kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ নভেম্বর ২০১৯। ২৯ কার্তিক ১৪২৬। ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

মুস্তাফিজের ফেরা সাইফের সেঞ্চুরি

১৮ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মুস্তাফিজের ফেরা সাইফের সেঞ্চুরি

ক্রীড়া প্রতিবেদক : চোটের জন্য প্রথম ম্যাচ খেলা হয়নি মুস্তাফিজুর রহমানের। গতকাল খুলনা বিভাগের হয়ে লাল বলে ফিরেছেন মুস্তাফিজ। জাতীয় লিগের প্রথম স্তরে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন রাজশাহী বিভাগের বিপক্ষে নিয়েছেন ২ উইকেটও। মেহেদী হাসান মিরাজের শিকার ৪ উইকেট। রাজশাহী তাতে গুটিয়ে গেছে ২৬১ রানে। প্রথম স্তরের অন্য ম্যাচে সাইফ হাসানের সেঞ্চুরিতে রংপুর বিভাগের বিপক্ষে ৪ উইকেটে ৩১৪ করেছে ঢাকা বিভাগ। দ্বিতীয় স্তরের ম্যাচে সিলেটের বিপক্ষে ঢাকা মেট্রো গুটিয়ে যায় ২৪৬ রানে। জবাবে ১ উইকেটে ৫ রান সিলেটের। অন্য ম্যাচে বরিশাল বিভাগের বিপক্ষে চট্টগ্রাম ৪ উইকেটে করেছে ২৬১ রান।

সতর্কতা হিসেবে ১৫ ওভারের বেশি বল না করার শর্ত ছিল মুস্তাফিজুর রহমানের। গতকাল ঠিক ১৫ ওভার করেই রাজশাহীর বিপক্ষে ৬৪ রানে ২ উইকেট এই পেসারের। নিজের দ্বিতীয় ওভারেই বোল্ড করেছিলেন মিজানুর রহমানকে। এরপর অধিনায়ক ফরহাদ হোসেন ৪৫ রানে মুস্তাফিজের বলে ক্যাচ দেন উইকেটের পেছনে। অফ স্পিনের জাদুতে মেহেদী হাসান মিরাজ ২১.৩ ওভারে ৩৮ রান খরচায় নেন ৪ উইকেট। রাজশাহী গুটিয়ে যায় ২৬১ রানে। সর্বোচ্চ ৫১ রান জুনায়েদ সিদ্দিকের।

রংপুর বিভাগের বিপক্ষে অন্য ম্যাচে ঢাকা বিভাগ ৪ উইকেটে ৩১৪ করে নিজেদের করে নিয়েছে প্রথম দিনটি। এর কৃতিত্ব অনেকটা সাইফ হাসানের। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে কদিন আগে ‘এ’ দলের হয়ে সব শেষ ওয়ানডেতে সাইফ  খেলেছিলেন ১১৭ রানের ইনিংস। সাড়ে তিন হাজার কিলোমিটার পাড়ি দিয়ে পাঁচ দিনের ব্যবধানে দ্বিতীয় ম্যাচে আবারও সেঞ্চুরি তাঁর। গতকাল ১৭৩ বলে ১৩ বাউন্ডারি ৩ ছক্কায় ১২০ রানে হন রিটায়ার্ড হার্ট। ওপেনার রনি তালুকদার ৬৫ ও রকিবুল হাসান করেন ৫৭।

দ্বিতীয় স্তরের ম্যাচে বরিশালের বিপক্ষে ১৪৪ রানে একটা সময় ৪ উইকেট হারিয়ে বসেছিল চট্টগ্রাম। পঞ্চম উইকেটে ইয়াসির আলী ও মাহিদুল ইসলামের অবিচ্ছিন্ন ১১৭ রানের জুটিতে তারা দিন শেষ করে ৪ উইকেটে ২৬১ রানে। মাহিদুল ৬৯ ও ইয়াসির আজ ব্যাট করতে নামবেন ৬৮ রান নিয়ে।

 

সংক্ষিপ্ত স্কোর

রাজশাহী-খুলনা

রাজশাহী : ৮৫.৩ ওভারে ২৬১ (জুনায়েদ ৫১, ফরহাদ ৪৫, রেজা ৪১; মেহেদী ৪/৩৮, মুস্তাফিজ ২/৬৪)।

ঢাকা-রংপুর

ঢাকা : ৯০ ওভারে ৩১৪/৪ (সাইফ ১২০ রিটায়ার্ড হার্ট, রনি ৬৫, রকিবুল ৫৭; শুভ ২/৮০, রবিউল ১/৩৬)।

ঢাকা মেট্রো-সিলেট

ঢাকা মেট্রো : ৮৩.৪ ওভারে ২৪৬ (মাহমুদ ৬৩, শহিদুল ৫৪, হায়দার ২৫; রেজাউর ৪/৭৫, কাপালি ২/২৩)।

সিলেট : ৪ ওভারে ৫/১ (এনামুল ৪*, তৌফিক ১ রিটায়ার্ড হার্ট; হায়দার ১/৪)।

চট্টগ্রাম-বরিশাল

চট্টগ্রাম : ৯০ ওভারে ২৬১/৪ (মাহিদুল ৬৯*, ইয়াসির ৬৮*, ইরফান ৫৭ ; মনির ২/৭০, আশরাফুল ১/১৫)।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা