kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ নভেম্বর ২০১৯। ২৭ কার্তিক ১৪২৬। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

রোমাঞ্চের অপেক্ষায় ওল্ড ট্র্যাফোর্ড

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



রোমাঞ্চের অপেক্ষায় ওল্ড ট্র্যাফোর্ড

বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি উইকেট পাওয়া মিচেল স্টার্কের জায়গা হচ্ছিল না অ্যাশেজের একাদশে। ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ফিরে সেই স্টার্ক গতি আর সুইংয়ের মিশেলে হয়ে উঠেছিলেন ভয়ংকর। তাঁর সঙ্গে হ্যাজেলউড আর প্যাট কামিন্সের আগুনে পুড়ে গতকাল ইংল্যান্ড পড়েছিল ফলোঅন শঙ্কায়। জস বাটলারের দৃঢ়তায় হাঁফ ছেড়ে বাঁচে ইংল্যান্ড। মিচেল স্টার্কের বলে বাউন্ডারি মেরে বাটলার ফলোঅন এড়াতেই ওল্ড ট্র্যাফোর্ডের গ্যালারি ভাসে উচ্ছ্বাসে। শেষ পর্যন্ত ইংল্যান্ড অল আউট ৩০১ রানে, অস্ট্রেলিয়ার লিড ১৯৬ রানের। এরপর স্টিভেন স্মিথের ৮২ রানের কার্যকর ইনিংসে ভর করে ৬ উইকেটে ৪২.৫ ওভারে ১৮৬ রান তোলে দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করে অস্ট্রেলিয়া। ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে জিততে ইংল্যান্ডের সামনে লক্ষ্য ছুঁড়ে দেয় তারা ৩৮৩ রান। কঠিন ওই মিশনে নেমে স্কোরবোর্ডে কোনো রান জমা হওয়ার আগেই নেই দুই উইকেট। রোরি বার্নসকে ফেরান প্যাট কামিন্স আর জো রুটের উইকেট নেন মিচেল স্টার্ক। 

মাত্র ৫ রানের জন্য ফলোঅনে ফেলতে না পারায় আবারও ব্যাট করতে নামে অস্ট্রেলিয়া। প্রথম ওভারেই কোনো রান না করে ডেভিড ওয়ার্নার এলবিডাব্লিউ হয়েছেন স্টুয়ার্ট ব্রডের বলে। প্রথম ইনিংসেও রানের খাতা খোলা হয়নি তাঁর। এই সিরিজে এ নিয়ে ছয়বার ব্রডের শিকার ওয়ার্নার। আরেক ওপেনার মার্কাস হ্যারিসও ৬ রান করে এলবিডাব্লিউ ব্রডের বলে। এরপর মার্নাস লাবুশানেকে ফেরান জোফ্রা আর্চার। ১২ করে ট্রাভিস হেডও বোল্ড আর্চারের বলে। বিপর্যয়ে আবারো দলের হাল ধরেন স্টিভেন স্মিথ। তিন অংকের জাদুকরি স্কোর এবার ছুঁতে না পারলেও তাঁর ৮২ রানের কার্যকর হাসসেঞ্চুরিতে ভর করে বিশাল লিড নিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। সেই লক্ষ্যে পিছু ছুটতে নেমে চতুর্থ দিন শেষে ইংল্যান্ডের স্কোর ৭ ওভারে ২ উইকেটে ১৮ রান।  জয়ের জন্য অস্ট্রেলিয়ার চাই আর ৮ উইকেট আর ইংল্যান্ডের তখন দরকার ছিল ৩৬৫ রান। আজ শেষ দিন রোমাঞ্চকর কিছুর অপেক্ষায় তাই ওল্ড ট্র্যাফোর্ড।

৪৯৭ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি ইংল্যান্ডের। ২৫ রানে স্বাগতিকরা হারায় ২ উইকেট। এরপর প্রতিরোধ ররি বার্নস ও জো রুটের। তৃতীয় উইকেটে ১১৪ রানের জুটি গড়েন দুজন। তবুও  ৩০০ পেরিয়েই অলআউট হয়ে যায় তারা। ক্রিকইনফো

অস্ট্রেলিয়া : ৪৯৭/৮ ডি. এবং দ্বিতীয় ইনিংস ৪২.৫ ওভারে ১৮৬/৬( স্মিথ ৮২, ওয়েড ৩৪; আর্চার ৩/৪৫)।

ইংল্যান্ড : ১০৭ ওভারে ৩০১ (বার্নস ৮১, রুট ৭১, বাটলার ৪১, স্টোকস ২৬, রয় ২২; হ্যাজেলউড ৪/৫৭, স্টার্ক ৩/৮০, কামিন্স ৩/৬০)।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা