kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৯ নভেম্বর ২০১৯। ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২১ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ হবে?

২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচটি হবে তো? কাশ্মীরের পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলার পর অনিশ্চয়তার মেঘ ক্রিকেট বিশ্বকাপের ম্যাচটি ঘিরে। সাবেক ক্রিকেটার হরভজন সিং বলেই ফেলেছেন, ‘পাকিস্তানের সঙ্গে না খেলেও আমরা সেমিফাইনাল খেলতে পারব। সবার আগে দেশ বড়, ওদের সঙ্গে কোনো ক্রিকেট নয়।’

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের কয়েকজন কর্তাও নাকি একমত হরভজনের সঙ্গে। আইসিসিও তাই নজর রাখছে পরিস্থিতির ওপর। বিশ্বকাপ ব্লকবাস্টার এই ম্যাচ কোনোভাবে বাতিল হোক চান না তারা। ২৭ ফেব্রুয়ারি দুবাইয়ে শুরু হতে যাওয়া আইসিসির সভায় আলোচনা হবে এ নিয়ে। দুই বোর্ডের কর্তারাও কথা বলবেন তখন। এর আগে আইসিসির প্রধান নির্বাহী ডেভ রিচার্ডসন ১৬ জুন ম্যানচেস্টারে হতে চলা ম্যাচ নিয়ে আশ্বস্ত করলেন সবাইকে, ‘এই হামলায় আমরা মর্মাহত। পরিস্থিতির ওপর নজর রাখছে আইসিসি। তবে বিশ্বকাপে কোনো ম্যাচ না হওয়ার মতো ইঙ্গিত নেই আমাদের কাছে। বিশ্বের নানা প্রান্তের মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করার অসাধারণ ক্ষমতা রয়েছে ক্রিকেটের। সদস্যদের নিয়ে সেই চেষ্টাই চালিয়ে যাব।’

বিশ্বকাপ ক্রিকেটের আগে শ্যুটিং বিশ্বকাপে প্রভাব পড়েছে এই জঙ্গি হামলার। গতকাল দিল্লিতে শুরু হওয়া বিশ্বকাপে অংশ নিতে আসেননি পাকিস্তানি দুই শ্যুটার মোহাম্মদ খলিল আখতার ও গোলাম মোস্তফা বসির। ভিসা জটিলতাই এর কারণ। পাকিস্তানি শ্যুটিং ফেডারেশন জানায় সময়মতো তাঁরা ভিসা পাননি। তবে অস্বীকার করে ভারতীয় ফেডারেশন নিশ্চিত করে, সময়মতো ভিসা দেওয়া হয়েছিল তাঁদের। আসলে পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলার প্রভাবেই ওরা আসেনি।

বিশ্বকাপ ক্রিকেটেও কি শ্যুটিংয়ের মতো কিছু হবে? সাবেক ক্রিকেটার ও উত্তর প্রদেশের মন্ত্রী চেতন চৌহান সতর্কই করে দিলেন ভারতীয় বোর্ডকে, ‘আমাদের উচিত প্রতিটি টুর্নামেন্টের নিয়ম মেনে চলা। ভারত যদি ম্যাচটি না খেলে তাহলে মোটা অঙ্কের জরিমানা গুনতে হবে। দুই বা তিন বছর নিষেধাজ্ঞাও আসতে পারে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। তাই পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচটি বয়কট করা উচিত নয় আমাদের।’

ভারতীয় বোর্ডের বড় একটা অংশও একমত চৌহানের সঙ্গে। কারণ গ্রুপ পর্বের ম্যাচ বয়কটের পরও পাকিস্তানের সঙ্গে খেলার সম্ভাবনা থাকবে সেমিফাইনাল বা ফাইনালে। এমন পরিস্থিতি হলে সেমিফাইনাল বা ফাইনাল বয়কট করার উপায় থাকবে না। তা ছাড়া ১৯৯৯ বিশ্বকাপের সময় কারগিলে যুদ্ধই করছিল ভারত-পাকিস্তান। তখন দুই দল খেলতে পারলে এবার ইংল্যান্ডে নয় কেন? পিটিআই

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা