kalerkantho

বুধবার । ১৬ অক্টোবর ২০১৯। ১ কাতির্ক ১৪২৬। ১৬ সফর ১৪৪১       

মুখোমুখি প্রতিদিন

কেউ মানতেই চাইছিল না এটা একটা আন্তর্জাতিক খেলা

২৩ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কেউ মানতেই চাইছিল না এটা একটা আন্তর্জাতিক খেলা

বাংলাদেশ ব্রিজ ফেডারেশনের আমন্ত্রণে একটি কর্মশালায় অতিথি হয়ে এসেছিলেন এশিয়ান গেমসে ব্রিজে সোনাজয়ী শিবনাথ দে সরকার। ভারতে খেলাটির হালচাল আর বাংলাদেশের সম্ভাবনা জানতে তাঁর মুখোমুখি কালের কণ্ঠ স্পোর্টস—

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : ভারতের যেকোনো খেলায় সর্বোচ্চ পর্যায়ে বাঙালিদের আজকাল খুব একটা দেখা যায় না। সেখানে এশিয়ান গেমসে সোনাজয়ী জুটিটা দুই বাঙালির। এটা কী করে হলো?

শিবনাথ দে সরকার : আসলে বাঙালির ফোকাসটাই নড়ে গেছে! সর্বভারতীয় ব্রিজ ফেডারেশন গোটা দেশ থেকে ১০০টি জুটিকে বেছে নিয়েছিল। নক আউট গেমের এরপর বাছাই প্রক্রিয়া শেষে ছয়টি জুটিকে প্রাথমিকভাবে মনোনীত করে। তাদের উন্নত প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করে, সিউলে এশিয়া প্যাসিফিক রিজিয়নের টুর্নামেন্ট ও এশিয়ান গেমসের আগে এই খেলাটার ডেমোনেস্ট্রেশন ইভেন্টেও আমরা যাই এবং সোনা জিতি। সবশেষ এশিয়ান গেমসে তিনটি জুটিকে পাঠানো হয়েছিল, যাদের একটি ছিলাম আমরা। সেখানেও দীর্ঘ প্রক্রিয়ায় ৬৯টি গেম খেলে আমরা সোনা জিতলাম। বলা যায় ভারতীয় ব্রিজ দলে জায়গা পাওয়ার বাছাই পর্বেই আমাদের বড় একটা প্রস্তুতি হয়ে গিয়েছিল। তবে শেষ পর্যন্ত চূড়ান্ত পর্বে গিয়ে স্নায়ুর চাপটা ধরে রাখাটা বড় ব্যাপার।

প্রশ্ন : মহাভারতের যুধিষ্ঠিরের পাশা খেলে রাজ্য হারাবার গল্পের জের ধরে তো তাস খেলার প্রতি সামাজিক একটা নেতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি রয়েছে। সেটা কতটা বদলেছে?

শিবনাথ : সেটা অনেকখানিই বদলেছে। আগে তো কেউ মনেই করত না এটা একটা আন্তর্জাতিক খেলা! এখন অনেকেই ব্রিজ খেলে চাকরি পাচ্ছে। আর এশিয়াডে সোনা জেতার পর তো দৃষ্টিভঙ্গি অনেকখানি বদলেছে।

প্রশ্ন : দাবা ও ব্রিজ দুটিই তো মাইন্ড গেম, ভারতে এত এত জিএম বা আইএম; ব্রিজে অবস্থাটা কেমন?

শিবনাথ : দাবা একটা সময়ে খুব ফোকাস পেয়েছে, কারণ তখন বিশ্বব্যাপী দাবার একটা বড় চর্চা ছিল। রুশ দাবাড়ু বনাম মার্কিন দাবাড়ুদের নিয়ে গোটা বিশ্বেই একটা তোলপাড় ছিল। ব্রিজ খেলাটাও আস্তে আস্তে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। অনেক তরুণ খেলোয়াড় উঠে আসছে।

প্রশ্ন : বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের কেমন দেখলেন?

শিবনাথ : অনেক আগ্রহী তরুণদের দেখছি। প্রতিভাটা কাজে লাগাতে পারলে বাংলাদেশ অনেক দূর যাবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা