kalerkantho

সোমবার । ১৮ নভেম্বর ২০১৯। ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

এবার ডাবল সেঞ্চুরি রোহিতের

২১ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



এবার ডাবল সেঞ্চুরি রোহিতের

ওয়ানডেতে তিন তিনটি ডাবল সেঞ্চুরি তাঁর! সর্বোচ্চ রানের ইনিংস ২৬৪। সেই রোহিত শর্মার কিনা ডাবল ছিল না টেস্টে। অতৃপ্তিটা মিটল অবশেষে। গতকাল রাঁচি টেস্টের দ্বিতীয় দিন পেয়েছেন ক্যারিয়ারের প্রথম ডাবল। পাশাপাশি আজিঙ্কা রাহানের সেঞ্চুরি আর রবীন্দ্র জাদেজার ফিফটিতে ভারত গড়েছে রানপাহাড়। তারা ইনিংস ঘোষণা করে ৯ উইকেটে ৪৯৭ রানে। জবাবে ৯ রানে ২ উইকেট হারিয়ে বৃষ্টিবিঘ্নিত দিনটি শেষ করেছে প্রোটিয়ারা। দুই ওপেনার ডিন এলগার ০ ও কুইন্টন ডি কক ফেরেন ৪ রানে।

এবারের বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ রান করলেও টেস্টে বরাবরই অনিয়মিত ছিলেন রোহিত। ওপেনার হিসেবে যেন জবাবই দিয়েছেন সমালোচকদের। এবারের সিরিজে তাঁর ইনিংসগুলো ১৭৬, ১২৭, ১৪ ও ২১২। সব মিলিয়ে ১৩২.২৫ গড়ে ৫২৯ রান। টেস্ট ডন ব্র্যাডম্যানের ৯৮.৯৪ গড়ের ধারেকাছেও যেতে পারেননি কেউ। একটা দিক দিয়ে কিংবদন্তি ব্র্যাডম্যানকেও ছাড়িয়ে রোহিত। দেশের মাটিতে টেস্টে ব্র্যাডম্যানের গড় ৯৮.২২, রোহিতের সেটা ৯৮.৮৪! মানে ৭১ বছরের পুরনো রেকর্ডটা গতকাল ভাঙলেন রোহিত।

টেস্ট, ওয়ানডে দুই ফরম্যাটে ডাবল সেঞ্চুরির কীর্তি এত দিন ছিল শুধু শচীন টেন্ডুলকার, বীরেন্দর শেবাগ ও ক্রিস গেইলের। সেই তালিকায় নাম লেখালেন ‘ছক্কাবাজ’ রোহিত শর্মাও। প্রথম দিন অপরাজিত ছিলেন ১১৭ রানে। গতকাল ১৯৯ থেকে ডাবলে পা রাখেন লুঙ্গি এনগিডিকে ছক্কা মেরে। রাঁচি টেস্টে তিনি সেঞ্চুরিও করেছিলেন ছক্কায়। সব মিলিয়ে তিন টেস্টের এই সিরিজে তাঁর ছক্কা ১৯টি। আর কোনো ব্যাটসম্যানের এক সিরিজে নেই এত বেশি ছক্কা।

রোহিত আউটও হয়েছেন ছক্কার নেশায়। শর্ট বল পেলেই পুল বা হুক করতে ছাড়েন না তিনি। কাগিসো রাবাদা সেই প্রলোভন দিয়ে সাজিয়েছিলেন ফিল্ডিং। ফাইন লেগ অঞ্চলে লুঙ্গি এনগিডিকে রেখে পেতেছিলেন ফাঁদ। ২৫৫ বলে ২৮ বাউন্ডারি ৬ ছক্কায় ২১২ রানে রোহিত সেই রাবাদার শর্ট বলে ছক্কার নেশায় এনগিডির তালুবন্দি হন। মনঃসংযোগের অনন্য দৃষ্টান্ত, চোখ-জুড়ানো টাইমিং আর দর্শকদের চোখের পরিতৃপ্তি দিয়ে ড্রেসিংরুমে ফেরার সময় তাঁকে অভিনন্দন জানাতে ভোলেননি প্রোটিয়া ক্রিকেটাররা।

রোহিতময় আরেকটি দিনে সেঞ্চুরি করেছেন আজিঙ্কা রাহানেও। ক্যারিয়ারের ১১তম সেঞ্চুরির পর ১১৫ রানে থামেন তিনি। ছয় নম্বরে নেমে রবীন্দ্র জাদেজা করেছিলেন ৫১। শেষ দিকে উমেশ যাদবের ১০ বলে ৩১ আনন্দই দিয়েছে রাঁচির দর্শকদের। জর্জ লিনদে ৪টি আর কাগিসো রাবাদার শিকার ৩ উইকেট। ডেন পিয়েত এই সিরিজে ছক্কা হজম করেছেন ২০টি, যা এক সিরিজে যৌথ সর্বোচ্চ। ২০১৩-১৪ মৌসুমের অ্যাশেজে গ্রায়াম সোয়ানের বলেও ২০ ছক্কা মেরেছিলেন অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যানরা। ক্রিকইনফো

 

সংক্ষিপ্ত স্কোর

ভারত : ১১৬.৩ ওভারে ৪৯৭/৯ ডি. (রোহিত ২১২, রাহানে ১১৫, জাদেজা ৫১, উমেশ ৩১; লিন্ড ৪/১৩৩, রাবাদা ৩/৮৫)।

দক্ষিণ আফ্রিকা : ৫ ওভারে ৯/২ (ডি কক ৪, দু প্লেসিস ১*; সামি ১/০, উমেশ ১/৪)।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা