kalerkantho

বুধবার । ২০ নভেম্বর ২০১৯। ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ডেভিস কাপে আছেন তাঁরাও!

১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ডেভিস কাপে আছেন তাঁরাও!

লিওনেল মেসিও তাহলে টেনিসপ্রেমী! নিজের দেশের টেনিস তারকা হুয়ান মার্তিন দেল পোত্রোকে এর আগে কয়েকবার অনুপ্রাণিত করেছেন তিনি। এবার সর্বকালের অন্যতম সেরা ফুটবলারটি নেমে পড়ছেন টেনিস ব্যবসাতেও। বার্সেলোনায় তাঁর সতীর্থ জেরার্দ পিকে জানালেন এমনটাই। আসলে ঐতিহ্যবাহী ডেভিস কাপকে নতুনভাবে ঢেলে সাজানোর স্বপ্নটা অনেক দিনের ছিল পিকের। সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করছে কসমস গ্রুপ। এই কম্পানিতে পিকের সঙ্গে বিনিয়োগ আছে লিওনেল মেসিরও। গতকাল ডেভিস কাপের ড্রতে পিকে জানালেন সেটাই, ‘মেসি টেনিস খুব পছন্দ করে। আমাদের বার্সা সতীর্থ রাকিটিচও গতবার ডেভিস কাপে উপভোগ করেছে ক্রোয়েশিয়ার শিরোপা জেতাটা। মেসি আমার মতো কসমস কম্পানিতে বিনিয়োগকারী। তাই ও ডেভিস কাপেরও অংশ। মেসি এ নিয়ে খুব বেশি সময় দেবে না। তবে কম্পানির বিনিয়োগকারী হিসেবে এর অংশীদার।’

১৯০০ সাল থেকে শুরু ডেভিস কাপের যাত্রা। গত বছরও এই টুর্নামেন্টে অংশ নিয়েছে ১৩২টি দেশ। তবে ক্রীড়াঙ্গনের অন্যতম ঐতিহ্যবাহী এই টুর্নামেন্ট থেকে নাম প্রত্যাহার করে নেন সেরা তারকারা। বছরের চারটি গ্র্যান্ড স্লাম আর এটিপি টুর্নামেন্টগুলোতে অর্থের ঝনঝনানির কারণে দেশের হয়ে এই টুর্নামেন্টে অনাগ্রহী তাঁরা। আর সেরা খেলোয়াড়দের ফেরাতেই আন্তর্জাতিক টেনিস ফেডারেশনের সঙ্গে চুক্তি করেছে পিকের নেতৃত্বাধীন কসমস গ্রুপ। আগামী ২৫ বছরের জন্য চুক্তির অঙ্কটা তিন বিলিয়ন ডলারের। তবে পিকের এভাবে টেনিসে আসাটা ঠিক পছন্দ হচ্ছে না টেনিস তারকাদের। খোদ রজার ফেদেরার সমালোচনা করেছেন এই টুর্নামেন্টের, ‘ডেভিস কাপ, পিকে কাপ হয়ে যাওয়াটা উচিত নয়। কোনো ফুটবলারের হঠাৎ করে টেনিস বাণিজ্যে জড়িয়ে পড়াটা একটু অন্য রকম দেখায়।’

অস্ট্রেলিয়ার ডেভিস কাপ অধিনায়ক ও সাবেক নাম্বার ওয়ান টেনিস তারকা লেইটন হিউইটও মানতে পারছেন না পিকের এমন উদ্যোগ, ‘দেখুন, কোনো টেনিস তারকা ফুটবলের চ্যাম্পিয়নস লিগ টুর্নামেন্ট আয়োজন করতে গেলে কেমন লাগবে? যিনি টেনিসের তেমন কিছু বোঝেন না তাঁর এই খেলায় আসার দরকারটা কী?’

কোনো সমালোচনা অবশ্য গায়ে মাখছেন না চার চারটি চ্যাম্পিয়নস লিগ জয়ী জেরার্দ পিকে। ডেভিস কাপ টুর্নামেন্টকে জনপ্রিয় করার অঙ্গীকার তাঁর, ‘সবাই ব্যাপারটা বুঝছেন না। কিছু ভুল-বোঝাবুঝি হচ্ছে। আশা করছি সময়ের সঙ্গে সঙ্গে সব ঠিক হয়ে যাবে। আমরা টুর্নামেন্টটা করতে পারব নভেম্বরের এক সপ্তাহে। তখন খেলোয়াড়রা ক্লান্ত থাকবেন। আশা করব তাঁরা তখন চোটমুক্তও থাকবেন। নিশ্চয়ই সেরা খেলোয়াড়রা অংশ নেবেন এই টুর্নামেন্টে।’ মার্কা

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা