kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ নভেম্বর ২০১৯। ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

হুট করে সিস্টেম বদলে ফেলা কঠিন

৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



হুট করে সিস্টেম বদলে ফেলা কঠিন

পেসারদের গুরুত্ব না দিয়ে এবং স্পিনার বাড়িয়ে দেশের মাটিতে টেস্ট খেলার যে নীতি বাংলাদেশ শিবিরের, তা নিয়ে ভিন্নমত থাকলেও থাকতে পারে নতুন হেড কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর। তবে তা এখনই প্রকাশ্য না করে বরং এই দক্ষিণ আফ্রিকান আপাতত পর্যবেক্ষকের ভূমিকায়। তিনি আগে দেখতে চান, কিছু বদলালেও তা পরে। যদিও আগামীকাল থেকে শুরু হতে যাওয়া আফগানিস্তানের বিপক্ষে একমাত্র টেস্ট দিয়েই শুরু হয়ে যাচ্ছে তাঁর বাংলাদেশ অধ্যায়। এখনই হাত না দিতে চাইলেও পুরনো রণকৌশলেই জয়ের ইচ্ছাতেও কোনো কমতি নেই তাঁর। গতকাল চট্টগ্রামে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে জেতার পথে আফগান স্পিন আক্রমণ পথের কাঁটা হয়ে ওঠার যথেষ্ট শঙ্কার কথাও বলে রাখলেন তিনি

 

অল্প সময়ে যেমন দেখেছেন বাংলাদেশ দলকে...

দুই সপ্তাহ হয়ে গেল ওদের সঙ্গে আছি। যা দেখেছি, তাতে আমি মুগ্ধ। দুই সপ্তাহ ধরে ওদের প্রচেষ্টা অবিশ্বাস্যই লেগেছে আমার কাছে। ওদের ওয়ার্ক এথিকস দারুণ। আমি তাই সন্তুষ্টই।

প্রথম সিরিজের লক্ষ্য...

কেউই তো হারার জন্য খেলে না। জেতার জন্য সঠিক প্রক্রিয়া অনুসরণের দিকেই আমার নজর। ধৈর্য দেখানো এবং আফগানিস্তানের বিপক্ষে বোলিংয়ে সঠিক কাজগুলো করতে হবে। তা করতে পারলে জিততে পারব।

বিশেষ করে বোলারদের ফিটনেস বাড়ানোর প্রয়োজনীয়তা উল্লেখ করে...

আমরা নিশ্চিত করতে চাই ছেলেরা যেন দারুণ ফিট থাকে। এখানে একটি উন্নতির জায়গাও আছে। আর সেটি হলো বোলারদের ফিটনেস। আমি চাই বোলাররা (পেসাররা) যেন দ্বিতীয় এবং তৃতীয় স্পেলে গিয়েও প্রথম স্পেলের গতিতেই বোলিং করে। এটা নিয়ে দুই সপ্তাহ ধরে আমরা কাজও করছি। বিশেষ করে ফাস্ট বোলারদের ফিটনেস সব সময় একটি দুশ্চিন্তার বিষয়। বিশ্বের সেরা ফাস্ট বোলাররা একই গতিতে দিনে ১৮-২২ ওভার বোলিং করতে সক্ষম। আমি ঠিক নিশ্চিত নই যে আমাদের এ রকম কোনো তরুণ ফাস্ট বোলার আছে কি না। কাজেই এ ক্ষেত্রে উন্নতির জন্য আমাদের কাজ চলছে। তবে গত দুই সপ্তাহে কিছুটা হলেও উন্নতি তো হয়েছেই।

দেশের মাটিতে একাদশে নামে মাত্র পেসার রেখে বেশি স্পিনার নিয়ে নামার কৌশল প্রসঙ্গে...

বাংলাদেশের হয়ে এটিই আমার প্রথম টেস্ট ম্যাচ। প্রথম টেস্টে বাংলাদেশ কেমন পারফরম করে, সেটি আগে দেখতে চাই। দেশের মাটিতে গত বেশ কিছু টেস্টে যে সিস্টেম অনুসরণ করা হচ্ছে, এসেই হুট করে সিস্টেম বদলে ফেলা কঠিন। আমি তাই আপাতত বসে বসে দেখব। নির্বাচক ও সাকিবের চিন্তার মধ্যে দেখলাম মিলও আছে। তবে কোনো কিছু বদলানোর আগে আমি একটু দেখতে চাই।

সাকিব আল হাসানের কাছে যা প্রত্যাশা...

ও তো শীর্ষ অলরাউন্ডার। কাজেই ওর কাছে প্রত্যাশা সব সময় বেশিই থাকবে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার হলো ওর নিজের কাছে নিজের প্রত্যাশাও কম থাকবে না। সে যে মানদণ্ড নির্ধারণ করে দিয়েছে, সেটিও বেশ উঁচুতেই। সব ফরম্যাটেই অসাধারণ পারফরম্যান্স ওর। আমার প্রত্যাশা থাকবে সাকিব যেন সেটি ধরে রাখে।

আফগানদের অদম্য মানসিকতা নিয়ে...

এটি চ্যালেঞ্জ তো বটেই। ওরা যদি ইংল্যান্ড কিংবা অস্ট্রেলিয়ায় খেলত, তাহলে ওদের জন্য ব্যাপারটা কঠিন হতো নিঃসন্দেহে। (তবে খেলা যেহেতু উপমহাদেশেই) এখানে ওরা চেষ্টা করে দেখার ক্ষেত্রে বেশি আত্মবিশ্বাসী থাকবে। স্পিন দিয়ে আগামী কয়েক দিনে ওরা আমাদের চমকেও দিতে চাইবে।

আফগানিস্তান দলকে বিশ্লেষণ করতে গিয়ে...

ওদের কয়েকজন ম্যাচ উইনার আছে। যেমন নবী। রশিদ তো দুর্দান্ত বোলার। আমাদের নিশ্চিত করতে হবে যে আমরা যেন ওদের সমীহ করে খেলি। একই সঙ্গে ওদের বিপক্ষে রানও তো করতে হবে। ওদের বিপক্ষে রান করা গুরুত্বপূর্ণও। এতে আফগান পেসারদেরও চাপে ফেলা যাবে। তবে এটিও আমরা জানি যে বিশেষ করে এই কন্ডিশনে আমাদের জন্য বেশ বড় চ্যালেঞ্জই অপেক্ষা করে আছে। দুই সপ্তাহ ধরে সেই চ্যালেঞ্জ সামলানোর প্রস্তুতিই আমরা নিয়েছি। আর আফগানিস্তান দলে যেহেতু কিছু ম্যাচ উইনারও আছে, তাই আমাদের বেশ কঠিন ক্রিকেটই খেলতে হবে।

এই কন্ডিশনে আফগান স্পিন আক্রমণকে যতটা হুমকি মনে করছেন...

বড় হুমকি তো অবশ্যই। সীমিত ওভারের ক্রিকেটে আমরা দেখেছি যে ওরা কতটা ভয়ংকর হয়ে উঠতে জানে। এটি যদিও ভিন্ন ফরম্যাট, তবু আগামী কয়েক দিনে ওরা আমাদের জন্য হুমকিই হয়ে উঠতে চাইবে।

আফগান চায়নাম্যান বোলার জহির খানকে নিয়ে...

হ্যাঁ, ওর কিছু ফুটেজ আমি দেখেছি। আমাদের কয়েকজন বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে ওর সঙ্গে খেলেছেও। তবে দিনের শেষে প্রস্তুতি ম্যাচ তো প্রস্তুতি ম্যাচই (দুই দিনের ম্যাচে বিসিবি একাদশের বিপক্ষে ২৪ রানে ৫ উইকেট নিয়েছিলেন)। টেস্ট ম্যাচের সঙ্গে প্রস্তুতি ম্যাচের তুলনা চলতেই পারে না। দুটো দুই জিনিস। ওর জন্য শুভ কামনা থাকল। তবে ওর জন্য আমরা প্রস্তুত। ছেলেরা ওর ফুটেজ দেখেছে। নিজেদের মধ্যে ভাবনার আদান-প্রদানও করছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা