kalerkantho

রবিবার। ১৭ নভেম্বর ২০১৯। ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

লিভারপুল-সিটির শিরোপা নির্ধারণী লড়াই!

১০ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



লিভারপুল-সিটির শিরোপা নির্ধারণী লড়াই!

মধ্য আগস্টে শুরুর পর এখন মাত্র মধ্য নভেম্বর। আর ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের মৌসুম শেষ হতে হতে আগামী বছরের মধ্য মে। এই সময়ের একটি ম্যাচকে কি শিরোপা নির্ধারণী দ্বৈরথ হিসেবে তকমা দেওয়াটা বড্ড বাড়াবাড়ি হয়ে যায় না?

আজকের লিভারপুল-ম্যানচেস্টার সিটির লড়াইকে তবু দেখা হচ্ছে সেভাবে। ঠিক যেভাবে গত মৌসুমে জানুয়ারিতে দুই দলের মুখোমুখিকে দেখা হয়েছিল। সেবার ৭ পয়েন্টে এগিয়ে থাকা লিভারপুল জিতলেই এগিয়ে যেত ১০ পয়েন্টে। তাদের তখন আর ঠেকায় কে? কিন্তু ম্যানসিটির জয়ে ব্যবধান নেমে আসে ৪ পয়েন্টে। এবং ঠিকই শেষ পর্যন্ত শিরোপা ঘরে তোলে পেপ গার্দিওলার দল।

এবার লিভারপুল এগিয়ে ৬ পয়েন্টে। জিতলে তা হবে ৯ পয়েন্ট। ইংলিশ লিগ জয়ের জন্য তিন দশকের অপেক্ষার অবসানের পথে এগিয়ে যাবে অনেকখানি। কিন্তু গতবারের মতো এবারও কি ইয়ুর্গেন ক্লপের দলকে মরণকামড় দেবে না ম্যানসিটি?

ক্লপের আশঙ্কা সেটিই। তাই অ্যানফিল্ডের লড়াইয়ে নামার আগে লিভারপুল কোচের পূর্ণ প্রস্তুতির দাবি ক্লাবের প্রত্যেকের কাছে, ‘আমাদের সেরা খেলাটাই খেলতে হবে। স্টেডিয়ামের কারো প্রস্তুতিতে সামান্যতম ঘাটতি রাখা যাবে না। এমনকি গ্যালারির যে লোকটি রবিবার হট ডগ বিক্রি করবে, তাকেও পুরোপুরি প্রস্তুত থাকতে হবে।’

প্রতিপক্ষের প্রতি পূর্ণ শ্রদ্ধা গার্দিওলার। সেটি ম্যানসিটি কোচের কথাতেই স্পষ্ট, ‘গতবার লিগ জয়ের পথে যে লিভারপুলকে পেছনে ফেলেছি, ওরা কোচ হিসেবে আমার ক্যারিয়ারের কঠিনতম প্রতিপক্ষ। এখনো ওরা বিশ্বের অন্যতম সেরা দল। জেতার জন্য আমাদের তাই পরিকল্পনার নিখুঁত বাস্তবায়ন করতে হবে।’

লিগে ঘরের মাঠে ম্যানসিটির বিপক্ষে সর্বশেষ ২৮ ম্যাচে ওই একবারই হেরেছিল লিভারপুল; জানুয়ারিতে। নভেম্বরে তার পুনরাবৃত্তি কিছুতেই চাইবে না ‘অল রেডস’। অন্যদিকে রেসে টিকে থাকার জন্য জয়টা যে বড্ড প্রয়োজন ম্যানসিটির! এএফপি

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা