kalerkantho

আরো শক্তিশালী হয়ে ফিরবে বসুন্ধরা কিংস

৫ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



আরো শক্তিশালী হয়ে ফিরবে বসুন্ধরা কিংস

কিংস সভাপতি ইমরুল হাসান আত্মবিশ্বাসী, আগামী মৌসুমে আরো ভালো মানের ফুটবলার উপহার দেওয়ার ব্যাপারে, ‘এএফসি কাপ মাথায় রেখেই দলের শক্তি বাড়াতে চাইছি আমরা। তাই যাদেরই নেব অবশ্যই তারা আরো ভালো মানের ফুটবলার হবে।’

ক্রীড়া প্রতিবেদক : ট্রফি হাতে নিয়ে খেলোয়াড়দের উল্লাস। কনফেত্তির বৃষ্টিতে ভিজে মৌসুমের সবচেয়ে মধুময় মুহূর্তটা উদ্‌যাপন। এখানেই শেষ নয়। বসুন্ধরা কিংসের পরশুর এই শিরোপা উদ্‌যাপন সংক্ষিপ্ত। শোকাবহ আগস্ট মাসের প্রতি পূর্ণ শ্রদ্ধা রেখে আতশবাজি, লেজার শো মুলতবি রাখা হয়েছে। সেপ্টেম্বরের পুরোটাই হতে পারে সেই উদ্‌যাপনের মাস। আয়োজনে যোগ হবে কনসার্ট, শোভাযাত্রা, খেলোয়াড়দের বিশেষ বোনাসও দেওয়া হবে সে সময়। সেপ্টেম্বরের শেষ দিকেই হবে ইউরোপ সফর।

প্রাথমিক পরিকল্পনায় ইউরোপ সফরের আয়োজনও ছিল ব্যাপক। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন দলবদল দিয়েও আবার তা স্থগিত করে দিল। নইলে কিংসের প্রাক-মৌসুম প্রস্তুতিই হতো স্পেনে। সেল্তা ভিগোর সঙ্গে খেলার আমন্ত্রণ ছিল অস্কার ব্রুজোনের দলের। এখন আর তা হচ্ছে না। লিগ শিরোপাজয়ীদের ইউরোপ সফরটা এখন স্রেফ বিনোদনের। কঠিন একটা মৌসুম কাটিয়ে তাঁদের সতেজ হয়ে ফেরার উপলক্ষ হবে সেটি। পরশু রাতে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে ট্রফি হাতে শিরোপা উদ্‌যাপনের পর কাল সেই ট্রফি নিয়েই পুরো দলের আনুষ্ঠানিক ফটোসেশন হয়েছে। আরেক দফা কনফেত্তি উড়েছে, আরেক দফা নেচেছেন কলিনড্রেস-মতিন-ইমনরা। কাল রাতেই কলিনড্রেস দেশে ফিরে গেছেন, আজ ক্লাব ছাড়বেন প্রায় সবাই। নতুন মৌসুম শুরুর আগে কিংস ম্যানেজমেন্টের ব্যস্ততা থাকবে অনূর্ধ্ব-১৮ টুর্নামেন্ট নিয়ে। ট্রায়ালের মাধ্যমে সবার আগেই দল গুছিয়ে রেখেছে তারা।

কিংসের এই পেশাদারিত্ব আসলে প্রতিটি ক্ষেত্রেই। এই মৌসুমেই যেমন এএফসি কাপের চিন্তা করে ড্যানিয়েল কলিনড্রেস ও অস্কার ব্রুজোনের সঙ্গে আরো এক বছরের চুক্তি বাড়িয়ে রেখেছে তারা। কলিনড্রেসের সঙ্গে অন্য যে দুই বিদেশি খেলেছেন; বখতিয়ার দুশোবেকভ ও মার্কোস ভিনিসিয়াস, বাংলাদেশের অন্য যেকোনো দল তাঁদের পেতে মুখিয়ে থাকবে। তবে চ্যাম্পিয়ন কিংস নতুন মৌসুমে উঠতে চায় আরো এক ধাপ উঁচুতে। কলিনড্রেসের মানেরই ফুটবলার খুঁজছে এখন তারা। দলবদল স্থগিত না হলে এরই মধ্যে হয়তো আরেকজন বিশ্বকাপারকেই দেখা যেত বাংলাদেশে। এখন নতুন করে আরো খেলোয়াড়ের সন্ধানে তারা। কিংস সভাপতি ইমরুল হাসান আত্মবিশ্বাসী, আগামী মৌসুমে আরো ভালো মানের ফুটবলার উপহার দেওয়ার ব্যাপারে, ‘এএফসি কাপ মাথায় রেখেই দলের শক্তি বাড়াতে চাইছি আমরা। তাই যাদেরই নেব অবশ্যই তারা আরো ভালো মানের ফুটবলার হবে।’ স্থানীয় খেলোয়াড় সংগ্রহের ক্ষেত্রে একই মনোভাব তাঁর, ‘জাতীয় দলে আছে বা জাতীয় দলে যেকোনো মুহূর্তে ঢুকতে পারে, এই ধরনের ফুটবলারদেরই মূলত রাখার চিন্তা আমাদের। ওই মানেরই নতুন আরো কয়েকজনকে নেব। ডিফেন্সে ভালো খেলোয়াড় যোগ করার ব্যাপারেও এবার আমরা যথেষ্ট মনোযোগী।’

গত মৌসুমে কিংসের পাশাপাশি আবাহনী, শেখ রাসেল ও সাইফ স্পোর্টিংই মূলত বড় বাজেটের দল গড়েছিল। এবার শেখ জামাল এবং চট্টগ্রাম আবাহনীও এই কাতারে নাম লেখাতে যাচ্ছে। তাতে খেলোয়াড়দের চাহিদা বাড়বে নিশ্চিত। তবে পারফরম্যান্স এবং পেশাদারিত্বের কারণে খেলোয়াড়দের কাছে এখন নিশ্চিতভাবেই বসুন্ধরা কিংসই এক নম্বর পছন্দ। নতুন মৌসুমের কিংস তাই সব দিক দিয়েই আরো বড় ও শক্তিশালী হয়ে মাঠে ফিরবে তাতে কোনো সন্দেহ নেই।

বসুন্ধরা কিংস এরই মধ্যে স্পোর্টস কমপ্লেক্সের কাজ হাতে নিয়েছে। আগামী জুন-জুলাইয়েই বসুন্ধরায় সেই মাল্টি স্পোর্টস কমপ্লেক্সের কার্যক্রম শুরু হয়ে যাওয়ার কথা। বসুন্ধরা কিংসের অনুশীলন, আবাসন হবে সেখানেই। তাতে পরবর্তী সময়ে পূর্ণাঙ্গ একটি একাডেমি গড়ে তোলার লক্ষ্যের কথাও জানিয়েছেন ইমরুল হাসান।

 

একনজরে

►             সেপ্টেম্বরজুড়ে চলবে বিজয় উদ্‌যাপন। থাকবে সংবর্ধনা,  শোভাযাত্রা, কনসার্ট।

►             সেপ্টেম্বরের শেষ সপ্তাহে ইউরোপে যাবেন ফুটবলাররা।

►             নতুন মৌসুমে কলিনড্রেস মানেরই আরো তিন বিদেশি ফুটবলারকে দলে নেওয়া হবে।

►             স্থানীয় ফুটবলার সবাই হবেন জাতীয় দলের বা প্রতিশ্রুতিশীল।

►             আগামী বছর হবে স্পোর্টস কমপ্লেক্স। এরপর পূর্ণাঙ্গ একাডেমি।

মন্তব্য