kalerkantho

সোমবার । ২২ জুলাই ২০১৯। ৭ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৮ জিলকদ ১৪৪০

হিসাবের পিছু ধাওয়া বাংলাদেশেরও

১৮ জুন, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



হিসাবের পিছু ধাওয়া বাংলাদেশেরও

ক্রীড়া প্রতিবেদক : অনিশ্চয়তার খেলায় নিশ্চিত বলে কিছুই নেই। তবু এবারের বিশ্বকাপ ক্রিকেট এখন পর্যন্ত টুর্নামেন্টপূর্ব অনুমানই সত্যি করে চলেছে। আসর শুরুর আগে যে চারটি দলের সেমিফাইনাল খেলার সম্ভাবনার কথা উচ্চারিত হয়েছিল সবচেয়ে বেশি, তারাই এখন পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে। তবে সেমিফাইনালের অঙ্ক মেলাতে হিসাবের পিছু ধাওয়া করতে শুরু করেছে বাংলাদেশও। টন্টনে কাল ওয়েস্ট ইন্ডিজের ৩২১ রানও নিতান্ত সহজসাধ্য বানিয়ে জেতা মাশরাফি বিন মর্তুজারা শীর্ষ চার দলের ঠিক পেছনেই গিয়ে দাঁড়িয়েছেন। সাকিব আল হাসান ও লিটন কুমার দাশের ব্যাটে ৫১ বল বাকি থাকতেই পাওয়া ৭ উইকেটের জয়ে টাইগাররা এখন পয়েন্ট টেবিলের পাঁচ নম্বরে। ৫ ম্যাচে ৫ পয়েন্ট তাদের।

সেমিফাইনাল দৌড়ে নিজেদের রাখতে ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে জয়ের বিকল্প ছিল না। ‘জীবন-মরণ’ ম্যাচে প্রতিপক্ষের ওপর নিরঙ্কুশ আধিপত্য বিস্তার করে জেতা বাংলাদেশের জন্য অঙ্কটি আরো কঠিন হয়ে গিয়েছিল শ্রীলঙ্কা ম্যাচ বৃষ্টিতে ভেসে যাওয়ায়। তবে আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে নেওয়া এই জয়ে বাংলাদেশ আবার শেষ চারের লড়াইয়ে ফিরল। অস্ট্রেলিয়া ম্যাচের আগে ক্যারিবীয়দের উড়িয়ে দেওয়া জয় বাংলাদেশকে সেমিফাইনালের অঙ্ক মেলানোর ক্ষেত্রে নিশ্চিতভাবেই অনুপ্রেরণাও জোগাবে।

মাশরাফিদের পরের ম্যাচের প্রতিপক্ষ ৫ ম্যাচের ৪টিতেই জেতা বর্তমান চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া ৮ পয়েন্ট নিয়ে আছে শীর্ষে। এর পরেই নিউজিল্যান্ড আর ভারত। ৪টি করে ম্যাচ খেলা এই দুই দলের নিজেদের মধ্যে লড়াই ভেসে গেছে বৃষ্টিতে। এখন পর্যন্ত অপরাজিত দল দুটি ৭ পয়েন্ট নিয়ে আছে দুই ও তিন নম্বরে। ৪ ম্যাচের একটিতে হারা ইংল্যান্ড ৬ পয়েন্ট নিয়ে সেমিফাইনালে যাওয়ার দৌড়ে চতুর্থ স্থানে।

সম্ভাব্য সেমিফাইনালিস্ট হিসেবে চিহ্নিত হওয়া দল চারটির যেকোনো ত্রুটি-বিচ্যুতিও এর মধ্যে ধরা পড়েনি, তা নয়। তবে ইতিবাচক পারফরম্যান্সেও তারা কম আলো ছড়ায়নি। যেমন ধরা যাক অস্ট্রেলিয়ার কথাই। রবিবার ওভালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জয়ে দলকে ১৫৩ রানের ইনিংস খেলে সামনে থেকেই নেতৃত্ব দিয়েছেন অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ। পাকিস্তানের বিপক্ষে সেঞ্চুরি করেছেন তাদের ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নারও। বল হাতে আগুন ঝরাচ্ছেন ফাস্ট বোলার মিচেল স্টার্কও। যদিও তাঁর ওপর অতিমাত্রার নির্ভরশীলতা অস্ট্রেলিয়ান বোলিংয়ের নেতিবাচক দিক। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টপ অর্ডারের ব্যর্থতার পরও ঘুরে দাঁড়ানো অস্ট্রেলিয়াকে পরে জয়ের মুখ দেখায় স্টার্কের বোলিংই। ৪৬ রানে সেদিন ৫ উইকেট নিয়েছিলেন এই বাঁহাতি। আবার স্টার্কের ব্যর্থতাই তাঁর ওপর অস্ট্রেলিয়ার বাড়তি নির্ভরতার স্পষ্ট দলিল হয়ে আছে। ৭৪ রান খরচায় ১ উইকেট নিয়ে যেদিন বিবর্ণ ছিলেন তিনি, সেদিনই ৩৬ রানের জয়ে ভারত তাদের প্রতিপক্ষের বোলিংয়ের ঘাটতিও প্রকাশ্য করে দিয়েছে। স্টার্কের সফল না হওয়ার ঘাটতি পুষিয়ে দেওয়ার মতো কেউ যে এখনো নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি।

চার বছর আগে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ ফাইনালে গিয়ে সহ-আয়োজক অস্ট্রেলিয়ার কাছে হারা নিউজিল্যান্ড এবার দারুণ ছন্দে এগোচ্ছে কেন উইলিয়ামসনের নেতৃত্বে। ভারতের সঙ্গে বৃষ্টিতে পয়েন্ট ভাগাভাগি করতে হলেও অন্য তিন ম্যাচেই তারা জিতেছে। অবশ্য এখানেও কথা আছে। কারণ যে তিনটি দলকে তারা হারিয়েছে, তাদের বিপক্ষে কিউইদের জয় প্রত্যাশিতই ছিল। আর ভারত ম্যাচ ভেসে যাওয়ায় তাদের সত্যিকারের পরীক্ষাটাও এখন পর্যন্ত হয়নি। সেই পরীক্ষা যে তাদের নড়বড়েও করে দিতে পারে, বাংলাদেশ দেখিয়েছে সেটিও। ওভালে শেষের দিকে ঝটপট কিছু উইকেট হারিয়ে কিউইরা মাশরাফি বিন মর্তুজাদের কাছে এক রকম হারতেই বসেছিল। সেই ভঙ্গুরতা তাদের মুখোমুখি হওয়ার অপেক্ষায় থাকা র‍্যাংকিংয়ের ওপরের দিকের দলগুলোকে উৎসাহীও করে তুলতে পারে।

তুলনায় ভারতকেই বরং বেশি জমাট দেখিয়েছে। রবিবার ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে পাকিস্তানের বিপক্ষে ১৪০ রানের ইনিংস খেলা রোহিত শর্মা তিন ইনিংসেই করেছেন দুই সেঞ্চুরি। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সেঞ্চুরি করা অন্য ওপেনার শিখর ধাওয়ান হাতের বৃদ্ধাঙ্গুলের চোটে মাঠের বাইরে। তাঁর অনুপস্থিতিতেও লোকেশ রাহুলকে নিয়ে ঠিকই ওপেনিংয়ে শতরান পেরোনো পার্টনারশিপও গড়েছেন রোহিত। ওদিকে জসপ্রিত বুমরাহ তাঁর নিজস্ব ঢঙেই নেতৃত্ব দিচ্ছেন ভারতের বোলিং আক্রমণকে। একই সঙ্গে দুই স্পিনার যুযবেন্দ্র চাহাল ও কুলদীপ যাদব মিলেও গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে চলেছেন। পাকিস্তান ম্যাচে আরেক পেসার ভুবনেশ্বর কুমার হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটে পড়লেও ভারতের বোলিং শক্তির গভীরতা যথেষ্টই।

২০১৫ বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্ব থেকে বিব্রতকর বিদায়ের পরই বদলে যেতে শুরু করেছিল ইংল্যান্ড। এমনই বদলেছে যে ওয়ানডে র‍্যাংকিংয়ের এক নম্বর দল হয়েই এই বিশ্বকাপে এসেছে। তবে ২০১৭-র চ্যাম্পিয়নস ট্রফির সেমিফাইনালের পর এবারও তারা পাকিস্তানের কাছে হারল। তাও আবার হেরেছে জো রুট ও জস বাটলারের সেঞ্চুরির পরও। রুটের দ্বিতীয় সেঞ্চুরিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে আবার জয়ে ফেরা স্বাগতিকদের জন্য এখন সামনে এগিয়ে যাওয়ার পথে মাথাব্যথার কারণ ওপেনার জেসন রয় ও অধিনায়ক এউইন মরগানের চোট।

অবশ্য অনুমানে এগিয়ে থাকা দলগুলোর সঙ্গে সেমিফাইনালের হিসাব মেলানোর পথে পা বাড়াতে শুরু করেছে বাংলাদেশও!

মন্তব্য