kalerkantho

শুক্রবার  । ১৮ অক্টোবর ২০১৯। ২ কাতির্ক ১৪২৬। ১৮ সফর ১৪৪১              

মুখোমুখি প্রতিদিন

কোচ হিসেবেও সেই পুরনো চ্যালেঞ্জ

দীর্ঘদিন জাতীয় মহিলা কাবাডি দলের অধিনায়কত্ব করেছেন শাহনাজ পারভীন। তাঁর নেতৃত্বেই এসএ গেমস, এশিয়ান গেমসে পদক জিতেছে বাংলাদেশ। এবারের এসএ গেমসে সেই শাহনাজ কোচের ভূমিকায়। কালের কণ্ঠ স্পোর্টসের মুখোমুখি হয়ে কথা বলেছেন তিনি সে প্রসঙ্গেই

২ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কোচ হিসেবেও সেই পুরনো চ্যালেঞ্জ

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : এসএ গেমসের ক্যাম্পে এবার নতুন ভূমিকায় আপনি, কেমন লাগছে?

শাহনাজ পারভীন : ভালো লাগছে। যদিও এটা একেবারে নতুন অভিজ্ঞতা আমার জন্য। তবে মেয়েরা খুব সাহায্য করছে। তারা আমার কথা শুনছে, যেভাবে যা দেখিয়ে দিচ্ছি করছে। ওদের ভালো করার আগ্রহ দেখেই কাজ করে আনন্দ পাচ্ছি।

প্রশ্ন : ভারতীয় কোচের সহকারী হিসেবে আপনি কাজ করছেন, উনি কতটা সাহায্য করছেন?

শাহনাজ : উনার আগ্রহে আমি কিন্তু দেখিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি মেয়েদের সঙ্গে খেলছিও। ফেডারেশন আমাকে সহকারী কোচেরই দায়িত্ব দিয়েছে। তবে কোচ চাইছেন আমি যেন খেলোয়াড় কাম কোচের ভূমিকায় থাকি। উনি মনে করছেন এখনো আমাকে দিয়ে ভালো পারফরম্যান্স সম্ভব। জানি না শেষ পর্যন্ত আমি মাঠে নামব কি না, তবে এখন কোচিংটাতেই গুরুত্ব দিচ্ছি বেশি।

প্রশ্ন : ভারতীয় কোচ তো পুরুষ দলের দায়িত্বেও আছেন, দুটি দল উনি কিভাবে সামলাচ্ছেন?

শাহনাজ : সপ্তাহে দুই-তিন দিন এসে উনি আমাদের দেখিয়ে দিয়ে যান। আমরা উনার গাইডলাইন অনুযায়ীই কাজ করি। কোচিং এর আগে করিনি ঠিক। কিন্তু কোচদের সঙ্গে কাজ করার অভিজ্ঞতা তো কম নয় আমার। আব্দুল জলিল স্যার প্রথম কোচ ছিলেন, এরপর আব্দুল হাকিম স্যার, সুবিমল স্যারদের দেখে শিখেছি। আর শুনছি ঈদের পর মূল কোচ হিসেবে ভারত থেকে একজন মহিলা কোচও আসবেন।

প্রশ্ন : গত এশিয়ান গেমস থেকে পদকহীন হয়ে ফিরেছে মেয়েদের দল, এসএ গেমসে সেখান থেকে ঘুরে দাঁড়ানোর ব্যাপারে কতটা আত্মবিশ্বাসী?

শাহনাজ : গত এসএ গেমসে আমরা রুপা জিতেছিলাম। সেই দলের অনেকেই এখন নেই বিভিন্ন কারণে। যে কয়েকজন আছে তাঁদের সঙ্গে একেবারে নতুনরা মিলে এটা একটা নতুন দলই বলা যায়। ডিসেম্বরে গেমসের আগ পর্যন্ত এই দলটাকে ফাইনালে খেলার মতো যোগ্য করে তুলতে সব চেষ্টাই আমরা করব। কোচ হিসেবেও আবার সেই পুরনো চ্যালেঞ্জ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা