kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ নভেম্বর ২০১৯। ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

কোহলিদের রেকর্ড ১১

১৪ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



কোহলিদের রেকর্ড ১১

‘ভারত ঘরে বাঘ, বিদেশে বিড়াল’—অভিযোগটা পুরনো। সৌরভ গাঙ্গুলি, মহেন্দ্র সিং ধোনি, বিরাট কোহলিদের হাত ধরে অবশ্য বদলে গেছে তারা। এখন আর মুখ থুবড়ে পড়ে না বিদেশের মাটিতে। পাশাপাশি দাপট ধরে রেখেছে দেশের ঘূর্ণি পিচেও। পুনেতে গতকাল সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকাকে নাস্তানাবুদ করে জিতেছে ইনিংস ও ১৩৭ রানে। প্রোটিয়াদের বিপক্ষে এক দিন হাতে রেখে এটাই তাদের সর্বোচ্চ ব্যবধানের জয়। তিন ম্যাচের সিরিজ নিশ্চিত হয়ে গেছে ২-০ ব্যবধানে। হয়েছে নতুন কীর্তিও। দেশের মাটিতে এ নিয়ে টানা ১১তম টেস্ট সিরিজ জিতল ভারত। ক্রিকেট ইতিহাসে নিজেদের মাটিতে টানা এত বেশি সিরিজ জয়ের রেকর্ড নেই আর কোনো দলের।

আধুনিক ক্রিকেটে চতুর্থ ইনিংসে ব্যাটিংয়ের ঝুঁকি এড়াতে বিপক্ষকে ফলো অন করায় না অনেকে। এ জন্যই ২০০৮ সালে লর্ডস টেস্টের পর ফলো অনে নামেনি দক্ষিণ আফ্রিকা। ম্যাচটি তারা করেছিল ড্র। আর ভারত তো কখনোই ফলো অনে পাঠায়নি প্রোটিয়াদের। বোলাররা টানা ১০৫.৪ ওভার বোলিং করায় বিরাট কোহলি ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেবেন কি না, গুঞ্জন ছিল তা নিয়ে। তবে এর প্রয়োজন মনে করেনি ভারতীয় অধিনায়ক। ভারতের ৬০১ রানের জবাবে ২৭৫-এ গুটিয়ে যাওয়া প্রোটিয়াদের ব্যাটিংয়ে পাঠান তিনি। ২০০৮ সালের পর প্রথমবার ফলো অনে নেমে বিবর্ণ ফাফ দু প্লেসিসের দল। ৬৭.২ ওভারে গুটিয়ে গেছে ১৮৯ রানে। হেরেছে ইনিংস ও ১৩৭ রানে। আর ভারত গড়ে দেশের মাটিতে টানা ১১ সিরিজ জয়ের রেকর্ড। ২০১২-১৩ মৌসুম থেকে শুরু হয়েছে এই জয়যাত্রা। তাদের আগে অস্ট্রেলিয়া দুইবার করে দেশের মাটিতে জিতেছিল টানা ১০ সিরিজ। ১৯৯৪-৯৫ থেকে ২০০০-০১ আর ২০০৪-০৫ থেকে ২০০৮-০৯ মৌসুমে দুইবার জিতেছিল টানা ১০ সিরিজ।

দ্বিতীয় ইনিংসে দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে ডিন এলগার ৪৮ ও তেম্বা বাভুমা করেন ৩৮ রান। উমেশ যাদব, রবীন্দ্র জাদেজা ৩টি করে আর রবিচন্দ্রন অশ্বিন নেন ২ উইকেট। অস্ট্রেলিয়ান কিংবদন্তি ডেনিস লিলির ৩৫৫ টেস্ট উইকেটের রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছেন অশ্বিন। তবে হার না মানা ২৫৪ রানের ইনিংসে ম্যাচ সেরার পুরস্কার জিতেছেন বিরাট কোহলি। ট্রিপল সেঞ্চুরি না করার চেষ্টা নিয়ে ম্যাচ শেষে জানালেন, ‘অধিনায়ক হিসেবে দলকে জয়ের জন্য সাহায্য করাই প্রথম কাজ আমার। স্কোর বোর্ডে তখন ৬০০ হয়ে গেছে, আর সেটা অনেক বড় মনে হয়েছিল আমার কাছে। এই দলটা টানা চার-পাঁচ বছর একসঙ্গে খেলছে। তাদের জয়ের জন্য ক্ষুধার্ত হয়ে থাকাটা অসাধারণ।’ ক্রিকইনফো

সংক্ষিপ্ত স্কোর

ভারত : ১৫৬.৩ ওভারে ৬০১/৫ ডি. (কোহলি ২৫৪*, আগরওয়াল ১০৮, জাদেজা ৯১, রাহানে ৫৯, পূজারা ৫৮; রাবাদা ৩/৯৩, কেশব ১/১৯৬)। দক্ষিণ আফ্রিকা : ১০৫.৪ ওভারে ২৭৫ (কেশব ৭২, দু প্লেসিস ৬৪, ফিল্যান্ডার ৪৪*, ডি ব্রুইন ৩০; অশ্বিন ৪/৬৯, উমেশ ৩/৩৭, সামি ২/৪৪) ও ফলো অন ৬৭.২ ওভারে ১৮৯ (এলগার ৪৮, বাভুমা ৩৮, ফিল্যান্ডার ৩৭; উশেম ৩/২২, জাজেদা ৩/৫২, অশ্বিন ২/৪৫)। ফল : ভারত ইনিংস ও ১৩৭ রানে জয়ী।  ম্যান অব দ্য ম্যাচ : বিরাট কোহলি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা