়ে আমাদের কোনো লক্ষ্য ছিল না। এবার আমরা দুটি সোনা জয়ের লক্ষ্য স্থির করেছি। রিকার্ভে আমাদের ভালো সম্ভাবনা আছে, তবে কম্পাউন্ডেও আসতে পারে।’

এসএ গেমসে প্রথমবারের মতো সোনার মিশনে নামা বাংলাদেশ আর্চারির শ্রীবৃদ্ধির নেপথ্য কারিগর হলেন মার্টিন ফ্রেডরিখ। ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারিতে যোগ দেওয়া এ জার্মান কোচও মনে করেন এটা সময়োপযোগী লক্ষ্য, ‘এখন এসএ গেমসে সোনা জয় খুব দরকার। গত কয়েক বছরে আমাদের আর্চারদের অনেক উন্নতি হয়েছে। এই গেমসে মূল লড়াই হবে ভারতের সঙ্গে।’ ডিসেম্বরে নেপালে অনুষ্ঠেয় এসএ গেমসে ভারতীয়দের সঙ্গে লড়াই করেই শ্রেষ্ঠত্বের আসনে বসতে হবে বাংলাদেশি আর্চারদের।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা