kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ নভেম্বর ২০১৯। ২৯ কার্তিক ১৪২৬। ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

সেরা দশেও নেই নেইমার

১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সেরা দশেও নেই নেইমার

নতুন পেলে বলা হতো তাঁকে। এ সময়কার ব্রাজিল ফুটবলের এক নম্বর তারকা নেইমার জুনিয়র। কিন্তু এই নেইমারের পেলে-পরবর্তী ব্রাজিলের সেই দশ ফুটবলারের তালিকায় জায়গা মেলেনি! পেলে তিনটি বিশ্বকাপ জিতেছেন, তাঁর সঙ্গেও খেলে গেছেন সেলেসাওদের অনেক রথি-মহারথি। সেই গারিঞ্চা, জোয়ারজিনহো, তোস্তাওদের বাদ দিয়েই পেলে-পরবর্তী যুগের ব্রাজিলের সেরা দশ ফুটবলার বাছাইয়ের জন্য যে জরিপ করেছে ইএসপিএন, তাতে নেই রেকর্ড ট্রান্সফারে বার্সেলোনা ছেড়ে প্যারিস সেন্ত জার্মেইয়ে নাম লেখানো নেইমার।

কিছুদিন আগে ব্রাজিলে স্পোর্টস ম্যাগাজিন ‘প্লাসার’ই মূলত বিতর্কটা উসকে দেয় নেইমারকে পেলে-পরবর্তী সেরা ব্রাজিলিয়ান ফুটবলারের আখ্যা দিয়ে। ইএসপিএনের ব্রাজিল অংশ এরপর ব্রাজিলে জরিপটি করেছে। এ ভোটাভুটিতে রোনালদো, রোনালদিনহো, জিকো, সক্রেটিসদেরও পরে, ১১ নম্বরে আছেন নেইমার। পেলে-পরবর্তী সময়ে ব্রাজিলের সেরা ফুটবলার হিসেবে সবচেয়ে বেশি ভোট পেয়েছেন দ্য ফেনোমেনন রোনালদো। দুইয়ে রোনালদিনহো, তিনে রোমারিও। এরপর জিকো, রিভালদো, সক্রেতিস, কাকা। ৮ নম্বরে তিনজনকে রাখা হয়েছে—কাফু, বেবেতো ও রবার্তো কার্লোস, নয়ে ফ্যালকাও আর দশে ’৮৬-এর বিশ্বকাপে পাঁচ গোল করা কারেকা। নাপোলিতে ডিয়েগো ম্যারাডোনার সঙ্গে খেলা কারেকার ’৮২ বিশ্বকাপই খেলার কথা ছিল। কিন্তু চোটের কারণে পারেননি। ’৭০-এর ব্রাজিলের পর বিশ্বকাপ না জিতেও আলো ছড়ানো সেই ’৮২-র দলের তিনজন সক্রেতিস, জিকো ও ফ্যালকাও এই তালিকায়। তবে একসঙ্গে ২০০২ বিশ্বকাপ জেতা রোনালদো, রোনালদিনহো, রিভালদো, কাকা, কাফু, কার্লোসরাই এই প্রজন্মের পছন্দের তালিকার শীর্ষে। সেখানে পিছিয়ে নেইমার। ভোটে দেখা গেছে একমাত্র তাঁর ক্ষেত্রেই নেতিবাচক ভোট পড়েছে বেশি। চোট সারিয়ে ওঠার লড়াইয়ে থাকা পিএসজি তারকার জন্য যা মোটেও সুখকর নয়। প্রায় ১০ মাসের জন্য মাঠের বাইরে চলে গেছেন তিনি। এপ্রিলের মাঝামাঝি তিনি মাঠে ফিরবেন বলেই আশা করা হচ্ছে, তাতে খেলতে পারবেন কোপা আমেরিকাতেও। ইএসপিএন

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা