kalerkantho

এই পারফরম্যান্স করলেই ইংল্যান্ডের শিরোপা দেখছেন সাবেকরা

১৩ জুলাই, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



যে দলটি ২৭ বছর পর বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে খেলল, যে দলটি গত দুটি বিশ্বকাপে অঘটনের শিকার, এমনকি এবারের আসরেও হেরেছে আলুথালু শ্রীলঙ্কার কাছে, তারাই কিনা রবিবার কাপ জেতার ফেভারিট! লর্ডসের ফাইনালে এউইন মরগানের হাতে কাপ দেখছেন ইংল্যান্ডের সাবেক দুই অধিনায়ক নাসের হুসেইন ও অ্যান্ড্রু স্ট্রাউস। তাঁদের একটাই কথা, যেভাবে অস্ট্রেলিয়াকে উড়িয়ে দিয়ে সেমিফাইনাল জিতল ইংল্যান্ড; রবিবারের ফাইনালে সে রকমটা খেলতে পারলে ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপ জেতাটা ঠেকিয়ে রাখা যাবে না।

২০১৫ বিশ্বকাপে বাংলাদেশের কাছে হারের পর সংবাদ সম্মেলনে গিয়েছেন মরগান। সেখানে তাঁকে এখনই অধিনায়কের পদ থেকে সরে দাঁড়াবেন কি না, এই হারটা ইংল্যান্ডের ইতিহাসের সবচেয়ে লজ্জার হার কি না; এমন সব প্রশ্ন করা হয়েছে। চার বছর পর সেই মরগানের হাত ধরেই হয়তো আসতে যাচ্ছে ইংল্যান্ডের ক্রিকেটে সবচেয়ে গৌরবময় মুহূর্ত। এই পরিবর্তনের অন্যতম রূপকার ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক অ্যান্ড্রু স্ট্রাউস, যাঁকে সে সময় নতুন পদ সৃজন করে ইসিবিতে নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল। তাঁর পরামর্শেই ট্রেভর বেইলিসকে কোচ হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়, গুরুত্ব দেওয়া হয় সাদা বলের ক্রিকেটে। তাতেই ইংল্যান্ডের এই সাফল্য! পরে অবশ্য স্ত্রীর অসুস্থতা ও মৃত্যুর কারণে সরে গেছেন স্টাউস, বদলে দেওয়ার কারিগর সেমিফাইনালের পর স্কাই স্পোর্টসকে জানান, ‘এটাই (সেমিফাইনাল) বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের সেরা পারফরম্যান্স। তারা অস্ট্রেলিয়াকে রীতিমতো উড়িয়ে দিয়েছে। ওকস আর আর্চার শুরুর ছন্দটা ঠিক করে দিয়েছে আর ব্যাট হাতে রয় তো অবিশ্বাস্য। দেখে তো আমি খানিকটা আবেগপ্রবণই হয়ে যাচ্ছিলাম। আমি শুধু চাই এই খেলাটাই তারা রবিবারে আবার খেলুক।’

ডেইলি মেইলে নিজের লেখা কলামেও একই ভাবনার প্রকাশ নাসের হুসেইনের। ১৯৯৯ বিশ্বকাপে, অর্থাৎ ইংল্যান্ডের মাঠে সব শেষ বিশ্বকাপে নাসের ছিলেন দলে। স্বাগতিক হয়েও সুপার সিক্সে উঠতে ব্যর্থ হয়েছিল ইংল্যান্ড, আর এবার একেবারে ফাইনালে! নাসের লিখেছেন, ‘এ রকম (সেমিফাইনাল) একটি ম্যাচ হচ্ছে, চাপের মুখে খেলোয়াড়রা কেমন করে তার পরীক্ষা আর সেখানে আর্চার ও রয় অবিশ্বাস্য রকম ভালো করেছে।  তাদের এখন অন্য কিছু নিয়ে ভাবতে হবে না, কারণ ওরা যেদিন নিজেদের সেরা খেলাটা খেলবে সেদির কেউ তাদের স্পর্শ করতে পারবে না। ওরা যদি রবিবারে এমন পারফরম্যান্স করে, কাপ ওরাই জিতবে।’ মেইল, এএফ

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা