kalerkantho

বুধবার । ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২ ডিসেম্বর ২০২০। ১৬ রবিউস সানি ১৪৪২

টেস্ট দলও নাগপুরে

১০ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নাগপুর থেকে প্রতিনিধি : অসমর্থিত সূত্রের খবর, ভারত সফরে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের লিয়াজোঁ অফিসারকে নাকি নাগপুরের লা মেরিডিয়ান হোটেলের মেঝেতে ঘুমাতে হচ্ছে! উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না সম্ভাবনাটা। কারণ অল ইন্ডিয়া মিনিমাল অ্যাকসেস সার্জনস অ্যাসোসিয়েশনের ১৪তম বার্ষিক কনফারেন্স চলছে নাগপুরে। তাই হোটেলে জায়গা মিলছে না। বিদর্ভ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়ামটা নাগপুর শহরের বাইরে, জামথায়। কাছাকাছি একমাত্র হোটেল লা মেরিডিয়ান, যেখানে থাকছেন বাংলাদেশ ও ভারত ক্রিকেট দলের খেলোয়াড় ও কর্মকর্তারা। এর ওপর কাল বাংলাদেশের টেস্ট দলও চলে এসেছে নাগপুরে। আজ সিরিজের তৃতীয় টি-টোয়েন্টির পর শুধু টি-টোয়েন্টি দলের ক্রিকেটাররা নাগপুর থেকেই ধরবেন দেশে ফেরার বিমান। অন্যদিকে টেস্ট দলের সদস্যরা নাগপুর থেকে রওনা হবেন ইন্দোরের পথে, সেখানে ভারতের বিপক্ষে প্রথম পূর্ণাঙ্গ টেস্ট সিরিজের প্রথমটি খেলবে বাংলাদেশ। তাই তিনটি ক্রিকেট দল যখন এমন ভিড়ের মৌসুমে একটা হোটেলে ঘাঁটি তৈরি করে, তখন কাউকে না কাউকে তো ত্যাগ স্বীকার করতেই হবে!

টেস্ট অধিনায়ক মমিনুল হক, উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান ইমরুল কায়েস, প্রথমবার টেস্ট দলে সুযোগ পাওয়া ব্যাটসম্যান সাইফ হাসান, সিলেটের দুই পেসার আবু জায়েদ রাহী ও এবাদত হোসেনরা কাল নাগপুরের স্টেডিয়ামে এসে অনুশীলন করেছেন জাতীয় দলের কোচদের তত্ত্বাবধানে। নেটে তাই লাল ও সাদা, দুই ধরনের বলেই বোলিং হয়েছে। অনুশীলনের ফাঁকে ইমরুল জানাচ্ছিলেন ইডেনের গোলাপি বলের টেস্ট নিয়ে দুর্ভাবনার কথা, ‘অল্প সময় গোলাপি বলে অনুশীলন করতে পেরেছি আসার আগে। ঢাকায় জাতীয় লিগের ম্যাচ শেষ হওয়ার পর চতুর্থ দিনের উইকেটে খুব বেশিক্ষণ অনুশীলনের সুযোগ পাইনি।’ ঠিক কোন গোলাপি বলটা দেওয়া হবে, সেলাইয়ের সুতার রং সাদা না কালো; সব কিছু নিয়েই বেশ চিন্তিত মনে হচ্ছিল ইমরুলকে। নাঈম হাসান, সাইফ হাসান, মেহেদী হাসান মিরাজরা মাঠে হালকা স্ট্রেচিং অনুশীলনের পরই চলে গেছেন নেটে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা