kalerkantho

সোমবার । ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯। ১ পোষ ১৪২৬। ১৮ রবিউস সানি                         

সাও পাওলোতে ইতিহাস গড়তে চান আলভেস

৮ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাও পাওলোতে ইতিহাস গড়তে চান আলভেস

আন্তর্জাতিক আসরে, ব্রাজিলের সফলতম দলটির নাম সাও পাওলো এফসি। এক কোটি ৬০ লাখ নিবন্ধিত সমর্থক এই ক্লাবের, লাতিন আমেরিকার অন্যতম সফল এই ক্লাবের ভক্তকুল ছড়িয়ে আছে মহাদেশের বাইরেও। প্যারিস সেন্ত জার্মেই থেকে সাও পাওলোতে পাড়ি জমানোর মাধ্যমে দানি আলভেস দেড় যুগ পর ফিরলেন ব্রাজিলের কোনো ক্লাবে। ২০০২ সালে বাহিয়া থেকে সেভিয়ায় পাড়ি জমিয়েছিলেন এই রাইটব্যাক। এরপর বার্সেলোনা, জুভেন্টাস, পিএসজি হয়ে ফিরে আসা ব্রাজিলে। ইউরোপে লম্বা সময় কাটিয়ে দেওয়া আলভেসের দেশে ফেরার পেছনে একটা বড় উদ্দেশ্য হচ্ছে ২০২২ বিশ্বকাপ জেতা।

কিছুদিন আগেই ব্রাজিলে হয়ে যাওয়া কোপা আমেরিকায় মোস্ট ভ্যালুয়েবল প্লেয়ার হয়েছেন আলভেস, ছিলেন আসরের বাছাই করা সেরা দলেও। স্বপ্নের সীমানাটা এবার আরেকটু ছড়িয়ে আলভেস দেখছেন কাতারে বিশ্বকাপ জয়, ‘পথে যত বাধাই আসুক না কেন, একটা স্বপ্ন আমি দেখেই যাব। আমি চেষ্টা করব ব্রাজিলের হয়ে ২০২২ বিশ্বকাপ খেলতে।’ সেই স্বপ্ন পূরণেই সাও পাওলোতে আসা, ‘আমার একটু স্থিতিশীলতা দরকার ছিল। বলা যেতে পারে, আমার একটু স্থিতিশীলতা দরকার ছিল কারণ আমার সামনে একটা বড় লক্ষ্য ছিল। আমি জানি কাজটা কঠিন হবে। এ জন্যই ব্রাজিলে ফেরা। এই ক্লাবে মনে হয়েছে আমার একটা সম্ভাবনা আছে। তারা আমার পেশাদারি আর দক্ষতাকে ভরসা করে। প্রতিটি গল্পই তৈরি হয় ত্যাগ আর পরিশ্রমের অক্ষরে, অনেক অনেক বেশি আত্মনিবেদনের পরই আসে সাফল্য।’

দানি আলভেসকে মঙ্গলবার পরিচয় করে দেওয়া হয় সমর্থকদের সঙ্গে। তাঁর সঙ্গে ছবি তুলতে ঢল নেমেছিল সমর্থকদের। এসেছিলেন কাকাও। ব্যালন ডি’অর জয়ী সব শেষ ব্রাজিলিয়ান ফুটবলারের ক্যারিয়ারের শেষটাও হয়েছিল সাও পাওলোতেই। কাকা শেষ সময়ে সাও পাওলোতে ১৯ ম্যাচ খেলে ২ গোল করেছিলেন। আলভেস নিশ্চয়ই আরো ভালো করতে চাইবেন সাও পাওলোতে। নইলে ২০২২ পর্যন্ত হয়তো ক্লাবই তাঁকে রাখবে না অথবা জাতীয় দলের কোচও ডাকবেন না! গোল ডটকম

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা