kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ নভেম্বর ২০১৯। ২৯ কার্তিক ১৪২৬। ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

বখতিয়ারের গোলে শীর্ষে বসুন্ধরা

১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বখতিয়ারের গোলে শীর্ষে বসুন্ধরা

ক্রীড়া প্রতিবেদক : অন্য দিনের মতো কাল গোলের পসরা সাজাতে পারেনি বসুন্ধরা কিংস। প্রথমত রহমতগঞ্জের রক্ষণাত্মক খেলা, এর সঙ্গে ফরোয়ার্ডদের গোল মিসের মহড়ায় বখতিয়ার দুশোবেকভের পেনাল্টি গোলে বসুন্ধরা কিংস ১-০ গোলে হারিয়ে এখন পয়েন্ট তালিকায় শীর্ষে। পাঁচ ম্যাচে পাঁচ জয় নিয়ে তাদের সংগ্রহ ১৫ পয়েন্ট। এক ম্যাচ বেশি খেলা গতবারের চ্যাম্পিয়ন ঢাকা আবাহনীর সংগ্রহ সমান হলেও গোলপার্থক্যে দ্বিতীয় স্থানে। দিনের অন্য ম্যাচে, নোয়াখালীতে বিজেএমসি-নোফেলের ম্যাচটি গোলশূন্য ড্র হয়েছে।

নীলফামারীর শেখ কামাল স্টেডিয়ামে কোনো ম্যাচে হারেনি বসুন্ধরা কিংস। এখানে হারিয়েছে মালদ্বীপের সেরা ক্লাব দল নিউ রেডিয়ান্টকে, দেশের সেরা আবাহনীকে বিধ্বস্ত করেছে ৩-০ গোলে। এই পয়া মাঠে পুঁচকে রহমতগঞ্জ গিয়ে তাদের কঠিন চ্যালেঞ্জের সামনে ফেলবে—এমন ভাবনা মনে উঁকি দেওয়ারও কোনো কারণ নেই। সেটা তারা করতেও পারেনি তবে রক্ষণাত্মক কৌশলে খেলে কিংসের পয়েন্টে ভাগ বসাতে চেয়েছিল। তাতেও সফল হয়নি। ম্যাচ শেষে তাই কিংস কোচ অস্কার ব্রুজোনের স্বস্তি, ‘শেষ পর্যন্ত আমরা ম্যাচ জিতেছি, এটা স্বস্তির। তবে গত ছয় দিনে দুই ম্যাচ উপলক্ষে গোপালগঞ্জ যাওয়া-আসার ক্লান্তি কাটার আগেই নীলফামারী গিয়ে খেলাটা কঠিন ছিল। এ রকম কঠিন সূচির মধ্যে খেলোয়াড়দের পারফরম্যান্সের হেরফের একটু হবেই। লিগের খেলা এমনই।’

ম্যাচের শুরু হয় বসুন্ধরা কিংসের আধিপত্য। ১৩ মিনিটে ব্রাজিলিয়ান মার্কোস ভিনিসিয়াসের হেডে একটি সম্ভাবনা তৈরি হয়েছিল, সেটা রুখে দিয়ে গোলরক্ষক তিতুমীর চৌধুরী খেলায় রাখেন রহমতগঞ্জকে। এখানে গোলরক্ষকের নৈপুণ্যের কথা বললেও পরে বেশির ভাগ সময় কিংস ফরোয়ার্ডরা নিজেরাই সহজ সুযোগ নষ্ট করেছেন। পরে ৫০ মিনিটে বক্সে মার্কোস ভিনিসিয়াসকে ফাউল করে বসেন রহমতগঞ্জের নাইজেরিয়ান ডিফেন্ডার ওসেগি মানডে। এর শাস্তি পেনাল্টি, কিরগিজ মিডফিল্ডার বখতিয়ারের পেনাল্টি কিকে লিড নেয় কিংস। এরপর গোল শোধে মরিয়া হয়ে রহমতগঞ্জ খোলস ছেড়ে খেলার চেষ্টা করলে আরো সুযোগ পায় কিংস। তবে ব্যবধান বড় করতে পারেনি। কিংসের টেকনিক্যাল ডিরেক্টর বায়েজীদ যোবায়ের নিপুর আক্ষেপ, ‘আগের ম্যাচগুলোর মতো এই ম্যাচেও আমাদের আধিপত্য ছিল। অন্তত পাঁচটি ভালো সুযোগ নষ্ট করেছে আমাদের ফরোয়ার্ডরা। যেকোনো দলের বিপক্ষে সুযোগ নষ্ট করলে তো জেতা কঠিন হবেই। শেষে পেনাল্টিতে আমরা ৩ পয়েন্ট নিশ্চিত করেছি।’ তবে রহমতগঞ্জ রক্ষণ আগলেই খেলার কারণে কিংসের গোল পাওয়াটা কঠিন করে তুলেছি। নিপু এটাকে বড় সমস্যা হিসেবে দেখেন না, ‘ছোট দল এভাবেই খেলবে, এটাই তাদের কৌশল হবে। কিন্তু বড় দলের বড় খেলোয়াড়দের সেই বাধা টপকে গোল করতে হবে। আমাদের সেই মানের খেলোয়াড় আছে, প্রত্যেক ম্যাচেই তাদের পারফরম্যান্সে দল উতরে যায় ভালোভাবে।’ এবার উতরেছে পেনাল্টি গোলে। কিংস শীর্ষে উঠেছে আর রহমতগঞ্জ ৭ পয়েন্ট নিয়ে দশম স্থানে।

ওদিকে নোয়াখালীতে বিজেএমসি ও নোফেলের ম্যাচটি গোলশূন্য ড্র হয়েছে। দুই দলেরই এটা হোম ভেন্যু। ম্যাচে বিজেএমসি ভালো কয়েকটি সুযোগ পেয়েও বল জালে পাঠাতে পারেনি। তাতে পয়েন্ট ভাগাভাগি হয় এবং ২ পয়েন্ট করে নিয়ে দুই দল আছে পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা