kalerkantho

মুখোমুখি প্রতিদিন

পরের কোচ যেন নতুন খেলোয়াড় তৈরি করেন

১০ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



পরের কোচ যেন নতুন খেলোয়াড় তৈরি করেন

জাতীয় ক্রিকেট দলের জন্য হন্যে হয়ে কোচ খুঁজছে বিসিবি। সেই কোচ যত দ্রুত নিয়োগ দেওয়া যায়, ততই ভালো বলে মত সারোয়ার ইমরানের। ২০০০ সালে অভিষেক টেস্টের কোচ অবশ্য মেনে নিচ্ছেন, এখনো দেশি কাউকে জাতীয় দলের কোচ করার মতো অবস্থায় যায়নি বাংলাদেশ

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : জাতীয় দলের কোচ নিয়োগের জন্য চেষ্টা করছে বিসিবি। সেটা কি আরেকটু সময় নিয়ে করা উচিত?

সারোয়ার ইমরান : আমি মনে করি, যত দ্রুত কোচ পাওয়া যায় ততই ভালো। বাংলাদেশের মতো দলের কোচ ছাড়া দীর্ঘ সময় থাকাটা ঠিক না। আমরা যে খুব ভালো অবস্থানে নেই, সেটি বিশ্বকাপে বোঝা গেছে। শ্রীলঙ্কা সফরেও বোঝা গেছে। বাংলাদেশের জন্য নিবেদিত একজনকে তাই দ্রুত কোচ হিসেবে নিয়োগ দেওয়ার পক্ষে আমি।

প্রশ্ন : সে ক্ষেত্রে মাইক হেসন, রাসেল ডমিঙ্গো, গ্রান্ট ফ্লাওয়ারসহ বেশ কজনের নাম শোনা যাচ্ছে। এমনকি পুরনো কোচ চন্দিকা হাতুরাসিংহকে ফিরিয়ে আনার পরিকল্পনাও নাকি রয়েছে বোর্ডের...

ইমরান : হাতুরাসিংহকে ফেরানোটা ঠিক হবে না। এ ধরনের কোচ চটপট কিছু সাফল্য এনে দিতে পারেন হয়তো, তবে দীর্ঘ মেয়াদে দলের ক্ষতি করে দিয়ে যান। সে ক্ষতি তো এখন টের পাচ্ছে বাংলাদেশও। নতুন কোনো খেলোয়াড় তিনি তৈরি করতে পারেননি। দলের সিনিয়রদের সঙ্গে সম্পর্কও শুনেছি ভালো না। হাতুরাসিংহে এখনো কোচ থাকলে তো মাশরাফি, মুশফিক, রিয়াদ এমন অনেকেই হয়তো এত দিনে জাতীয় দল থেকে বাদ পড়ে যেত। ওকে ফেরানো তাই ঠিক হবে না বলেই মনে করি।

প্রশ্ন : বাংলাদেশের কাউকে কি জাতীয় দলের কোচ হিসেবে ভাবা যেতে পারে?

ইমরান : (হেসে) বাংলাদেশের কোচ হলে তো প্র্যাকটিসে বলের অভাব পড়ে যায়। আসলে সত্যি বলতে কী, আমাদের ক্রিকেট পরিবেশ এখনো জাতীয় দলে দেশি কোচের জন্য উপযোগী নয়। সবাই বড্ড অধৈর্য। তাই বিদেশি কোচই আসুক।

প্রশ্ন : নতুন কোচের অধীনে বাংলাদেশ দ্রুত ঘুরে দাঁড়াতে পারবে বলে আপনি আশাবাদী?

ইমরান : আশাবাদী, তবে সে জন্য আমাদের নতুন নতুন খেলোয়াড় তৈরি করতে হবে। গত দু-তিনজন কোচের কাছ থেকে আমরা সেটি পাইনি। যে কারণে সাকিব-তামিম-মুশফিকদের ওপর এখনো অতিমাত্রায় নির্ভর করতে হচ্ছে। পরের কোচ যদি নতুন খেলোয়াড় তৈরিতে মনোযোগ দেন, তাহলে আবার বাংলাদেশ ক্রিকেটে সুদিন আসবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা