kalerkantho

সোমবার । ১৪ অক্টোবর ২০১৯। ২৯ আশ্বিন ১৪২৬। ১৪ সফর ১৪৪১       

বিপিএল এবার শুধুই বিসিবির

১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ক্রীড়া প্রতিবেদক : অনেক আলোচনা, অনেক দেন-দরবার, অনেক টানাপড়েন। বিপিএলের ফ্র্যাঞ্চাইজিদের সঙ্গে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) মতৈক্যে আসতে পারছিল না কিছুতেই। এরই মধ্যে বিসিবি নিল চমকে দেওয়ার মতো সিদ্ধান্ত। এ বছরের টুর্নামেন্ট হবে নিজস্ব ব্যবস্থাপনায়; কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজির কাছে স্বত্ব বিক্রি করা হবে না। ‘বঙ্গবন্ধু বিপিএল’ নামে সে প্রতিযোগিতা আয়োজনের ঘোষণা কাল দিয়েছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান।

আগামী বছর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী সামনে রেখে তাঁর নামে হবে বিপিএল। সেখানে দলগুলোর মালিকানা বিসিবির থাকবে বলে জানিয়েছেন নাজমুল, ‘দলগুলোর মালিকানা সব বিসিবির থাকবে। অস্ট্রেলিয়ার বিগ ব্যাশের মতো। প্লেয়ার পেমেন্ট থেকে সব কিছু বিসিবি করবে।’ খেলোয়াড়দের নিলাম হবে; টুর্নামেন্ট হবে পূর্বঘোষিত সময় ৬ ডিসেম্বর থেকেই। আর দলগুলোর নাম স্পন্সরের ওপর নির্ভর করবে বলে জানান বিসিবি সভাপতি, ‘খেলোয়াড়-কোচ সব আমরা দেব। তবে যদি টিম স্পন্সর নেই তাহলে তারা কিছু কিছু করতে পারবে। যদি তারা ডাইরেক্ট সাইন করে বিদেশি কিছু খেলোয়াড় আনতে চায়, আনতে পারবে। যদি আরো দামি কোচ আনতে চায়, আনতে পারবে।’

আগামী বছর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী সামনে রেখে তাঁর নামে হবে বিপিএল। সেখানে দলগুলোর মালিকানা বিসিবির থাকবে বলে জানিয়েছেন নাজমুল, ‘দলগুলোর মালিকানা সব বিসিবির থাকবে। অস্ট্রেলিয়ার বিগ ব্যাশের মতো। প্লেয়ার পেমেন্ট থেকে সব কিছু বিসিবি করবে।’

ফ্র্যাঞ্চাইজিদের কাছ থেকে বিসিবির হঠাৎ মুখ ঘুরিয়ে নেওয়ার কারণ তাঁদের দাবি। বিসিবি সভাপতিও সেটি বলেছেন, ‘ওদের দাবি-দাওয়া কোনোভাবেই মানা সম্ভব নয়। আমরা এবার চালিয়ে দেখি কী সমস্যা, কেন তারা আর্থিক ক্ষতির কথা বলছে। আমাদের হিসেবে তো এগুলো হওয়ার কথা না।’ দলগুলো রেভিনিউ শেয়ারিংয়ের দাবিতেই মূল আপত্তি বিসিবির, ‘রেভিনিউ শেয়ারিং করা সম্ভব নয়। ওরা আমাদের ৮০ কোটি টাকা দিক, আমরা ৪০ কোটি দিয়ে দেব। শুনুন, আগে তো ফ্র্যাঞ্চাইজি ফি আট কোটি টাকা করে নিত। আমরা সাত কোটি ছেড়েই দিয়েছি; মাত্র এক কোটি নিচ্ছি। আবার ওরা কী চায়! আমরা চাই, যারা বিপিএলে আসবে তারা খেলার উন্নয়ন, খেলোয়াড়ের উন্নয়নের জন্য আসবে। ব্যবসা করার জন্য নয়।’ সে ব্যবসাও ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর কম হচ্ছে বলে মনে করেন না নাজমুল। বিপিএলের ভবিষ্যৎ অন্ধকার কি না, এমন প্রশ্নের উত্তরে তেমনটাই মত বিসিবি সভাপতির, ‘অন্ধকার কেন? আমরা চালাব। বিসিবি চালাতে পারবে না? শোনেন, ক্ষতি যদি হয়, তাহলে ৮০ লাখ টাকার খেলোয়াড়কে চার কোটি টাকা দিয়ে কেউ নিত না। ওরা নিশ্চিতভাবে অনেক লাভ করে; আরো লাভ করতে চায়।’

তবে টুর্নামেন্টটি যেহেতু বিপিএল, নিজেদের ব্যবস্থাপনায় টুর্নামেন্ট আয়োজনে বিসিবির যে সিদ্ধান্ত, সেটি শেষ পর্যন্ত বহাল থাকবে— এমনটা জোর দিয়ে বলার উপায় নেই।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা