kalerkantho

বুধবার । ১৬ অক্টোবর ২০১৯। ১ কাতির্ক ১৪২৬। ১৬ সফর ১৪৪১       

সবার ওপরে রাইনাস মিশেল

২০ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সবার ওপরে রাইনাস মিশেল

ক্লাবে-ক্লাবে, খেলোয়াড়ে-খেলোয়াড়ে ফুটবলে যে চিরকালীন লড়াই, তাতে আছেন কোচরাও। একেকটা সময় একেকজন কোচ ওই সময়ের ফুটবলকে এতটাই প্রভাবিত করেছেন যে তাঁরা ইতিহাসেই এখন অমর। টোটাল ফুটবলের জনক রাইনাস মিশেল যেমন এই দলে আছেন, তেমনি আছেন বর্তমান সময়ের ফুটবলে নতুন ধারা তৈরি করা পেপ গার্দিওলা কিংবা সাফল্যের পূজারি হোসে মরিনহোরাও। সর্বকালের সেরা কোচদের তালিকায় তাঁরা কে কোথায় থাকেন, এ নিয়ে একটা আগ্রহ আছেই। প্রতিবছর ব্যালন ডি’অর দেওয়া ফ্রান্স ফুটবল ম্যাগাজিন করেছে সেই কাজটিই। তারা সেরা ৫০ কোচের এক তালিকা প্রকাশ করেছে, যেখানে ১ নম্বর জায়গাটি দখলে নিয়েছেন ইয়োহান ক্রুইফদের কোচ রাইনাস মিশেলই।

আয়াক্সে টোটাল ফুটবলের যে বিপ্লব ঘটিয়েছিলেন মিশেল সেই সুরভিতে এরপর ভেসেছে গোটা ডাচ ফুটবল। ১৯৭৪ বিশ্বকাপে তাঁর অধীন ক্রুইফদের পায়েই সুরভি ছড়িয়েছে সেই ফুল। ডাচ ফুটবলের রাজপুত্র ক্রুইফ নিজেও কোচ হিসেবে পরে ভীষণ সফল হয়েছেন আয়াক্স ও বার্সেলোনায়। সেরা কোচের তালিকায় তিনি আছেন ৪ নম্বরেই। দ্বিতীয় স্থানে স্যার অ্যালেক্স ফার্গুসন। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে নিয়ে ২০ বছরের বেশি সময় ইংল্যান্ডে রাজত্ব করেছেন এই স্কটিশ। ১৩টি প্রিমিয়ার লিগের সঙ্গে জিতেছে ২টি চ্যাম্পিয়নস লিগ। তিনে আরিগো সাচ্চি। ইতালিয়ান ফুটবলে তিনিও বিপ্লব ঘটিয়েছেন। নব্বইয়ের দশকে এসি মিলানকে বানিয়েছেন বিশ্বের অন্যতম সেরা ক্লাব। সেরা পাঁচের অন্যজন বার্সেলোনাকে সাফল্যের শিখরে তোলা পেপ গার্দিওলা। তাঁর অধীন লিওনেল মেসি, আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা, জাভিরা যে ফুটবল খেলেছেন, তা ফুটবল ইতিহাসেই ছাপ ফেলে গেছে চিরদিনের মতো। এ ছাড়াও সেরা দশে আছেন লিভারপুল কিংবদন্তি বিল শ্যাঙ্কলি, কার্লো আনচেলোত্তির মতো কোচরা। ১১ নম্বরে ম্যানউর সাবেক কোচ ম্যাট বাসবি, হোসে মরিনহো আছেন ১৩ নম্বরে, জিনেদিন জিদান এই তালিকার ২২ নম্বরে, ইয়ুর্গেন ক্লপ ২৭তম। এএফপি

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা