kalerkantho

রবিবার। ১৭ নভেম্বর ২০১৯। ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

মেসির পেনাল্টি কাহিনি, রিয়ালের হার

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মেসির পেনাল্টি কাহিনি, রিয়ালের হার

লিওনেল মেসি ভিনগ্রহের! অবিশ্বাস্য সব গোল, ড্রিবল আর পাস দেন মাঝে মাঝে, যা সাধারণ মানুষের পক্ষে করা সম্ভব কি না দ্বিধায় পড়ে যান অনেকে। সেই মেসি পেনাল্টির বেলায় নেমে আসেন সাধারণের কাতারে। ১২ গজ সামনে ভোগেন স্নায়ুর চাপে। তাই গত পরশু লা লিগায় রিয়াল ভায়াদোলিদের বিপক্ষে পেনাল্টিতে গোল করলেন একটি, মিসও করলেন একটি! এর পরও ড্রর বৃত্ত থেকে বেরিয়ে বার্সেলোনা জিতেছে ১-০ গোলে। লা লিগার অন্য ম্যাচে গতকাল রিয়াল মাদ্রিদ নিজেদেরই মাঠে ১-২ গোলে হেরে গেছে জিরোনার কাছে। আন্তোয়ান গ্রিয়েজমানের গোলে অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ ১-০ গোলে হারায় রায়ো ভায়েকানোকে। ইতালিয়ান সিরি ‘এ’তে এসি মিলান ৩-১ গোলে আতলান্তাকে হারিয়ে ধরে রেখেছে চতুর্থ স্থান। আর এফএ কাপের পঞ্চম রাউন্ডে নিউপোর্ট কাউন্টির বিপক্ষে ফিল ফোডেনের জোড়া গোলে ম্যানচেস্টার সিটির জয় ৪-১ ব্যবধানে।

লুই সুয়ারেসকে বিশ্রাম দিয়ে কোচ এরনেস্তো ভালভের্দে নামিয়েছিলেন কেভিন প্রিন্স বোয়াটেংকে। ম্যাচটি দেখতে ন্যু ক্যাম্পে ছিলেন ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তি রোনালদো। তাঁর সামনেই বিরতির পর গোলরক্ষককে একা পেয়ে শটই নিতে পারেননি বোয়াটেং! তাঁর বদলি হয়ে নামা লুই সুয়ারেসও মিস করেন এ ধরনের একটি সুযোগ। বার্সেলোনা অবশ্য ৪৩ মিনিটে এগিয়ে যায় মেসির পেনাল্টিতে। ডি-বক্সে জেরার্দ পিকে ফাউলের শিকার হওয়ায় পেনাল্টি পায় বার্সা। সিদ্ধান্তটা নিয়ে বিতর্ক থাকলেও টানা ১১ মৌসুমে ৩০তম গোল করার সুযোগ হাতছাড়া করেননি মেসি।

তিন সপ্তাহ আগে ভ্যালেন্সিয়ার বিপক্ষে চোট পাওয়া মেসি অবশ্য চেনা ছন্দে ছিলেন না গত পরশু। ৪৮ থেকে ৫০—এই তিন মিনিটে কাজে লাগাতে পারেননি সহজ দুটি সুযোগ। ৮৪ মিনিটে ফিলিপে কৌতিনিয়ো ডি-বক্সে ফাউলের শিকার হলে দ্বিতীয় পেনাল্টি পায় বার্সা। মেসির শট এবার ঠেকিয়ে দেন পুরো ম্যাচে অসাধারণ খেলা গোলরক্ষক ইয়োর্দি মাসিপ। এ নিয়ে লা লিগায় ৬২ পেনাল্টি নিয়ে মেসি মিস করলেন ১২টি। মানে প্রতি ৫ পেনাল্টিতে মিস করেছেন একটি করে। আর ক্যারিয়ার জুড়ে ৮৬ পেনাল্টির মিস করেছেন ২০টি, মিসের হার পেনাল্টি প্রতি ৪.৫! এর পরও তাঁর ওপরই আস্থা ভালভের্দের, ‘লিও একেবারে নিরাপদ বাজি (পেনাল্টির বেলায়)।’

সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে কাসেমিরোর ২৫ মিনিটের গোলে এগিয়ে যায় রিয়াল। ৬৫ মিনিটে পেনাল্টি থেকে সমতা ফেরান ক্রিস্তিয়ান স্তুয়ানি। ৭৫ মিনিটে পোর্তুর গোলে স্মরণীয় জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে জিরোনা। রিয়ালের দুর্ভোগ আরো বাড়ে ম্যাচের শেষ দিকে সের্হিয়ো রামোস লাল কার্ড দেখলে। লা লিগায় সমান ২৪ ম্যাচ শেষে বার্সেলোনার পয়েন্ট ৫৪, অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদের ৪৭ আর রিয়াল মাদ্রিদের ৪৫। মার্কা

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা