kalerkantho

এখনো দেখছেন ডমিঙ্গো

১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



এখনো দেখছেন ডমিঙ্গো

ক্রীড়া প্রতিবেদক : মাত্র তিন সপ্তাহের অবস্থানকালেই বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম দুঃখজনক অধ্যায় দেখে ফেলেছেন রাসেল ডমিঙ্গো। এখানে পূর্বসূরি স্টিভ রোডসের সঙ্গে তাঁর অদ্ভুত মিল! রোডসও প্রথম অ্যাসাইনমেন্টে শিষ্যদের দেখেছিলেন ৪৩ রানে গুটিয়ে যেতে। ডমিঙ্গো জানালেন, এখনো তিনি দেখছেন শিষ্যদের। খুঁজে বের করতে চাইছেন তাঁদের সামর্থ্য ও দুর্বলতা। তবে আফগানদের সঙ্গে টেস্ট হারের পর বুঝতে পেরেছেন, সমস্যা যতটা ভেবেছিলেন তার চেয়ে অনেক গভীরে বিস্তৃত।

কাল বিকেলেই ডমিঙ্গো প্রথমবারের মতো দেখেছেন আফিফ হোসেন, ইয়াসিন আরাফাত, মেহেদী হাসানকে। আজকের ম্যাচে তাঁদের নিয়ে কী পরিকল্পনাই বা করার আছে কোচের! সেটাই বললেন দুঃখের স্বরে, ‘আমি তিনজন খেলোয়াড়ের দেখা পেলাম মাত্র ১০ মিনিট আগে। তাদের নিয়ে কী-ই বা করার আছে আমার!’ টেস্ট শুরুর আগে ডমিঙ্গো বলেছিলেন, তিনি শুধুই পর্যবেক্ষণ করবেন। জানালেন টি-টোয়েন্টি সিরিজেও ‘অবজারভার মোড’ থেকে খুব একটা সরে আসছেন না তিনি, ‘আমি এখনো পর্যবেক্ষণই করছি। টেস্ট ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসে অধিনায়ক যেভাবে দলের ব্যাটিং অর্ডারে অদলবদল করেছে, সেটা আমাকে জিজ্ঞাসা করেই করেছে। ক্রিকেট কোচদের কাজটাই এমন যে ড্রেসিংরুমে তো চুপচাপ বসে থাকা যায় না, এটা-সেটা কাজ তো করতেই হয়। আমি আস্তে আস্তে খেলোয়াড়দের সঙ্গে কাজ করা শুরু করেছি, ভিডিও দেখাচ্ছি। এই পর্যায়ে অধিনায়কই আমার চেয়ে খেলোয়াড়দের বেশি চেনে। তাই সে যে প্রক্রিয়ায় এগোতে চাচ্ছে, আমি সেভাবেই তাকে শতভাগ সহযোগিতা করছি।’

ডমিঙ্গো এখনো মূলত তথ্য সংগ্রহ করছেন। অধিনায়কের কাছ থেকে জেনেছেন, ‘সাকিব আমাকে বলল, বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা ৫০ ওভারের ক্রিকেটে সবচেয়ে স্বাচ্ছন্দ্য, কারণ স্কুল ক্রিকেট আর ক্লাব পর্যায়ে এই ক্রিকেটের চর্চাই বেশি হয়।’ অগত্যা, ত্রিদেশীয় সিরিজেও পর্যবেক্ষণেই কাটবে কোচের।

মন্তব্য