kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৮ জুলাই ২০১৯। ৩ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৪ জিলকদ ১৪৪০

লিগ জিতে শেষ রবেন-রিবেরির

১৯ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



লিগ জিতে শেষ রবেন-রিবেরির

শেষ ম্যাচে বায়ার্ন মিউনিখের ড্র হলেই চলত। বরুশিয়া ডর্টমুন্ড পিছিয়ে ২ পয়েন্টে। বায়ার্নের হারের পাশাপাশি নিজেদের ম্যাচেও জিততে হতো তাদের। কিন্তু বায়ার্ন হারলে তো। অ্যালিয়াঞ্জ এরেনায় এইনট্রাখট ফ্রাংকফুর্টকে ৫-১ গোলে হারিয়ে টানা সপ্তম শিরোপা জিতেছে তারা বুন্দেস লিগায়।

বাভারিয়ানদের জার্সিতেই ফ্রাংক রিবেরির যা নবম, অষ্টম আরিয়ান রবেনের। কাল উৎসবের মাঝেই জার্মান ক্লাবটির এই দুই কিংবদন্তিকে অশ্রুসজল বিদায় জানিয়েছেন ভক্ত-সমর্থকরা। রিবেরি, রবেনও শেষটা রাঙিয়েছেন গোল করে। শুরুর একাদশে অবশ্য ছিলেন না। চতুর্থ মিনিটেই কিংসলে কোম্যান এগিয়ে দেন স্বাগতিকদের। মিনিট দশেকের মধ্যেই আরো ২ গোলে এগিয়ে যেতে পারত তারা ফ্রাংকফুর্ট গোলরক্ষক দুর্দান্ত সেভ না করলে। ২৭ মিনিটে সের্গে গ্ন্যাব্রি জাল খুঁজে পেলেও ভিএআরে সেই গোল বাতিল হয় রবার্ত লেভানদোস্কির অফসাইডের কারণে। দ্বিতীয়ার্ধে কর্নার থেকে গোল করে ফ্রাংকফুর্ট চমকে দিয়েছিল স্বাগতিকদের। কিন্তু এর পরই আবার গোলের মালা পরতে হয়েছে তাদের। ডেভিড আলবা করেন ২-০। থমাস ম্যুলারের শট গোলরক্ষক ফিরিয়ে দিলে ফিরতি বল জালে পাঠিয়ে দিয়েছেন তিনি। পরের গোল রেনাতো সানচেসের। প্রথমার্ধেই মারিও গোরেত্জকার বদলি নেমে সুযোগটা কাজে লাগিয়েছেন এই পর্তুগিজ। দ্বিতীয়ার্ধেই মাঠে নামেন রিবেরি ও রবেন। বক্সের বাঁ প্রান্তে বল পেয়ে দুই ডিফেন্ডারকে ছিটকে ফেলে রিবেরি যেভাবে লক্ষ্য ভেদ করেছেন তা তাঁর সেরা সময়কেই মনে করিয়ে দিয়েছে। ৭৮ মিনিটে আলাবার পাসে ট্যাপ ইনে রবেন করেছেন ৫-১। মুনশেনগ্লাডবাখের মাঠে বরুশিয়া ডর্টমুন্ড ২-০ গোলে জিতেও তাই বায়ার্নের উৎসব থামাতে পারেনি। অথচ লিগের শুরুটা ছিল ডর্টমুন্ডের। একটা পর্যায়ে ৯ পয়েন্টেও এগিয়ে ছিল তারা। দ্বিতীয় ভাগে স্বরূপে ফেরে নিকো কোবাচের দল। ডর্টমুন্ডকেই মুখোমুখি লড়াইয়ে ৫-০তে বিধ্বস্ত করে এগিয়ে যায় টানা সপ্তম শিরোপার পথে। গোলডটকম

মন্তব্য