kalerkantho

বুধবার । ১৩ নভেম্বর ২০১৯। ২৮ কার্তিক ১৪২৬। ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

নতুন শুরুর প্রত্যাশায় জার্মানি

২০ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



রাশিয়া আক্রমণ করতে গিয়েই ভরাডুবি হয়েছিল হিটলারের। সেই রাশিয়াতেই ২০১৮ বিশ্বকাপে খেলতে এসে ১৯৩৮ সালের পর প্রথমবারের মতো গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নেওয়ার লজ্জায় ডুবেছিল জার্মানি। শুরু হচ্ছে ২০২০ সালের ইউরোর বাছাই পর্ব। শুরুতেই জার্মানি মুখোমুখি হচ্ছে নেদারল্যান্ডসের। ১৯৭৪ বিশ্বকাপের ফাইনালে স্মৃতি ফিরিয়ে আনা সেই ম্যাচের আগে অবশ্য সার্বিয়ার বিপক্ষে আজ প্রীতি ম্যাচে নামছে ডাই ম্যানশ্যাফটরা।

সাবেক জার্মান অধিনায়ক ও দলীয় ম্যানেজার অলিভার বিয়েরহফ জানিয়েছেন, অতীতের সেই দুঃস্বপ্ন মুছে ফেলে তারুণ্যনির্ভর নতুন একটা দলই গঠন করতে চান তারা, ‘তরুণ এবং রোমাঞ্চকর খেলোয়াড়দের নিয়ে নতুন একটা দল গড়ছি আমরা। বিশ্বকাপের পর যে পথটা আমরা বেছে নিয়েছি সেই পথেই চলতে চাই আর ভক্তদের সঙ্গে আরো বেশি বেশি যুক্ত থাকতে চাই।’ দলে তিন নতুন মুখকে ডেকেছেন কোচ ইওয়াখিম ল্যোভ, তাঁরা হচ্ছেন ম্যাক্সিমিলিয়ান এগেস্টেইন, লুকাস ক্লোস্টারমান ও নিকলাস স্টার্ক। তাদের নিয়ে বিয়েরহফের মন্তব্য, ‘কোচের তাদের ওপর আস্থা আছে, এখন তাদের সামর্থ্যের প্রমাণ দিতে হবে।’ বেয়ার লেভারকুসেনে খেলা জার্মান উইঙ্গার ইউলেন ব্র্যান্ডটও মনে করেন, নতুন প্রজন্মটা আলাদা, ‘নতুন এই প্রজন্মের ফুটবলাররা আমাদের চেয়ে আলাদা। আমরা অনেককে পেয়েছি, যারা ওয়ান-অন-ওয়ান এবং প্লে গ্রাউন্ড ফুটবল খেলতে পছন্দ করে। এতে আমাদের ভালোই হবে।’

ব্যর্থতার দায় নিয়ে কোচ হয় পদত্যাগ করেন অথবা বরখাস্ত হন, ল্যোভ কিন্তু টিকে গেছেন অমন ফলের পরও। জার্মান ফুটবল ম্যাগাজিন কিকার লিখেছে, ল্যোভের অবস্থা হয়েছে তাসের টেবিলে সর্বস্ব বাজি রাখা মানুষটির মতো। ল্যোভ বলছেন, বদলাতে হবে খেলার ধরন, ‘আমাদের আরো দ্রুত, উচ্চাভিলাষী ও চটপটে হতে হবে। আমরা বিশ্বকাপে সব হারিয়েছি, কারণ আমাদের খেলা আন্দাজ করা যেত।’

নতুনদের সঙ্গে লিওন গোরেত্স্কা ও ইয়োশুয়া কিমিচদের নিয়েই নতুন জার্মানি দলের স্বপ্ন দেখছেন ল্যোভ, ‘কিছু কিছু ফুটবলারকেই পরের ধাপে নিজেকে নিয়ে যেতে হবে। গোরেত্স্কা, কিমিচদের খেলা সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা, মতামত ও উচ্চাকাঙ্ক্ষাটা আছে।’ ল্যোভ বিশ্বকাপজয়ী দল থেকে রেখেছেন মাত্র দুজনকে, টোনি ক্রোস আর মানুয়েল নয়ারকে। ছেঁটে ফেলেছেন রক্ষণের দুই প্রহরী জেরোম বোয়েটেং ও ম্যাটস হুমেলসকে। নিকোলাস সুলেকে ডেকেছেন রক্ষণে, সঙ্গে লুকাস ক্লোস্টারমান। যদিও ল্যোভের পূর্বসূরি ইয়ুর্গেন ক্লিনসমান মনে করেন, হুমেলস, বোয়েটেং ও থোমাস ম্যুলার জাতীয় দলে ফেরার যোগ্যতা রাখেন। তবে আপাতত তাঁদের ছাড়াই নতুন শুরুর পথে জার্মানি। মার্কা

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা