kalerkantho

রোনালদোর গোলে কাপ জুভেন্টাসের

১৮ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



রোনালদোর গোলে কাপ জুভেন্টাসের

৩৩ বছর বয়সী একজনের জন্য কিনা ১০০ মিলিয়ন ইউরো! ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোকে কেনায় জুভেন্টাসের দিকে বাঁকা চোখে তাকানোর লোকের অভাব ছিল না। ইতালিয়ান ক্লাবটির তাতে থোড়াই কেয়ার। পর্তুগিজ ফুটবল-সম্রাটেরও। সমালোচকদের ভুল প্রমাণ করে চলেছেন প্রতিনিয়ত। এই যেমন পরশু রোনালদোর একমাত্র গোলে এসি মিলানকে হারিয়ে ইতালিয়ান সুপার কাপ জিতল জুভেন্টাস।

১০০ মিলিয়ন ইউরো মূল্যে কী অমূল্য ফুটবল-রত্নই না পেয়েছে তুরিনের ওল্ড লেডি!

এই ইতালিয়ান সুপার কাপ হয়েছে সৌদি আরবের জেদ্দায়। প্রচণ্ড গরমে সহজাত খেলা খেলতে পারেনি কোনো দলই। আধিপত্য অবশ্য জুভেন্টাসেরই ছিল। দগলাস কস্তা, জোয়াও কানসেলোরা মিস করেন গোলের সুযোগ। বিরতির পর পর এসি মিলানের প্যাট্রিক কুত্রোনের বাঁ পায়ের ভলি প্রতিহত হয় বারে। এরপরই ৬১তম মিনিটে রোনালদোর গোল। মিরালেম পিয়ানিচের ভাসানো বলে শরীর শূন্যে ভাসিয়ে হেডে গোল করেন তিনি। মিলানের ম্যাচে ফেরার আশা শেষ হয়ে যায় ৭৪তম মিনিটে মিডফিল্ডার ফ্রাংক কেসির লাল কার্ডে। মিলানকে সাতে রেখে ইতালিয়ান সুপার কাপের সর্বোচ্চ আটবারের শিরোপা তাই জিতে যায় জুভেন্টাস। নতুন ক্লাবের জার্সিতে রোনালদোর যা প্রথম ট্রফি।

স্বাভাবিক কারণেই জুভেন্টাস কোচ মাসিমিলিয়ানো আলেগ্রি ভীষণ উল্লসিত, ‘আমরা ক্রিস্তিয়ানোকে দলে নিয়েছি কারণ ও ম্যাচের ফল নির্ধারণ করে দিতে পারে। বড় বড় ম্যাচে গোল করতে পারে। আজও দুর্দান্ত গোল করেছে। আর পুরো দলও খেলেছে দারুণ।’ সর্বশেষ সাত ফাইনালে আট গোল করা রোনালদোও উচ্ছ্বসিত, ‘এখানে প্রচণ্ড গরম। খেলা তাই খুব কঠিন। আর ম্যাচটিও। তবে আমরা ভালো খেলেছি। গোলের অনেক সুযোগ তৈরি করেছি। এবং অবশ্যই তাতে জয়সূচক গোল করতে পারায় আমি খুবই আনন্দিত। গোলটি আমি উৎসর্গ করছি আমার দলকে, পরিবারকে, বন্ধুদের এবং পুরো পৃথিবীতে যাঁরা জুভেন্টাস ও ক্রিস্তিয়ানোকে ভালোবাসে তাঁদের সবাইকে।’

নতুন ক্লাবে এসে মাস ছয়েকের মধ্যে প্রথম ট্রফি জিতলেন রোনালদো। যেটি আবার নতুন বছরের শুরুতেই। তাতে তাঁর আনন্দ পাচ্ছে ভিন্নমাত্রা, ‘২০১৯ সালটা শুরু করতে চেয়েছি ট্রফি দিয়ে। সেটি পেরেছি। আর জুভেন্টাসের হয়েও এটি আমার প্রথম শিরোপা। সব মিলিয়ে আমি তাই ভীষণ আনন্দিত।’ তবে এতে তৃপ্ত না থেকে পরের ট্রফিগুলোয় চোখ রোনালদোর, ‘এটি শুধু শিরোপার শুরু।’

স্পেনে হোঁচট খেয়েও অবশ্য কোপা দেল রে’র কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে গেছে রিয়াল মাদ্রিদ। দ্বিতীয় লেগে লেগানেসের কাছে ১-০ তে হেরেছে সান্তিয়াগো সোলারির দল। নিজেদের মাঠে প্রথম লেগে ৩-০ গোলের জয়েই শেষ পর্যন্ত শেষ আটে পা রাখতে পেরেছে তারা।  ওদিকে জিরোনার সঙ্গে দ্বিতীয় লেগে ড্র করেও কপাল পুড়েছে অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদের। মাদ্রিদে ম্যাচ শেষ হয়েছে ৩-৩ সমতায়। জিরোনার মাঠে সিমিওনের দলের ড্র ছিল ১-১ গোলে। প্রতিপক্ষের মাঠে বেশি গোলের সুবাদেই শেষ আটের টিকিট পেয়ে গেছে জিরোনা। গোলডটকম

মন্তব্য