kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ নভেম্বর ২০১৯। ২৯ কার্তিক ১৪২৬। ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

মুখোমুখি প্রতিদিন

নতুন খেলার উন্নতির জন্য কোচ বাড়াতে হবে

১৩ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নতুন খেলার উন্নতির জন্য কোচ বাড়াতে হবে

ওয়ার্ল্ড রাগবি মাস্টার ট্রেনার হিসেবে গাইথ জালাজেল কয়েক দিন ধরে বাংলাদেশের কোচদের নিয়ে কাজ করেছেন। গতকাল কোচেস কোর্সের সমাপনী দিন শেষে পশ্চিম এশিয়ার রাগবি ডেভেলপমেন্ট কনসালট্যান্ট মুখোমুখি হয়েছেন কালের কণ্ঠ স্পোর্টসের

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : এখানে আপনি এসেছেন কোচেস কোর্স করাতে। কেমন দেখছেন বাংলাদেশের রাগিব কোচদের?

গাইথ জালাজেল : এখানে রাগবির শিক্ষা ভালোভাবেই চলছে। কোচদেরও উন্নতি হচ্ছে। একটা নতুন খেলার উন্নতির মূল শর্তই হচ্ছে কোচ বাড়ানো, তারাই তৈরি করবে খেলোয়াড়। বাংলাদেশে এই প্রক্রিয়া ঠিকঠাক চলছে। আর এ জন্য ওয়ার্ল্ড রাগবিও চেষ্টা করে তার অধিভুক্ত দেশগুলোকে উন্নতির পথে সাহায্য করতে।

প্রশ্ন : দেশের রাগবির অবস্থা কেমন দেখেন?

জালাজেল : আসলে এখনই খুব ভালো এমন বলা যাবে না। বিশ্বের বেশির ভাগ জায়গায় রাগবি চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে, বেশির ভাগ ক্ষেত্রে এশিয়া অঞ্চলে অন্য খেলাগুলোর সঙ্গে লড়াই করতে হচ্ছে। সেই চ্যালেঞ্জ জিতে আমাদের এগিয়ে যাওয়ার পথ তৈরি করতে হবে।

প্রশ্ন : আপনার দেশ জর্দানে কী অবস্থা?

জালাজেল : সেখানেও একই রকমের সমস্যা। সরকারি তরফ থেকে সে রকম কোনো অনুদান নেই খেলাটিকে এগিয়ে নেওয়ার জন্য। তবে এশিয়ার কয়েকটি দেশে খেলাটি স্কুল পর্যায়ে শিক্ষা কার্যক্রমের অংশ। সেটা হলে খেলার বিস্তারে কোনো সমস্যা হয় না। সরকার যখন খেলাটিকে ভালোভাবে নেয়, তখন উন্নতি হবেই হবে। আমাদের ওখানেও ফুটবল এক নম্বর খেলা।

প্রশ্ন : বাংলাদেশেও ক্রিকেট ফুটবলের আধিপত্য। সেখানে অন্যান্য খেলার এগোনো কঠিন।

জালাজেল : আমি জানি এই সমস্যার কথা। এ জন্য সরকারি অনুদান না হলেও স্পন্সর লাগবে খেলাটির উন্নতির জন্য। এ ছাড়া কোচ ও মানুষের আগ্রহ লাগবে। আগে আগ্রহ নাকি কোচ, এ নিয়ে বিতর্ক হতে পারে। আসলে দুটোই লাগবে খেলাটিকে এগিয়ে নিতে।

প্রশ্ন : কোচেস কোর্স করার পর এখন কাকে দেশের এক নম্বর কোচ মনে করেন?

জালাজেল : এটা খুব কঠিন প্রশ্ন। এক নম্বর কোচ নিয়ে আমি ঠিক বলতে পারব না। তবে এখন ওয়াস্তি আফজাল ও আবু আরেফ খুব ভালো করেছে কোচেস কোর্সে। আশা করি তারা খুব ভালো করবে ভবিষ্যতে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা