kalerkantho

সোমবার । ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯। ১ পোষ ১৪২৬। ১৮ রবিউস সানি                         

মুখোমুখি প্রতিদিন

আমার প্রমাণের কিছু নেই

১৬ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আমার প্রমাণের কিছু নেই

বড় মঞ্চে মামুনুল ইসলাম আবারও নিজেকে জানান দিয়েছেন। কাল এএফসি কাপে চেন্নাইয়ান এফসির বিপক্ষে অসাধারণ এক গোল করে জয় এনে দিয়েছেন আবাহনীকে। ম্যাচ শেষে নিজের সেই গোল ও জয় নিয়েই কথা বলেছেন তিনি সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে

 

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : ডান পায়ের অসাধারণ এক ভলিতে আবাহনীকে জয় এনে দিলেন, এই গোলটা নিয়ে বলুন।

মামুনুল ইসলাম : এ রকম গোল আমি অনেক করেছি, আপনারা জানেন। ডান পায়েই করেছি। আর ডান পা বাঁ পা নয়, দলের প্রয়োজনে এভাবেই নিজেকে দেখাতে চেয়েছি আমি। খেলোয়াড়ের সুসময়-দুঃসময় থাকে। দুঃসময়ে জানি সবাই ভুলে যায় কীর্তির কথা। তবে ক্লাব জাতীয় দলের হয়ে এমন গোল আমার জন্য নতুন নয়।

প্রশ্ন : গোলের পর জার্সির পেছনে নাম দেখিয়ে নিজেকে সেই জানান দেওয়ার বিষয়টিই কি বোঝান?

মামুনুল : আমার আসলে নিজেকে প্রমাণ করার কিছু নেই। এই মৌসুমে আবাহনীর জার্সিতে প্রথম গোল করে এসেও বলেছিলাম আমি এখনো নিজের খেলাটাই খেলতে চাইছি। ফিটনেসটাই শুধু ঘাটতি আমার, সেটা নিয়েই কাজ করছি। ১০০ ভাগ ফিট থাকলে আমি আমার সেরাটা এখনো দিতে পারি মাঠে।

প্রশ্ন : একাদশে নিয়মিত ছিলেন না, বেশ কিছু খেলোয়াড়ের ইনজুরির কারণেই সুযোগটা পেয়ে যান, কতটা চ্যালেঞ্জ ছিল এই ম্যাচ?

মামুনুল : তপু, ফাহাদের ইনজুরিটা আমাদের জন্য বড় ধাক্কা। দুজন লম্বা সময়ের জন্য খেলা থেকে ছিটকে। ওদের জন্য হলেও তাই আমাদের খেলতে হতো। কোয়ালিফাইয়ে টিকে থাকতে হলে আবাহনীর জন্যও এই ম্যাচটা ছিল ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ। আমরা শেষ পর্যন্ত ভালো একটা ম্যাচ উপহার দিয়েছি। আসলে আমাদের ফুটবল হারিয়ে যায়নি। এ রকম ভালো ম্যাচ হতে থাকলে আমাদের ফুটবল নিয়ে আবারও ইতিবাচক মনোভাব তৈরি হবে।

প্রশ্ন : শুরুতে গোল হজম করায় তো ম্যাচটি কঠিন হয়ে গিয়েছিল?

মামুনুল : হ্যাঁ, শুরুর গোল এবং পরে ওরা আরো একটা গোল পেয়ে গেলে ম্যাচটি আমাদের জন্য কঠিন হয়ে যায়। তবে আমরা আজ একটা প্রত্যয় নিয়ে নেমেছিলাম যে ঘরের মাঠে এই ম্যাচটি আমাদের জিততেই হবে। দল হিসেবে শতভাগ দিয়েই আমরা সেই জয়টা পেয়েছি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা