kalerkantho

রবিবার । ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১০ রবিউস সানি ১৪৪১     

টেস্ট নেতৃত্ব নিয়ে

সাকিবের সঙ্গে কথা বলবেন বোর্ড সভাপতি

১৮ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ক্রীড়া প্রতিবেদক : টি-টোয়েন্টিতে যথারীতি সাকিব আল হাসানই অধিনায়ক আছেন। তবে ভারত সফরের টেস্ট সিরিজে কি একই দায়িত্বে থাকবেন তিনি? প্রশ্নটি উঠছে সংগত কারণেই। তা নিশ্চিত থাকলে নিশ্চয়ই তাঁর সঙ্গে টেস্ট নেতৃত্ব নিয়ে কথা বলবেন বলে জানাতেন না বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান।

এমনিতে এই অলরাউন্ডার নিজে টেস্ট অধিনায়ক থাকতে চাইলে কেউ তাঁকে সরাতে চাইবে না নিশ্চিতভাবেই। কিন্তু সমস্যা হলো গত সেপ্টেম্বরে আফগানিস্তানের বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্টে হারের পর নেতৃত্বে থাকা নিয়ে অনীহার কথাও বলেছেন সাকিব। সেটি সব ফরম্যাটেই নাকি শুধুই টেস্টে, সেটি অবশ্য তখন খোলাসা করেননি। না করলেও অনেকেই ধরে নিয়েছেন যে টেস্টেই বোধ হয় আর নেতৃত্বে থাকতে চান না সাকিব।

যে বা যাঁরা এ রকম ভেবেছেন, তাঁদের অন্যতম বিসিবি সভাপতিও। যদিও তাঁর সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে এখনো কোনো কথা হয়নি বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় তারকার। না হলেও সেটি দু-এক দিনের মধ্যেই হবে বলে গতকাল জানিয়েছেন নাজমুল। এদিন বিসিবির নীতিনির্ধারকরা বসেছিলেন আসন্ন বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) ও ভারত সফরের বাংলাদেশ দল নিয়ে। লম্বা সভার পর সংবাদমাধ্যমের সামনেও এসেছিলেন নাজমুল। সেই পর্ব শেষ করার পর বিসিবিতে নিজের কক্ষে ফিরে যাওয়ার পথে টেস্ট নেতৃত্বের প্রসঙ্গ তোলা হলে তিনি কালের কণ্ঠকে বলেছেন, ‘সাকিবের সঙ্গে এটি নিয়ে দু-এক দিনের মধ্যেই কথা বলব আমি।’

ভারত সফরের টেস্ট সিরিজে কি একই দায়িত্বে থাকবেন সাকিব? প্রশ্নটি উঠছে সংগত কারণেই। তা নিশ্চিত থাকলে নিশ্চয়ই তাঁর সঙ্গে টেস্ট নেতৃত্ব নিয়ে কথা বলবেন বলে জানাতেন না বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান।

তাঁর সঙ্গে সাকিব এ বিষয়ে এর আগে কখনোই আলাপে না গেলেও এবার নিজে থেকেই জিজ্ঞেস করতে চান বিসিবি সভাপতি, ‘আমাকে কখনোই বলেনি যে টেস্টে নেতৃত্ব দিতে চায় না। বলে তো আপনাদের (মিডিয়া)। দেখি, আমি ওকে জিজ্ঞেস করব।’ বোর্ড সভাপতির সঙ্গে টেস্ট নেতৃত্বের প্রসঙ্গ উঠলে কি কিছু শর্তও জুড়ে দেবেন এখন পর্যন্ত এই ফরম্যাটের অধিনায়ক? টেস্টে আফগান বিপর্যয়ের পর তো বলেছিলেন সে কথাই, ‘অধিনায়কত্ব করতে না হলেই বরং আমার ক্রিকেটের জন্য ভালো হবে। আর নেতৃত্ব যদি দিতেই হয়, তাহলে অবশ্যই অনেক কিছু নিয়ে আলোচনা করার ব্যাপার আছে।’ 

গত ৯ সেপ্টেম্বর সাকিবের বক্তব্যের দুই দিন পর তা নিয়ে কথা বলেছিলেন নাজমুলও। তাঁর কাছে মনে হয়েছিল সাকিবের নেতৃত্বে অনীহা শুধু টেস্টেই, ‘এটি ঠিক যে আমরা দেখছি টেস্টের ব্যাপারে বেশ কিছুদিন থেকে ওর আগ্রহ তেমন নেই। বিশেষ করে আপনারা যদি দেখেন, আমাদের দলগুলো যখন বাইরে যাচ্ছিল, তখন টেস্টের সময় সে একটু ব্রেক চায়। ওর হয়তো আগ্রহটা কম। তবে আমরা কখনো শুনিনি যে অধিনায়কত্ব নিয়ে ওর আগ্রহ কম আছে। তবে অধিনায়ক হলে তো টেস্ট খেলতেই হবে। অধিনায়ক না থাকলে না খেলেও পারা যায়। এ কারণেই হয়তো নেতৃত্বের কথাটি এসেছে।’ কিন্তু এর আগের দিনই নাজমুলের সঙ্গে দেখা হয়েছিল সাকিবের। সেখানে যে এই অলরাউন্ডার নেতৃত্বের প্রসঙ্গ তোলেননি, বিসিবি সভাপতি জানিয়েছিলেন তাও, ‘আমি গতকালই ওর সঙ্গে বসেছিলাম। কিন্তু সেখানে এমন কোনো আলাপ-আলোচনা হয়নি। ও প্রসঙ্গ ওঠালে অবশ্যই আলোচনা করতাম।’ 

না হওয়া সেই আলোচনা নাজমুল এবার নিজেই করতে চান!

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা