kalerkantho

মঙ্গলবার। ১৬ জুলাই ২০১৯। ১ শ্রাবণ ১৪২৬। ১২ জিলকদ ১৪৪০

প্রিভিউ

ঘুরে দাঁড়ানোর লড়াই

৪ জুন, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ঘুরে দাঁড়ানোর লড়াই

প্রথম ম্যাচেই শ্রীলঙ্কা যেন খাদে পড়ে গেছে। ১৩৬ রান করে ১০ উইকেটে হারের পর আশার আর কিছু থাকে না। আজ আফগানিস্তানের বিপক্ষে তাই নতুন করে শুরু করতে হবে দলটিকে। আফগানরা প্রথম ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার কাছে আত্মসমর্পণ করলেও তাদের সম্ভাবনা এখনো উবে যায়নি। বিপাকে পড়া লঙ্কানদেরই তো শিকার বানানোর সুযোগ তাদের সামনে।

নিউজিল্যান্ডের কাছে ব্যাটিং, বোলিং, ফিল্ডিং কোনো ভূমিকাতেই পাত্তা পায়নি লঙ্কানরা। ওপেনার দিমুথ করুনারত্নে ৫২ রান করে ইনিংস শেষ করে এসেছেন, বাকিদের কেউই তাঁকে সঙ্গ দিতে পারেননি। ১৩৬ রানের পুঁজি নিয়ে বোলারদেরও কিছু করার ছিল না তেমন। তবে যে কয়েক ওভার তাঁরা পেয়েছেন তাতেও কার্যকর দেখা যায়নি কাউকে। বোলিংয়ে আফগানিস্তান বরং লঙ্কানদের ভঙ্গুর লাইন আপে ধস নামাতে চেষ্টা করবে নিশ্চিত। নিউজিল্যান্ড ম্যাচের আগে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ওয়ার্ম আপেও তো পুরো ৫০ ওভার ব্যাট করতে পারেনি শ্রীলঙ্কা। ব্যাটিংটা তাই বাড়তি চ্যালেঞ্জই তাদের জন্য। ইনিংসের শুরুতে আফগান ব্যাটসম্যানদেরও বেশ নড়বড়ে দেখা গেছে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে। দুই ওপেনার তো রানের খাতা খোলার আগেই ফিরে গেছেন। লঙ্কান পেসাররা কি পারবেন এই সুযোগটা কাজে লাগিয়ে নতুন করে আত্মবিশ্বাস পুঁজি করতে?

এই ম্যাচে ঘুরে দাঁড়ানোর আশায় আসলে দুই দলই। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে নিচের দিকের ব্যাটসম্যানরা ভালো করেছিলেন বলেই ৭৭/৫ থেকে দুই শ পেরিয়েছিল আফগানিস্তানের স্কোর। তবে গুলবাদিন নাইব নিশ্চিতভাবেই জানেন ম্যাচ জিততে হলে বড় রান আসতে হবে টপ অর্ডার থেকেও। দলে মোহাম্মদ নবীর মতো অভিজ্ঞ ক্রিকেটার আছেন। ওয়ানডে অলরাউন্ডার র‍্যাংকিংয়ে এই মুহূর্তে ৩ নম্বরে আছেন এই আফগান। মিডল অর্ডারে ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি অফ ব্রেকে লঙ্কান বাঁহাতি ব্যাটসম্যানদের জন্য বড় হুমকি হয়ে উঠতে পারেন তিনি। বোলিং নিয়ে অবশ্য ভাবনা কমই নাইবের। হামিদ হাসান অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যানদেরও অস্বস্তিতে রেখেছিলেন। কার্ডিফে আজ মেঘলা আবহাওয়ায় আবারও তাঁর ঝলসে ওঠার কথা। আবহাওয়ার পূর্বাভাসে অবশ্য আজ বৃষ্টির কথাও বলা আছে। সে ক্ষেত্রে ম্যাচ সংক্ষিপ্তও হতে পারে।

ম্যাচ জিততে অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজের মতো অভিজ্ঞদের দিকে তাকিয়ে থাকবে শ্রীলঙ্কাও। এই অলরাউন্ডারের কাছে নিশ্চিতভাবেই আরো দায়িত্বশীল পারফরম্যান্সের প্রত্যাশা এ ম্যাচে। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তিনি শূন্য রানে আউট হয়েছেন, বল হাতে নেওয়ার সুযোগই পাননি। কার্ডিফেই দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ওয়ার্ম আপ ম্যাচেই অবশ্য হাফসেঞ্চুরি পেয়েছিলেন। আইসিসি, ক্রিকইনফো

মন্তব্য