kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৪ আশ্বিন ১৪২৭ । ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০। ১১ সফর ১৪৪২

ফেরাটা ভালো হলো না তামিমের

১১ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ফেরাটা ভালো হলো না তামিমের

ক্রীড়া প্রতিবেদক : ফেরার ম্যাচে শুরুটা ভালোই করেছিলেন তামিম ইকবাল। প্রথম ওভারেই বাউন্ডারি মেরে শুরু করা এই বাঁহাতি ওপেনার পরে বেশ সাবধানী ব্যাটিংও করতে থাকেন। তাতে বড় ইনিংস খেলার সম্ভাবনা যখন দেখা যেতে শুরু করেছিল, তখনই ছন্দঃপতন। বাজে শটে উইকেট বিলিয়ে আসায় ফেরাটা উজ্জ্বল হলো না তাঁর। একই সঙ্গে ব্যর্থতা দিয়ে ২১তম জাতীয় ক্রিকেট লিগ (এনসিএল) শুরু করেছেন চট্টগ্রাম দলে তাঁর অধিনায়ক মমিনুল হকও। ঢাকা মেট্রোর বিপক্ষে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে তাঁদের ব্যর্থতার দিনে সফলতম পারফরমার অবশ্য বৃষ্টিই।

পুরো দিনে বৃষ্টির বাধায় খেলা হতে পেরেছে মোটে ৫১ ওভার। তাতে দ্বিতীয় স্তরের ম্যাচে চট্টগ্রাম ৩ উইকেট হারিয়ে তুলেছে ১৪৭ রান। ফতুল্লায় বৃষ্টিবিঘ্নিত প্রথম স্তরের ম্যাচে রাজশাহীর বাঁহাতি স্পিনার তাইজুল ইসলাম (৪/৫৫) ও পেসার শফিউল ইসলামের (৩/৪০) দারুণ বোলিংয়ের যোগফলে অবস্থা করুণ ঢাকা বিভাগের। ৫১.৫ ওভারে ১৪৩ রান তুলতেই তারা হারিয়ে ফেলেছে ৭ উইকেট। এর মধ্যে ওপেনার রনি তালুকদার (৬৩) ফিফটি না করলে অবস্থা আরো খারাপই হতো শুভাগত হোমের দলের। এই দুটি ম্যাচ তবু কিছুটা হয়েছে। তবে প্রথম স্তরের খুলনা-রংপুর এবং দ্বিতীয় স্তরের সিলেট-বরিশাল ম্যাচের একটিতেও বৃষ্টির জন্য টসই হতে পারেনি।

মিরপুরে সকালে কিছুক্ষণ রোদের দেখা মিলেছিল। ছুটি শেষে প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটে ফেরা তামিমের ব্যাটেও ছিল চোয়ালচাপা প্রতিজ্ঞা। শ্রীলঙ্কা থেকে ওয়ানডে সিরিজ খেলে ফেরার পর ছুটি নেওয়া তামিম খেলেননি আফগানিস্তানের বিপক্ষে একমাত্র টেস্ট এবং ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজও। প্রথম ঘণ্টায় মাত্র ১১ রান করা তামিমের ব্যাটে টিকে থাকার প্রতিজ্ঞা ছিল পরের ঘণ্টায়ও। ওদিকে চট্টগ্রামের অন্য ওপেনার সাদিকুর রহমান (৫১) বাড়িয়েছেন রানের গতি। তাঁকে ফেরানো মাহমুদ উল্লাহই প্রথম দিনে ঢাকা মেট্রোর একমাত্র সফল বোলার। সাদিকুর আর মমিনুলের (১১) মাঝখানে তিনি যে অফ স্পিনে তুলে নিয়েছেন ১০৫ বলে ৩০ রান করা তামিমকেও। শর্ট বলে পুল করতে গিয়ে মাহমুদকেই ফেরার ম্যাচে ক্যাচ দিয়েছেন তামিম।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা