kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ নভেম্বর ২০১৯। ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

অ্যাথলেটিকসেও বিদেশি কোচ!

৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ক্রীড়া প্রতিবেদক : অ্যাথলেটিকসে আসছে বিদেশি কোচ! বাংলাদেশের অ্যাথলেটিকস গত দুই দশকে হেঁটেছে দেশি কোচের সামর্থ্যের ওপর ভর করে। এই সামর্থ্যে যে অনেক সীমাবদ্ধতা, তা বুঝেই অ্যাথলেটিকস ফেডারেশন আনার চেষ্টা করছে গডউইন ওডিনুকাজে নামের এক দক্ষিণ আফ্রিকান কোচকে। প্রাথমিকভাবে এই স্প্রিন্ট ও হার্ডলস কোচের বায়োডাটা পছন্দ হয়েছে ফেডারেশন কর্তাদের, চূড়ান্ত হয়ে যেতে পারে আগামী দু-এক দিনের মধ্যেই।

বাংলাদেশে বিদেশি অ্যাথলেটিকস কোচ নতুন নয়। ১৯৯৮ সালে একজন চীনা কোচ আনা হয়েছিল এক বছরের জন্য। এরপর আর কোনো বিদেশি কোচ দেখা যায়নি এখানে। দুই দশক বাদে অ্যাথলেটিকসের নতুন কমিটি বিদেশি কোচ আনার উদ্যোগ নিয়েছে আসন্ন এসএ গেমস সামনে রেখে। ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রকিব মন্টু গতকাল এই খবর জানিয়ে বলেছেন, ‘গত সপ্তাহ থেকে গোডউইনের সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ চলছে, তাঁকে আমরা আনুষ্ঠানিকভাবে প্রস্তাবও দিয়েছি বাংলাদেশের কোচ হওয়র জন্য। সমস্যা হলো, তিনি চাইছেন অন্তত ছয় মাসের চুক্তি করতে। আমরা চাই এসএ গেমস পর্যন্ত তাঁর সঙ্গে চুক্তি করতে।’ ৫১ বছর বয়সী এই দক্ষিণ আফ্রিকান সর্বশেষ কাজ করেছেন আরব আমিরাতের আল আইন স্পোর্টস ক্লাবে। সামনে অ্যাথলেটিকস বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপ, তাই বিশ্বের সেরা কোচরা এখন বিভিন্ন দেশে কিংবা একাডেমিতে ব্যস্ত। তাই এই মুহূর্তে নামিদামি কোচ পাওয়াও কঠিন, তবে তাঁদের আনতে গেলেও অনেক টাকা বেতন গুনতে হবে। গডউইন চাকরিহীন আছেন বলেই সুযোগ পেয়েছে বাংলাদেশ। এই স্প্রিন্ট কোচ শেষ পর্যন্ত রাজি হলে মাসে দিতে হবে তিন হাজার ডলার করে। ‘আজও (গতকাল) আমি তাঁকে ই-মেইল করেছি সিদ্ধান্ত জানানোর জন্য। আশা করছি দু-এক দিনের মধ্যে তিনি তাঁর সিদ্ধান্ত জানাবেন’—বলেছেন মন্টু। তাঁর কথা অনুযায়ী ফেডারেশনের তহবিল থেকে পুরো বেতন দিতে হবে না, বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন দেবে কোচের বেতনের একটা অংশ।

স্প্রিন্ট ও হার্ডলস কোচ আনার তোড়জোড় শুরু হলেও আগামী এসএ গেমসে বাংলাদেশের সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে হাই জাম্পে। সদ্য সমাপ্ত সামার মিটে মাহফুজুর রহমান ও উম্মে হাফসা রুমকি নতুন জাতীয় রেকর্ড করে নিজেদের ইভেন্টে। মাহফুজ লাফিয়েছেন ২.১৫ মিটার, যা গত এসএ গেমসের সোনাজয়ী থেকে মাত্র ০.০২ মিটার কম। আর রুমকিও প্রতি মিটে ছাড়িয়ে যাচ্ছেন নিজেকে। সুতরাং এই দুটি ইভেন্টে এসএ গেমসে সম্ভাবনা আছে। ফেডারেশন সম্পাদকও হাই জাম্পে দেখছেন সম্ভাবনা, ‘এসএ গেমসের রেকর্ডের সঙ্গে তাদের উচ্চতা হিসাব-নিকাশ করে আমরাও সম্ভাবনা দেখছি। এই দুজনের পর্যাপ্ত খাবার-দাবার এবং চিকিৎসা নিশ্চিত করার পাশাপাশি তাদের পারফরম্যান্সের উন্নতির কথাও আমরা চিন্তা-ভাবনা করছি। তাদের ভালো ট্রেনিং করানোর জন্য আমদের সাবেক তারকা অ্যাথলেট ও কোচ নজরুল ইসলাম রুমিকে নিয়োগ করা যায় কি না, সেটাও আলাপ করব আমরা।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা