kalerkantho

রবিবার। ১৭ নভেম্বর ২০১৯। ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

নক আউটে জুভেন্টাস-পিএসজি-বায়ার্ন

৮ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



নক আউটে জুভেন্টাস-পিএসজি-বায়ার্ন

ইনজুরি টাইমের তৃতীয় মিনিটে অসাধারণ এক গোল দগলাস কস্তার। তাতেই লোকোমোতিভ মস্কোকে ২-১ ব্যবধানে হারিয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগে নক আউটের টিকিট নিশ্চিত করেছে জুভেন্টাস। দ্বিতীয় রাউন্ডে তাদের সঙ্গী হয়েছে পিএসজি ও বায়ার্ন মিউনিখ। পিএসজি ১-০ গোলে ব্রুজকে আর বায়ার্ন ২-০ গোলে হারায় অলিম্পিয়াকোসকে। জয় পেলে নক আউটে উঠে যেত ম্যানচেস্টার সিটিও। কিন্তু আতালান্তার মাঠে ১-১ গোলের ড্রতে অপেক্ষা বেড়েছে ১০ জন নিয়ে খেলা পেপ গার্দিওলার দলের। গত পরশু রাতের সবচেয়ে বড় জয়টা রিয়াল মাদ্রিদের। সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে রদ্রিগোর হ্যাটট্রিকে গালাতাসারাইকে ৬-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছে তারা। মাদ্রিদের পড়শি অ্যাতলেতিকো অবশ্য ২-১ গোলে হেরে গেছে বায়ার লেভারকুসেনের কাছে। 

লোকোমোতিভ মস্কোর বিপক্ষে তৃতীয় মিনিটে এগিয়ে গিয়েছিল জুভেন্টাস। ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর বক্সের বাইরে থেকে নেওয়া ফ্রিকিক হাত ফসকায় গোলরক্ষক গিলেরমোর। বল গোললাইন পার হওয়ার মুহূর্তে আলতো টোকায় জালে জড়ান অ্যারন রামসি। ১২ মিনিটে সমতা ফেরায় রাশিয়ার দলটি। আলকসেই মিরানচুকের হেড প্রথমে ফিরে আসে পোস্টে লেগে। ফিরতি বল জালে জড়িয়ে দেন মিরানচুক। এরপর দুই দলই নষ্ট করে একাধিক সুযোগ। ইনজুরি টাইমের তৃতীয় মিনিটে কয়েকজনকে ফাঁকি দিয়ে গনসালো হিগুয়াইনকে বল বাড়িয়ে বক্সে ঢুকে পড়েন দগলাস কস্তা। ফিরতি বল পেয়ে জোরালো শটে লক্ষ্য ভেদ করেন এই ব্রাজিলিয়ান। ‘ডি’ গ্রুপের অন্য ম্যাচে ১০ জন নিয়েও অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদকে ২-১ ব্যবধানে হারিয়েছে বেয়ার লেভারকুসেন। চার ম্যাচ শেষে ১০ পয়েন্ট নিয়ে নক আউটে জুভেন্টাস। সমান ম্যাচে অ্যাতলেতিকোর পয়েন্ট ৭, লোকোমোতিভ মস্কো ও বেয়ার লেভারকুসেনের সমান ৩।

গ্রুপ ‘বি’তে বরখাস্ত হওয়া কোচ নিকো কোভাচকে ছাড়া প্রথম ম্যাচে বায়ার্ন মিউনিখের প্রতিপক্ষ ছিল অলিম্পিয়াকোস। রবার্তো লেভানদোস্কির ৬৯ মিনিটে ও ইভান পেরিসিচের ৮৯ মিনিটের গোলে ২-০ ব্যবধানের জয়ে নক আউটের টিকিট বায়ার্নের। এ নিয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগের গ্রুপ পর্বে টানা আট ম্যাচ গোলের কীর্তি রবার্তো লেভানদোস্কির। এতে তিনি ছুঁয়েছেন ২০১৭ সালে করা লিওনেল মেসির টানা ম্যাচে গোলের রেকর্ড। তবে গ্রুপ পর্বে টানা ৯ ম্যাচ গোল করে সবাইকে ছাড়িয়ে ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। গ্রুপের অন্য ম্যাচে সন হিউং মিনের জোড়া গোল আর জিওভানি লো সেলসো, ক্রিস্তিয়ান এরিকসেনের লক্ষ্যভেদে টটেনহাম ৪-০ ব্যবধানে হারিয়েছে রেডস্টার বেলগ্রেডকে। সমান চার ম্যাচ শেষে বায়ার্নের পয়েন্ট ১২, টটেনহামের ৭, রেডস্টার বেলগ্রেডের ৩ ও অলিম্পিয়াকোসের ১।

গ্রুপ ‘এ’তে মাউরো ইকার্দির ২৭ মিনিটের গোলে ক্লাব ব্রুজকে ১-০ ব্যবধানে হারিয়েছে পিএসজি। গ্রুপের অন্য ম্যাচে রিয়াল মাদ্রিদ উড়িয়ে দেয় গালাতাসারাইকে। চ্যাম্পিয়নস লিগে সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে নিজের অভিষেকটা ব্রাজিলিয়ান তরুণ রদ্রিগো রাঙিয়েছেন ‘পারফেক্ট হ্যাটট্রিকে’। চতুর্থ মিনিটে মার্সেলোর উঁচু করে বাড়ানো বল বুক দিয়ে নামিয়ে প্রথম ছোঁয়ায় রদ্রিগো কাটান একজনকে। এরপর দুই ডিফেন্ডারের মাঝখান দিয়ে নেওয়া বাঁ পায়ের শটে এগিয়ে নেন রিয়ালকে। সপ্তম মিনিটে মার্সেলোর বাঁকানো ক্রসে নেওয়া হেডে দ্বিতীয় গোল রদ্রিগোর। ১৪ মিনিটে পেনাল্টি থেকে সের্হিয়ো রামোস, ৪৫ ও ৮১ মিনিটে করিম বেনজিমা দুটি আর ইনজুরি টাইমে ডান পায়ের শটের গোলে ‘পারফেক্ট হ্যাটট্রিক’ রদ্রিগোর। এই ম্যাচে লিওনেল মেসির পর প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে টানা ১৫ চ্যাম্পিয়নস লিগে গোলের কীর্তি গড়েছেন বেনজিমা। চার ম্যাচ শেষে পিএসজির পয়েন্ট ১২, রিয়ালের ৭, ব্রুজের ২, গালাতাসারাইর ১।

গ্রুপ ‘সি’তে রহিম স্টার্লিংয়ের সপ্তম মিনিটের গোলে আতালান্তার বিপক্ষে এগিয়ে যায় ম্যানচেস্টার সিটি। গ্যাব্রিয়েল জেসুস পেনাল্টি মিস করলে ব্যবধান ২-০ হয়নি। ৪৯ মিনিটে সমতা ফেরান মারিও পাসালিচ। বিরতির পর গোলরক্ষক এদেরসনের ইনজুরির জন্য বদলি হয়ে নেমেছিলেন ক্লাউদিও ব্রাভো। ৮১ মিনিটে লাল কার্ড দেখে তিনিও মাঠ ছাড়লে গোলপোস্টে দাঁড়ান ডিফেন্ডার কাইল ওয়াকার। এইটুকু সময়েই ব্রাভোর চেয়ে বেশি সেভ করেছেন তিনি! ১-১ সমতায় শেষ হয় ম্যাচ। চার ম্যাচ শেষে ম্যানসিটির পয়েন্ট ১০, শাখতার দোনেেস্কর ৫, ডিনামো জাগরেবের ৫ ও আতালান্তার ১। এএফপি

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা