kalerkantho

সোমবার । ১৮ নভেম্বর ২০১৯। ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ভয় ধরিয়ে জিতল রিয়াল ও লিভারপুল

১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



ভয় ধরিয়ে জিতল রিয়াল ও লিভারপুল

আন্তর্জাতিক ফুটবলের বিরতির পর ফের মাঠে গড়িয়েছে লিগের খেলা। বিরতির এ সময়টা লিগের কোচদের জন্য খুবই উদ্বেগের, কারণ দেশের হয়ে খেলতে গিয়ে প্রায়ই চোট নিয়ে ক্লাবে ফেরেন ফুটবলাররা। তার ওপর বেশ কদিন ক্লাবের নিয়মিত অনুশীলনের বাইরে থাকায় নতুন করে মানিয়ে নেওয়াটাও সহজ হয় না। বিরতির পর প্রথম ম্যাচে তাই অনেক বড় দলই পয়েন্ট খুইয়ে ফেলে অপেক্ষাকৃত ছোট দলের কাছে। এমনটাই হতে যাচ্ছিল অ্যানফিল্ডে আর সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে। লিভারপুলের জালে ম্যাচের সপ্তম মিনিটেই বল পাঠিয়ে দিয়েছিলেন নিউক্যাসলের জেট্রো উইলিয়ামস। এর পরও লিভারপুল যে ম্যাচটি ৩-১ গোলে জিততে পারল, সেটা সাদিও মানের জোড়া গোলের সঙ্গে মো সালাহর গোলে। বার্নাব্যুতে রিয়াল মাদ্রিদ ৩-০ গোলে এগিয়ে যাওয়ার পর লেভান্তের কাছে হজম করে জোড়া গোল। অঘটন এড়িয়ে ৩-২ গোলে জিতেছে রিয়াল, তবে নিজের মাঠে এভাবে এগিয়ে গিয়েও গোল হজম করাটা  ভালো চোখে দেখছেন না জিনেদিন জিদান। ম্যাচের পর সংবাদ সম্মেলনে তাই দ্বিতীয়ার্ধ নিয়ে হতাশা তাঁর কণ্ঠে, ‘প্রথমার্ধে আমরা দুর্দান্ত খেলেছি। অনেকগুলো গোল, ভালো ফুটবল, জেতার তীব্র ইচ্ছা। দ্বিতীয়ার্ধে আমরা বেশ কয়েকটা সুযোগ পেলেও সেসব কাজে লাগাতে পারিনি।’ কারণ হিসেবে বললেন খেলোয়াড়দের ভ্রমণক্লান্তির কথা, ‘অনেকেই পুরো বিশ্রাম পায়নি। কাসেমিরো পায়নি, সের্হিওর চোট আছে, হামেস আর হ্যাজার্ড তো খুব বেশি অনুশীলনেরই সুযোগ পায়নি।’

কালকের আগ পর্যন্ত খেলা চারটি প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচেই আগে গোল করেছে লিভারপুল। তাই কাল ম্যাচের সপ্তম মিনিটেই উইলিয়ামসের দারুণ শটে করা গোল যখন অ্যানফিল্ডেই পিছিয়ে দেয় অলরেডদের, তখন কিছুটা হলেও শঙ্কায় বুক কাঁপে সমর্থকদের। তবে বেশিক্ষণ উৎকণ্ঠায় রাখেননি সাদিও মানে। ম্যাচের ২৮ ও ৪০ মিনিটে দুটি গোল করে লিভারপুলকেই তুলে আনেন শীর্ষে। অ্যান্ড্রু রবার্টসনের পাস থেকে মানে করেছিলেন প্রথম গোলটি। দিভক ওরিগির বদলে নামা ফিরমিনোর পাস থেকে বিরতির ৫ মিনিট আগে মানে করেন দ্বিতীয় গোল। ফিরমিনোর দারুণ ফ্লিক থেকেই দলের তৃতীয় গোলটি করেন সালাহ। ৩-১ গোলে জিতে প্রিমিয়ার লিগে টানা ১৪ ম্যাচ অপরাজিত লিভারপুল, চলতি মৌসুমে ৫ ম্যাচে তাদের সংগ্রহ ১৫ পয়েন্ট। মার্কাস রাশফোর্ডের পেনাল্টি থেকে করা একমাত্র গোলে লিস্টারকে ১-০ গোলে হারিয়েছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। টটেনহাম ৪-০ গোলে হারিয়েছে ক্রিস্টাল প্যালেসকে।

বার্নাব্যুতে রিয়াল মাদ্রিদ ৩-০ গোলে এগিয়ে যাওয়ার পর লেভান্তের কাছে হজম করে জোড়া গোল। অঘটন এড়িয়ে ৩-২ গোলে জিতেছে রিয়াল। লিভারপুলের জালে ম্যাচের সপ্তম মিনিটেই বল পাঠিয়ে দিয়েছিলেন নিউক্যাসলের জেট্রো উইলিয়ামস। এর পরও লিভারপুল যে ম্যাচটি ৩-১ গোলে জিততে পারল, সেটা সাদিও মানের জোড়া গোলের সঙ্গে মো সালাহর গোলে।

রিয়ালের গল্পটা অন্য রকম। ম্যাচের ২৫ মিনিটে দানি কারভাহালের ক্রসে করিম বেনজেমার হেডে প্রথম গোল লস ব্লাংকোসদের, ৬ মিনিট পর হামেস রোদ্রিগেসের থ্রু থেকে বেনজেমার দ্বিতীয় গোল। ৪০ মিনিটে কাসেমিরোর গোলে স্কোরলাইন ৩-০ করে ফেলে রিয়াল, শনিবার দুপুরের নাটকীয়তা সেখানেই থেমে যাওয়ার কথা। কিন্তু বিরতির পর খেলা শুরুর ৬ মিনিট পর রিয়াল থেকেই ধারে লেভান্তেতে যাওয়া বোর্হা মেয়রাল গোল করে খানিকটা ব্যবধান কমান। এরপর ম্যাচের ৭৫ মিনিটে গনসালো মালেরো হেড থেকে গোল দিয়ে স্কোরলাইন ৩-২ করে ফেললে বাড়ে নাটকীয়তা। দুই দলই মরিয়া হয়ে ওঠে গোলের জন্য, ৯৪তম মিনিটে লুই মোরালেসের ডানপায়ের শটটা লক্ষ্যভ্রষ্ট না হলে হয়তো ১ পয়েন্ট নিয়েই ফিরত লেভান্তে। কিন্তু সেটা যায়নি অভীষ্ট ঠিকানায়, তাই হার নিয়েই ফিরতে হচ্ছে তাদের আর ৪ ম্যাচে দ্বিতীয় জয়ের দেখা পেয়ে রিয়াল আপাতত উঠে এসেছে পয়েন্ট টেবিলের দুইয়ে।

বুন্দেসলিগায় বরুশিয়া ডর্টমুন্ড ৪-০ গোলের বড় জয় পেয়েছে বেয়ার লেভারকুসেনের বিপক্ষে। জোড়া গোল মার্কো রয়েসের। সিরি ‘এ’তে জুভেন্টাস গোলশূন্য ড্র করেছে ফিওরেন্তিনার সঙ্গে। বিবিসি, স্কাই

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা