kalerkantho

শনিবার । ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৯ রবিউস সানি ১৪৪১     

বললেন গোলাম রব্বানী

মেয়েদের ফুটবলে সেরা অর্জন

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মেয়েদের ফুটবলে সেরা অর্জন

তহুরার জোড়া গোল

চনবুরি থেকে প্রতিনিধি : এএফসি অনূর্ধ্ব-১৪ চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশ টানা দুইবার চ্যাম্পিয়ন। এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ টুর্নামেন্টের বাছাই পর্বে একবার চ্যাম্পিয়ন আরেকবার রানার্স-আপ হয়ে চূড়ান্ত পর্বে। সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ ও অনূর্ধ্ব-১৮ ফুটবলেও আছে শিরোপা। তবে এই প্রাপ্তিগুলোর চেয়ে গতকাল অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ২-২ গোলে ড্রটাকেই বেশি এগিয়ে রাখলেন বাংলাদেশি কোচ গোলাম রব্বানী। অস্ট্রেলিয়া এশিয়ান দলগুলোর মধ্যে র‌্যাংকিংয়ে সবচেয়ে এগিয়ে। তাই এএফসি চ্যাম্পিয়নশিপের মতো বড় মঞ্চে গোলাম রব্বানীর কাছে মেয়েদের ফুটবলে সেরা অর্জন এটাই, ‘নিঃসন্দেহে বাংলাদেশ ফুটবলের সেরা অর্জন এটা। আমার কোচিং ক্যারিয়ারেরও সেরা। এই দলটির সঙ্গে অনেক দিন আছি, অনেক সাফল্যও পেয়েছি। কিন্তু এএফসি চ্যাম্পিয়নশিপের মঞ্চে অস্ট্রেলিয়ার মতো দলের সঙ্গে ড্রর মতো গর্বের কিছু হতে পারে না আর।’

বাংলাদেশ এগিয়ে গিয়েছিল দুই দুইবার। প্রেসিং ফুটবলে খেলেছেও দুর্দান্ত। তবে শেষ দিকে অতিরিক্ত রক্ষণাত্মক হওয়াতেই কি দুইবার এগিয়েও জেতা হলো না? এমন প্রশ্নে গোলাম রব্বানী জানালেন, ‘আমাদের তুলনায় অস্ট্রেলিয়া অনেক এগিয়ে থাকা দল। আমরা রক্ষণে শক্তি না বাড়ালে ফলটা বিপক্ষেও যেতে পারত।’

দুই গোল করা তহুরা খাতুন মাতিয়েছেন পুরো ম্যাচ। বল পায়ে তাঁর বাঘিনীর গতি মুগ্ধ করেছে অস্ট্রেলিয়ান কোচ রায়েনে দোয়েরকেও, ‘তোমাদের নাম্বার টেন (তহুরা) বল পায়ে দারুণ গতির। বাংলাদেশের এমন পারফরম্যান্স কিন্তু অবাক করেনি আমাদের।’ দুই গোল করে বাংলাদেশকে স্মরণীয় এক পয়েন্ট এনে দেওয়া তহুরা অবশ্য বেশি খুশি হতেন দল জিতলে, ‘থাইল্যান্ডের বিপক্ষে এতগুলো সুযোগ মিস না করলে আমরা অন্য উচ্চতায় থাকতাম। ভালো লাগছে দুই গোল করে, তবে জিতলে খুশি হতাম আরো।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা