kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ নভেম্বর ২০১৯। ২৭ কার্তিক ১৪২৬। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

বুমরাহর হ্যাটট্রিকে বিপাকে ক্যারিবীয়রা

২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বুমরাহর হ্যাটট্রিকে বিপাকে ক্যারিবীয়রা

জসপ্রিত বুমরাহ বল হাতে নিতেই ভেসে আসছিল স্লোগান, ‘বুম বুম বুমরাহ’। স্যাবাইনা পার্কে গতি আর সুইংয়ের মিশেলে ইতিহাসই গড়েছেন তিনি। প্রথম ভারতীয় পেসার হিসেবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে করলেন হ্যাটট্রিক। ৬ উইকেট নিয়ে কোণঠাসা করে ফেলেছেন ক্যারিবীয়দেরও। এর আগে হনুমা বিহারির সেঞ্চুরিতে ভারত প্রথম ইনিংসে করে ৪১৬ রান। জবাবে প্রথম ইনিংস ১১৭ রানে  গুঁড়িয়ে গেছে স্বাগতিকরা। এরপর দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে এ রিপোর্ট লেখার সময় ভারতের স্কোর ছিল ১৫.৫ ওভারে এক উইকেটে ২৪ রান। তখন তাদের লিট ছিল ৩২৩ রান।

বুমরাহ হ্যাটট্রিক করেন নবম ওভারে। দ্বিতীয় বলে ড্যারেন ব্রাভো ক্যাচ দেন লোকেশ রাহুলের হাতে। এরপর এলবিডাব্লিউ সামারাহ ব্রুকস। চতুর্থ বল রস্টন চেসের পায়ে লাগলেও আপিল করেননি বুমরাহ। হয়তো ভেবেছিলেন বল আগে লেগেছে ব্যাটে। এগিয়ে আসেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি। বুমরাহ নিশ্চিত না হলেও রিভিউ নেন তিনি। লাইনে পড়া বল লেগ স্টাম্পে লাগছিল দেখে এলবিডাব্লিউয়ের সিদ্ধান্ত দেন টিভি আম্পায়ার। তাতেই প্রথম ভারতীয় হিসেবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে হ্যাটট্রিকের কীর্তি বুমরাহর। হরভজন সিং ও ইরফান পাঠানের পর তৃতীয় ভারতীয় বোলার হিসেবে টেস্টে হ্যাটট্রিক করলেন তিনি। দিন শেষে বুমরাহর বোলিং ফিগার ছিল ৯.১-৩-১৬-৬! গতকাল আরো তিন ওভার বোলিং করে অবশ্য আর কোনো উইকেট পাননি এই পেসার।

ম্যালকম মার্শাল, অ্যান্ডি রবার্টসদের দেশে তাঁর প্রতিটি বলই মনে হচ্ছিল আগুনের গোলা। হ্যাটট্রিকের কৃতিত্বটা অবশ্য কোহলিকে দিলেন তিনি, ‘হ্যাটট্রিকের জন্য আমি কোহলির কাছে ঋণী হয়ে থাকব। আমি এলবির আবেদনই করিনি। এই দিনটা ভুলব না কখনো।’

টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামা ভারত প্রথম দিন শেষ করেছিল ৫ উইকেটে ২৪২ রানে। দ্বিতীয় দিন সপ্তম উইকেটে ১১২ রানের জুটি গড়েন হনুমা বিহারি ও ইশান্ত শর্মা। ৮০ বলে ৫৭ করা ইশান্তকে শিমরন হেটমায়ারের ক্যাচ বানিয়ে জুটিটা ভাঙেন ক্রেগ ব্রাথওয়েট। শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হওয়া হনুমা বিহারি পান ক্যারিয়ারের প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি। ২২৫ বলে ১৬ বাউন্ডারিতে তাঁর ১১১ রানের ইনিংসেই স্কোরটা ৪০০ ছাড়ায় ভারতের। নিজের সেঞ্চুরি তিনি উত্সর্গ করেছেন প্রয়াত বাবাকে, ‘আমার বয়স যখন ১২ বছর, বাবা পৃথিবী ছেড়ে যান তখন। ভারতের জার্সিতে সুযোগ পাওয়ার পরই ঠিক করি প্রথম সেঞ্চুরিটা হবে বাবার জন্য। এই দিনটি আমার জন্য আবেগের। আশা করছি বাবা যেখানেই থাক গর্ব করছেন আমার জন্য।’

ক্যারিবীয় বোলারদের মধ্যে অধিনায়ক জেসন হোল্ডার পাঁচটি আর বিশালদেহী রাহকিম কর্নওয়ালের শিকার ৩ উইকেট। ব্যাট হাতে সবচেয়ে বেশি ৩৪ রান শিমরন হেটমায়ারের। ক্রিকইনফো

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা