kalerkantho

সোমবার । ২১ অক্টোবর ২০১৯। ৫ কাতির্ক ১৪২৬। ২১ সফর ১৪৪১       

এক ইনিংস দিয়েই দলে ফেরার দরজায় সাব্বির!

২৩ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



এক ইনিংস দিয়েই দলে ফেরার দরজায় সাব্বির!

ক্রীড়া প্রতিবেদক : ঘরোয়া ক্রিকেট খেলায় বাধা নেই, বিপিএল খেলছেন তাই। তবু তাঁর গায়ে সেঁটে ‘নিষিদ্ধ ক্রিকেটার’-এর তকমা। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সাব্বির রহমানের নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ যে ফুরোয়নি এখনো! আগামী মাসে নিউজিল্যান্ড-বাংলাদেশ তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের সময়ও ফুরোবে না। তবে সেই সিরিজের জন্য আজ যে বাংলাদেশ দল ঘোষণা করা হবে, তাতে ওই ব্যাটসম্যানের থাকার সম্ভাবনা প্রবল। নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ কমিয়েই তাহলে অন্তর্ভুক্ত করা হবে সাব্বিরকে!

শৃঙ্খলাভঙ্গ তাঁর জন্য নতুন কিছু নয়। ২০১৬ বিপিএলে অমন গুরুতর অভিযোগে প্রায় ১২ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। এরপর প্রথম শ্রেণির ম্যাচ চলাকালীন এক দর্শককে মারার দায়ে সাব্বিরের ওপর নামে আরো বড় শাস্তির খড়্গ। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে বাদ দেওয়া হয়, জরিমানা করা হয় ২০ লাখ টাকা, সঙ্গে ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলার ওপর দেওয়া হয় ছয় মাসের নিষেধাজ্ঞা। তাতেও কী শোধরান এই ব্যাটসম্যান! সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এক সমর্থককে বাজে ভাষায় আক্রমণ করেন। যার জের ধরে গেল সেপ্টেম্বরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে ছয় মাসের জন্য নিষিদ্ধ করা হয় সাব্বিরকে।

সেই ছয় মাস শেষ হতে হতে শেষ হয়ে যাবে আগামী ফেব্রুয়ারি। অথচ ১৩, ১৬ ও ২০ ফেব্রুয়ারি কিউইদের বিপক্ষে তিন ওয়ানডে। বিশ্বকাপের প্রস্তুতি পর্বে যেহেতু আর খুব বেশি ম্যাচ খেলবে না বাংলাদেশ, সেই কারণে টিম ম্যানেজমেন্ট এ সিরিজে সাব্বিরকে খুব করে চায়। বিশ্বকাপে ব্যাটিং অর্ডারের ৭ নম্বরে এখনো বাজির ঘোড়া তিনি। নিষেধাজ্ঞার মেয়াদকাল কমিয়ে সাব্বিরকে তাই নিউজিল্যান্ড সফরের দলে চায় ম্যানেজমেন্ট। আর তাঁর দিকে যে আলাদা নজর আছে, কাল রংপুর রাইডার্সের ম্যাচ শেষে এসে বলে যান বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা।

‘আমার মনে হয়, এবারের বিপিএলে তাসকিন ভালো করছে, শফিউল ভালো করছে। একটা ম্যাচে সাব্বির খেলেছে ভালো। ও যদি এখন পরের ম্যাচগুলোয় পারফরম করে যেতে পারে। এমনিতে জাতীয় দলে বড় পরিবর্তন আসার কথা না। কিন্তু কিছু জায়গা আছে, সেখানে এরা ভালো করলে সুযোগ থাকবে’—বলেছেন মাশরাফি। সাব্বিরের ক্ষেত্রে অমন ভাবনার সুযোগ এসেছে সর্বশেষ ম্যাচের পর। বিপিএলের প্রথম ছয় ম্যাচে তাঁর স্কোর ছিল ৭, ০, ১২, ৬, ২০, ১১। মাশরাফির দল রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে শেষ ম্যাচে ৫১ বলে ৮৫ রানের বিস্ফোরক ইনিংস খেলে প্রমাণ দেন প্রতিভার। তাতেই মুগ্ধ ওয়ানডে অধিনায়ক, ‘এখনো বলার মতো কিছু বলব না। তবে শেষ ম্যাচে আমাদের সঙ্গে যে ইনিংসটা খেলেছে, ওকে যখন জাতীয় দলে নেওয়া হয়, ওর এ ধরনের খেলার সামর্থ্যের কথা ভেবেই। ওর কাছ থেকে আমাদের অনেক আশা। আশা করি, এই ব্যাটিং ও ধরে রাখতে পারবে।’

কিন্তু ওই এক ইনিংস দেখে জাতীয় দলে প্রত্যাবর্তনের সুযোগ কতটা? স্বাভাবিক কারণেই মাশরাফি সরাসরি কিছু বলেননি, ‘আসার কথা বলছি না। তবে টপ অর্ডার থেকে ৬ নম্বর পর্যন্ত দেখেন, তাহলে মনে হয় না অনেক পরিবর্তনের সুযোগ আছে।’ তবু কিছু কিছু জায়গায় সে সুযোগ তো থাকছেই। সাব্বির যেমন নিজের দাবি জানিয়ে রাখছেন। মোসাদ্দেক হোসেন আবার বাজে ফর্মের কারণে পিছিয়ে। পেসারদের মধ্যে বিপিএলে ১৪ উইকেট পাওয়া তাসকিন আহমেদ, ১৩ উইকেট শিকারি শফিউল ইসলামও কড়া নাড়ছেন সম্ভাবনার দুয়ারে। ছোটখাটো সেসব পরিবর্তনের কথা কাল বলেছেন মাশরাফি, ‘হয়তো বাড়তি বোলার, দুজন বাড়তি ব্যাটসম্যান নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে ওদের সুযোগ থাকতে পারে। বাড়তি ব্যাটসম্যানের ক্ষেত্রে সাব্বির আছে, মোসাদ্দেক আছে। ওদের মধ্যে যে ভালো করে, তার সুযোগ বাড়বে। স্পিনারদেরও সুযোগ আছে। সাকিবের সঙ্গী হওয়ার লড়াইয়ে নাজমুল অপু আছে, নাইম ভালো করছে। এমন কিছু কিছু জায়গায় বিকল্প ক্রিকেটারদের জন্য জায়গা ফাঁকা আছে।’

সেই ফাঁকা জায়গাগুলো আপাতত ভরাট হবে নিউজিল্যান্ড সফরের জন্য। কিন্তু নির্বাচক, অধিনায়ক, কোচ, টিম ম্যানেজমেন্টের দৃষ্টি তো নিশ্চিতভাবেই থাকবে আরো দূরে। বিশ্বকাপে!

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা