kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ নভেম্বর ২০১৯। ৩০ কার্তিক ১৪২৬। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

জীবন লড়াকুদের জন্য

১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



জীবন লড়াকুদের জন্য

বিশ্বকাপ জিতে স্বপ্ন ছিল ব্রাজিলকে ‘হেক্সা’ উপহার দেওয়ার। চোট পেয়ে সেই বিশ্বকাপই একটা সময় অনিশ্চিত হয়ে পড়ে নেইমারের। শেষ পর্যন্ত চোট কাটিয়ে ফেরেন রাশিয়া বিশ্বকাপে। তবে ব্রাজিলকে জেতাতে পারেননি শিরোপা, বেলজিয়ামের কাছে হেরে বাদ পড়ে তিতের দল। বিশ্বকাপ ব্যর্থতা পেছনে ফেলে ব্রাজিল তৈরি হচ্ছে কোপা আমেরিকার জন্য। নিজেদের মাঠে হতে যাওয়া টুর্নামেন্টে শিরোপা ছাড়া অন্য ভাবনা নেই নেইমারের। তবে মর্যাদার কোপা আমেরিকার আগে আবারও ইনজুরিতে তিনি, মাঠের বাইরে থাকতে হবে ১০ সপ্তাহ।

এমন চোট প্রবণতায় প্রস্ফুটিত হচ্ছে না ক্যারিয়ার। এর পরও হাল ছাড়ছেন না নেইমার। চোটের সঙ্গে লড়াই করে তৈরি হচ্ছেন মাঠে ফেরার। শুধু ফুটবল নয়, জীবনে টিকে থাকতে যে লড়াইয়ের বিকল্প নেই, ভালো জানা ব্রাজিলিয়ান অধিনায়কের। এটাই স্মরণ করালেন ইনস্টাগ্রামে দেওয়া একটি ছবিতে। পেছনে বিমান আর সামনে দাঁড়িয়ে দুটি ক্রাচ দুই হাতে ধরে আছেন নেইমার। ছবিটা পোস্ট করে লিখেছেন, ‘জীবন লড়াকুদের জন্য, তাই কোনো কিছুই দুর্বল করতে পারে না আমাকে।’

নেইমার, কাভানির ইনজুরিতে চ্যাম্পিয়নস লিগ শেষ ষোলোর প্রথম লেগে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিপক্ষে পিছিয়ে ছিল পিএসজি। সেই ম্যাচও ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে তারা জেতে ০-২ গোলে। পিএসজির গোল উদ্‌যাপনের একটি মুহূর্ত নেইমার নিজে পোস্ট করেছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। চোটের জন্য দ্বিতীয় লেগে খেলার সম্ভাবনা নেই নেইমারের। তবে পিএসজি কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করলে সেই ম্যাচ খেলতে মুখিয়ে আছেন রীতিমতো। ইউটিউব শো ‘ফুই ক্লিয়ার’-এ নিজের চোট নিয়ে জানালেন, ‘চোট থেকে ফেরার প্রক্রিয়া ভালোভাবে এগোচ্ছে। এরই মধ্যে চিকিৎসা হয়েছে চোট পাওয়া জায়গার। যত দ্রুত উন্নতি হওয়ার কথা ততটাই হচ্ছে। যেভাবে সব এগিয়ে চলেছে তাতে আমি খুশি।’

চ্যাম্পিয়নস লিগ কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগ ৯ ও ১০ এপ্রিল। আর দ্বিতীয় লেগ মাঠে গড়াবে ১৬ ও ১৭ এপ্রিল। সেখান না খেলার কারণ দেখছেন না নেইমার, ‘৮ থেকে ১০ সপ্তাহ মাঠের বাইরে কাটাতে হবে আমাকে। সর্বোচ্চ ১০ সপ্তাহ ধরে নিলাম। তাহলেও নক আউটে ফেরা সম্ভব আমার।’ এদিকে ব্রাজিলের ম্যাগাজিন ‘প্লাসার’ ব্রাজিলিয়ান ফুটবলারদের মধ্যে নেইমারকে রেখেছে পেলের পরই, যা তৈরি করেছে বিতর্ক। বিখ্যাত কোচ হোসে মরিনহোর কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল এ নিয়ে। তাঁর মূল্যায়ন, ‘নেইমার ইউরোপিয়ান ফুটবলে সাফল্য পেয়েছে। রোনালদো, রিভালদোসহ আরো অনেকের নাম স্মরণ করতে পারি যাঁরা ইউরোপের পাশাপাশি দেশকেও মর্যাদার শিরোপা জেতাতে ভূমিকা রেখেছে। নেইমারকেও আগে তেমন কিছু করতে হবে।’ গোলডটকম

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা