kalerkantho

মঙ্গলবার। ২০ আগস্ট ২০১৯। ৫ ভাদ্র ১৪২৬। ১৮ জিলহজ ১৪৪০

চোটজর্জর পিএসজি উজ্জীবিত ম্যানইউ

১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



চোটজর্জর পিএসজি উজ্জীবিত ম্যানইউ

চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলোর ড্র হয়েছিল ডিসেম্বরে। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের প্রতিপক্ষ হিসেবে পিএসজির নাম উঠতেই অনেকে অসম লড়াই বলছিলেন এটাকে। উড়তে থাকা পিএসজিকে থামানোর সামর্থ্য কোথায় হোসে মরিনহোর দলের? আজ প্রথম লেগে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে দুই দলের মুখোমুখি হওয়ার আগে বদলে গেছে সম্ভাবনার অঙ্ক। পিএসজি নয়, আজকের ফেভারিট ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডই! হোসে মরিনহোর জায়গায় ওলে গানার শোলসকায়ের দায়িত্ব নেওয়ার পর আমূল পরিবর্তন দলে। তাঁর হাত ধরে ১১ ম্যাচে ১০ জয় আর এক ড্রতে দারুণ উজ্জীবিত ম্যানইউ। বিপরীতে চোটের জন্য নেইমারের ১০ সপ্তাহ মাঠের বাইরে থাকাটা বড় ধাক্কা ছিল পিএসজির। সে ক্ষত খুঁচিয়ে ঘা হয়েছে এদিনসন কাভানির ইনজুরিতে। এ উরুগুইয়ানও খেলতে পারবেন না আজ। পুরো ফিট নন মার্কো ভেরাত্তি। চোটজর্জর এক দল নিয়ে আজ উজ্জীবিত ম্যানইউর সামনে তারা। এ ছাড়া শেষ ষোলোর প্রথম লেগে অন্য ম্যাচে এএস রোমার মুখোমুখি হচ্ছে এফসি পোর্তো।

হোসে মরিনহোর সঙ্গে দ্বন্দ্বেই ম্যানইউ ছাড়তে চেয়েছিলেন অ্যান্থনি মার্শিয়াল। ফরাসি মিডফিল্ডার পল পগবাও খুশি ছিলেন না। দায়িত্ব নেওয়ার পর এই দুজনের মুখে হাসি ফুটিয়েছেন শোলসকায়ের। মাঝমাঠের প্রাণ হয়ে উঠেছেন পগবা। আর মার্শিয়ালকে তো শোলসকায়ের তৈরি করতে চান নতুন রোনালদো হিসেবে, ‘ওর মতো একজন দলে থাকায় আমি খুশি। মার্শিয়াল যদি রোনালদোর মতো হতে চায় তাহলে কী করতে হবে জানা আছে ওর। দলের গোল আর খেলা গড়ায় অনেক অবদান রাখছে মার্শিয়াল।’ নেইমারের মানের তারকা না থাকায় স্বস্তি ঝরল শোলসকায়েরের কণ্ঠে, ‘বড় ম্যাচে সেরা তারকাদের দেখতে চায় সবাই। আমি ম্যানইউতে খেলার সময় রিয়ালের বিপক্ষে ম্যাচে ব্রাজিলের রোনালদো, পর্তুগালের ফিগোকে দেখতে চাইতেন দর্শকরা। ওল্ড ট্র্যাফোর্ডের দর্শকরা বঞ্চিত হবেন নেইমারকে না দেখে। তবে এটা হয়তো স্বস্তির আমাদের রক্ষণের জন্য।’

পগবা, মার্শিয়াল ও রোমেলু লুকাকুকে থামাতে মাঝমাঠ আর রক্ষণে দুর্গ গড়তে হবে পিএসজিকে। জেনিত থেকে নতুন যোগ দেওয়া লিওনার্দো পারেদেস পিএসজির হয়ে মাত্র তিন ম্যাচ খেলায় আজ তাঁর বড় পরীক্ষা। তবে ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানে ১৭ গোল করা কিলিয়ান এমবাপ্পের ছন্দে থাকাটা প্রেরণা জোগাবে টমাস টাসেলকে। দলে আছেন অভিজ্ঞ আনহেল ডি মারিয়াও। অনেক প্রত্যাশা নিয়ে এসে ম্যানইউতে একটি মাত্র মৌসুম খেলতে পেরেছিলেন তিনি। ২০১৪-১৫ মৌসুমে ২৭ প্রিমিয়ার লিগ ম্যাচে গোল ছিল মাত্র ৩টি। তখনকার কোচ লুই ফন হালের সঙ্গে বনিবনাও হচ্ছিল না ডি মারিয়ার। পিএসজির হয়ে চেনা ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ফিরে আজ ভালো কিছু করতে মরিয়া তিনি, ‘তখনকার কোচের সঙ্গে কিছু সমস্যা হচ্ছিল। সৃষ্টিকর্তাকে ধন্যবাদ পিএসজিতে এসে মানিয়ে নিয়েছি। ভালো কিছু করতেই আমরা যাব ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে।’

মর্যাদার টুর্নামেন্টে আজই প্রথম দেখা হচ্ছে ম্যানইউ-পিএসজির। প্রথম দেখাটা স্মরণীয় করে রাখবে কারা? লেকিপ

মন্তব্য