kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ নভেম্বর ২০১৯। ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

নাদালের শেষ বাধা মেদভেদেভ

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নাদালের শেষ বাধা মেদভেদেভ

সব শেষ ১১ গ্র্যান্ড স্লামের সবটিই ভাগাভাগি করে নিয়েছেন রজার ফেদেরার, নোভাক জোকোভিচ আর রাফায়েল নাদাল। ‘বিগ থ্রি’র বাইরে কেউ গ্র্যান্ড স্লাম জিতেছিল সেই ২০১৬ সালের ইউএস ওপেনে। সেবার জোকোভিচকে হারিয়ে বাজিমাত স্তান ওয়ারিংকার। এবার তাঁদের চ্যালেঞ্জ জানানো খেলোয়াড় হিসেবে সাবেক তারকা জন ম্যাকেনরো বেছে নিয়েছিলেন দানিয়েল মেদভেদেভকে। রাশিয়ান সেই মেদভেদেভ প্রথমবারের মতো জায়গা করেছেন কোনো গ্র্যান্ড স্লামের ফাইনালে। রাফায়েল নাদালের ১৯তম গ্র্যান্ড স্লাম জয়ের শেষ বাধা তিনি। গত পরশু সেমিফাইনালে নাদাল ৭-৬, ৬-৪, ৬-১ গেমে হারান ইতালির মাত্তেও বেরেত্তিনিকে। আর মেদভেদেভ ৭-৬, ৬-৪, ৬-৩ গেমে হারিয়েছেন ‘বেবি ফেদেরার’ খ্যাত গ্রিগর দিমিত্রভকে।

নাদালের ক্যারিয়ারের ১৮ গ্র্যান্ড স্লামের ১২টিই ফ্রেঞ্চ ওপেনের। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ তিনটি ইউএস ওপেনে। সব মিলিয়ে গ্র্যান্ড স্লাম ফাইনালে নাম লিখিয়েছেন ২৭ বার। সামনে শুধু ৩১ ফাইনাল খেলা রজার ফেদেরার। উন্মুক্ত যুগে ফেদেরার, পিট সাম্প্রাস আর জিমি কোনর্সের ঝুলিতে ইউএস ওপেনের সর্বোচ্চ শিরোপা সমান পাঁচটি করে। আজ জিতলে তাঁদের সঙ্গে ব্যবধান এক ধাপ কমবে নাদালের। শিরোপাটা জিততে মুখিয়েও আছেন তিনি, ‘ইউএস ওপেনের ফাইনালে পৌঁছে ভীষণ খুশি আমি। মৌসুমের শুরুতে চোট যেভাবে ভোগাচ্ছিল তাতে ফাইনাল খেলাটা বিশেষ কিছু। শেষ বাধা পার হতে প্রস্তুতি নেব এখন।’

পঞ্চম বাছাই মেদভেদেভের সঙ্গে ক্যারিয়ারে একবারই দেখা হয়েছে নাদালের। এ বছর মন্ট্রিলের সেই ম্যাচে নাদালের জয় ৬-৩, ৬-০ গেমে। এর পরও প্রথমবার কোনো গ্র্যান্ড স্লাম খেলা মেদভেদেভকে সমীহ করছেন ১৮ মেজর জয়ী এই কিংবদন্তি, ‘বর্তমান সময়ের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় ও। উন্নতি করছে প্রতি সপ্তাহে। ওকে হারাতে গেলে সেরাটা খেলতে হবে আমাকে।’ সেমিফাইনালের প্রথম সেটে ইতালির মাত্তেও বেরেত্তিনিকে হারাতে বেশ ঘাম ঝরাতে হয়েছে নাদালের। সেটটা টাইব্রেকারে জেতেন ৭৩ মিনিটে। এরপর চেনা ছন্দে ফিরে পরের দুই সেট নিজের করে নেন মাত্র ৮২ মিনিটে। আজকের ফাইনালে এমন ছন্দ ধরে রাখা চ্যালেঞ্জ তাঁর।

২৩ বছর বয়সী মেদভেদেভের এ বছরটা কাটছে দুর্দান্ত। হেরেছেন মাত্র দুই ম্যাচ, সেটাও ওয়াশিংটন ও কানাডা ওপেনের ফাইনালে। সিনসিনাটি মাস্টার্সের শিরোপা জিতেছেন ফাইনালে র‍্যাংকিংয়ের চূড়ায় থাকা নোভাক জোকোভিচকে হারিয়ে। আজ আর্থার অ্যাশ স্টেডিয়ামে তিনি কি পারবেন নাদালের জয়যাত্রা আটকাতে? আশাবাদী মেদভেদেভ, ‘প্রথম গ্র্যান্ড স্লাম ফাইনালে ওঠা দুর্দান্ত ব্যাপার। যুক্তরাষ্ট্রে আসার আগে জানতাম না আমি এত দূর যেতে পারি। তাই ভালোবাসি তোমায় যুক্তরাষ্ট্র! ফাইনালে নিজেকে উজাড় করে খেলার চেষ্টা করব।’

২০০৫ সালে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে মারাত সাফিনের পর প্রথম রাশান হিসেবে কোনো গ্র্যান্ড স্লামের ফাইনালে মেদভেদেভ। এই সাফিনই সর্বশেষ রাশান হিসেবে ইউএস ওপেন জিতেছিলেন ২০০০ সালে। তাঁর পাশে বসতে পারবেন তো মেদভেদেভ? এএফপি

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা