kalerkantho

শুক্রবার । ২৩ আগস্ট ২০১৯। ৮ ভাদ্র ১৪২৬। ২১ জিলহজ ১৪৪০

নতুন করে সব শুরুর লক্ষ্য মেয়েদের

সবচেয়ে হতাশাজনক পারফরম্যান্স ২০১৮-তে। এবার তাই বাছাই পর্ব খেলতে যাওয়ার আগেই লক্ষ্য স্থির হয়েছে যে আবার যেন ওরকম ব্যর্থতার পুনরাবৃত্তি না হয়। দলের হেড কোচ অঞ্জু জৈনও বললেন সে কথাই।

১৫ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নতুন করে সব শুরুর লক্ষ্য মেয়েদের

ক্রীড়া প্রতিবেদক : এ পর্যন্ত তিন-তিনবার টি-টোয়েন্টির বিশ্ব আসরে খেলা হয়েছে বাংলাদেশ নারী দলের। তবে এর মধ্যে সবচেয়ে হতাশাজনক পারফরম্যান্স ২০১৮-তে। কারণ ওই আসরে তারা খেলতে গিয়েছিল এশিয়া কাপ জিতে। যেখানে গ্রুপ পর্বের পর ফাইনালেও ভারতের নারীদের হারানোর ঘটনা প্রত্যাশা বাড়িয়ে দিয়েছিল বহুগুণ। কিন্তু প্রাপ্তি ছিল শূন্য। ওয়েস্ট ইন্ডিজে হওয়া বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্বের চার ম্যাচের সবগুলোতেই হেরে দেশে ফিরতে হয়েছিল। এবার তাই বাছাই পর্ব খেলতে যাওয়ার আগেই লক্ষ্য স্থির হয়েছে যে আবার যেন ওরকম ব্যর্থতার পুনরাবৃত্তি না হয়। দলের হেড কোচ অঞ্জু জৈনও বললেন সে কথাই।

বাছাই পর্ব হবে স্কটল্যান্ডে। তার আগে প্রস্তুতি নিতে সালমা খাতুনের নেতৃত্বাধীন দল দেশ ছাড়ছে একটু আগেভাগেই। আজ সকাল ১০টার ফ্লাইটে নেদারল্যান্ডস যাচ্ছে তারা। যেখানে চারটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার কথা রয়েছে তাদের। সেখান থেকে ২৭ আগস্ট যাবে স্কটল্যান্ডে। ৩১ আগস্ট থেকে ৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত হবে বাছাই পর্ব। প্রথম দিনেই পাপুয়া নিউগিনির মুখোমুখি হবে বাছাই পর্বের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। আট দলের টুর্নামেন্টের শীর্ষ দুই দল আগামী বছর অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠেয় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলবে।

বাছাই পর্বের বাধা উতরে যাতে মূল পর্বে গিয়ে আগেরবারের হতাশায় আবার বিলীন হতে না হয়, সে প্রস্তুতি এখন থেকেই শুরু করার কথা বললেন অঞ্জু। সেই সঙ্গে জানিয়ে দিলেন যে সব শেষ বিশ্বকাপের ব্যর্থতা জেদ বাড়িয়েছে তাঁর দলের মেয়েদেরও, ‘২০১৮-র বিশ্বকাপে আমরা যেভাবে খেলেছি, সেটি নিশ্চিতভাবেই ভীষণ হতাশার। যে ব্যাপারটি মেয়েদের মনেও খুব প্রভাব ফেলেছে। তাই ওরা এখন অন্য যেকোনো সময়ের তুলনায় বেশি পরিশ্রম করতে চায়। এই মৌসুমে আমরা করছি সেই কাজটিই।’ শুধু ভালো দল হওয়ার মধ্যেই নিজেদের সীমাবদ্ধ রাখতে চান না ভারতের সাবেক এই নারী ক্রিকেটার, ‘আমাদের জন্য ভালো দল হওয়াই যথেষ্ট নয়। গত মৌসুমে আমাদের লক্ষ্যই ছিল এটা যে আমরা যেন সব জায়গায় গিয়ে নিজেদের ছাপটা রেখে আসতে পারি।’ সেই ছাপ নতুন মৌসুমে আরো বেশি করে রাখতে চান তিনি, ‘যতক্ষণ না আমরা আরো বেশি ম্যাচ জিততে শুরু করছি, ততক্ষণ পর্যন্ত আমরা নিজেদের সফল বলতে পারব না। এই মৌসুমে আমাদের লক্ষ্যই হলো বাছাই পর্ব থেকে আরো বেশিসংখ্যক ম্যাচ জেতা। প্রথম লক্ষ্য বাছাই পর্বের বাধা পেরোনো। এরপর আমরা আবার নতুন করে শুরু করব।’

মন্তব্য