kalerkantho

বার্নসের শতরানে লিড দেখছে ইংল্যান্ড

৩ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বার্নসের শতরানে লিড দেখছে ইংল্যান্ড

প্রথম শতক

ক্যারিয়ারের প্রথম শতরানের দেখা পেয়েছেন রোরি বার্নস। কাল এজবাস্টনে দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষে বার্নস অপরাজিত ১২৫ রানে। খেলেছেন ২৮২ বল! বার্নসের সঙ্গে জো রুটের হাফসেঞ্চুরি আর বেন স্টোকসের অপরাজিত ৩৮ রানের ইনিংসে অ্যাশেজের প্রথম টেস্টেই লিড দেখছে ইংল্যান্ড। অস্ট্রেলিয়ার প্রথম ইনিংসে করা ২৮৪ রানের জবাবে দ্বিতীয় দিন শেষে ইংল্যান্ডের সংগ্রহ ৪ উইকেটে ২৬৭ রান। মাত্র ১৭ রানে পিছিয়ে আছে ইংল্যান্ড, হাতে ৬ উইকেট।

ফলো থ্রুতে দারুণ ক্যাচ ধরলেন পিটার সিডল। তাতেই ৫৭ রানে আউট হয়ে গেলেন জো রুট। শতাব্দীপ্রাচীন দ্বৈরথে কিছু ব্যক্তিগত লড়াইও থাকে। স্টিভেন স্মিথের সঙ্গে জো রুটের লড়াইটাও তেমনি, দুজনই নিজ নিজ দলের সেরা ব্যাটসম্যান। প্রথম দিনে বিপর্যয়ের মুখে দারুণ লড়াকু শতরান করে নিজের প্রত্যাবর্তনটা স্মরণীয় করে রেখেছেন স্মিথ। রুট যেভাবে ব্যাট করছিলেন, তাতে বিশ্বকাপ জয়ের পর অ্যাশেজে শতরান করা প্রথম ইংরেজ হিসেবে তাঁর নামটা রেকর্ড বইতে উঠেও যেতে পারত। সিডল ক্যাচ নিয়ে তাতে জল ঢেলে দিলেন! রোরি বার্নসের সঙ্গে দ্বিতীয় উইকেটে দুজনের ১৩২ রানের জুটিটাই ইংল্যান্ডকে দেখিয়েছে প্রথম ইনিংসে বড় লিডের স্বপ্ন।

অস্ট্রেলিয়াকে বাগে পেয়েও অল্পতে অল আউট করতে পারেনি ইংল্যান্ড, কৃতিত্বটা স্মিথের। শেষ দুই উইকেটে ১৬২ রান যোগ করেছে টিম পাইনের দল। আগের দিনে ২ ওভারে বিনা উইকেটে ১০ রান করার পর কাল দ্বিতীয় দিনে শুরুর আধাঘণ্টাতেই জেসন রয়কে হারায় ইংল্যান্ড। বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে এই রয়ের ইনিংসে বিদায় নিতে হয়েছিল অস্ট্রেলিয়াকে। লাল বলের জগত্টা যে আলাদা, সেটা বুঝতে পেরেছেন এ উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান। সেই সঙ্গে উঁকি দিয়ে গেল সেই প্রশ্নটাও। অ্যালিস্টার কুক-অ্যান্ড্রু স্ট্রাউস-পরবর্তী সময়ে ইংল্যান্ড দলে টেস্ট ওপেনারের জন্য যে হাহাকার, সেটা কি সহজে ঘুচবে? কিছুটা আশার আলোমাখা উত্তর আছে রোরি বার্নসের ব্যাটে। জেসন রয় ক্যাচ দিয়েছিলেন স্মিথের হাতে, জেমস প্যাটিনসনের বলে। রুট ফিরতি ক্যাচ দেন সিডলকে। দ্বিতীয় দিনের চা বিরতি পর্যন্ত ইংল্যান্ডের এই দুটিই উইকেট পতন। কিন্তু চা খেয়ে চাঙ্গা হয়ে এসে দ্রুত আরো দুটো উইকেট তুলে নেন অস্ট্রেলিয়ার পেসাররা। জো ডেনলিকে এলবিডাব্লিউর ফাঁদে ফেলেন প্যাটিনসন আর প্যাট কামিনস মাত্র ৫ রানেই ফিরিয়ে দেন জশ বাটলারকে। এই জোড়া আঘাতে খানিকটা ব্যাকফুটে ইংল্যান্ড। কিন্তু তারপর বার্নস আর বিশ্বকাপ ফাইনালের নায়ক স্টোকস মিলে আর কোনো বিপদ হতে দেননি।

টেস্ট ক্যারিয়ারের প্রথম শতকটা করতে অনেক সময় নিলেও শেষ পর্যন্ত তিন অঙ্ক ছুঁয়েই ছেড়েছেন বার্নস। নব্বইয়ের ঘরে আটকে ছিলেন প্রায় আধঘণ্টা! ২২৪ বলে করেছেন ১০০ রান, তাতে ১৪ বাউন্ডারি। দিন শেষে ২৮২ বল খেলে ১২৫ রানে অপরাজিত বার্নস। ক্রিকইনফো

মন্তব্য