kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৫ অক্টোবর ২০১৯। ৩০ আশ্বিন ১৪২৬। ১৫ সফর ১৪৪১       

১৮ জানুয়ারি থেকে প্রিমিয়ার লিগ

১৩ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



১৮ জানুয়ারি থেকে প্রিমিয়ার লিগ

ক্রীড়া প্রতিবেদক : শেষ পর্যন্ত ক্লাবগুলোর দাবিই টিকল এবং ১৮ জানুয়ারি থেকে শুরু হচ্ছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার ফুটবল লিগ। গত ১৩ জানুয়ারি সর্বশেষ লিগ শেষ হওয়ার এক বছর চার দিন পরই শুরু হচ্ছে ২০১৭-১৮ মৌসুমের লিগ।

এক বছর পার করেও লিগ পেছানোর পাঁয়তারা চলছিল। কালকের সভায় নওফেল স্পোর্টিং বাদে ১২ দলের ঐক্যবদ্ধ দাবির মুখে বাফুফে আর পেছাতে পারেনি। পূর্বের ঘোষণা অনুযায়ী আগামী ১৮ জানুয়ারি গতবারের চ্যাম্পিয়ন ঢাকা আবাহনী-নওফেলের ম্যাচ দিয়ে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে শুরু হচ্ছে লিগ। সভা শেষে লিগ কমিটির চেয়ারম্যান সালাম মুর্শেদী সামগ্রিক লিগ নিয়ে বলেছেন, ‘লিগ শুরু হবে ১৮ জানুয়ারি। আগে সাত ভেন্যুতে খেলা হওয়ার কথা ছিল, এখন ভেন্যু কমেছে একটি। আমরা খবর নিয়েছি ফরিদপুর ভেন্যুতে এখনো ক্রিকেট চলছে। এরপর এটিকে

ফুটবল উপযোগী করতে হবে। এ কারণে ফরিদপুর ভেন্যু বাদ দেওয়া হয়েছে। আগে সপ্তাহে তিন ম্যাচ আয়োজনের কথা ছিল, এখন সপ্তাহে চার দিন খেলা হবে।’ আসলে শুরুতে ছিল আট ভেন্যুর কথা। চট্টগ্রাম আবাহনীর অনাগ্রহে আগেই বাতিল হয়ে যায় চট্টগ্রাম এম এ আজিজ স্টেডিয়াম। গতকাল বাদ হয় ফরিদপুর শেখ জামাল স্টেডিয়াম। টিকে রইল ঢাকার বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম, ময়মনসিংহের রফিক উদ্দিন ভূঁইয়া স্টেডিয়াম, গোপালগঞ্জের শেখ ফজলুল হক মনি স্টেডিয়াম, নীলফামারীর শেখ কামাল স্টেডিয়াম, নোয়াখালীর শহীদ ভুলু স্টেডিয়াম ও সিলেট জেলা স্টেডিয়াম। তবে লিগের ভেন্যু শেষ পর্যন্ত ছয়টা থাকবে কি না বলা মুশকিল।

আগের সূচি অনুযায়ী, লিগ শেষ হবে ১০ আগস্ট। এটায় ভীষণ আপত্তি ছিল ক্লাবগুলোর। লম্বা লিগের কারণে ক্লাবগুলোর পক্ষে ব্যয় সামলানো কঠিন হয়ে যাবে। এ নিয়ে সভায় খুব আলোচনা হয়েছে। বসুন্ধরা কিংসের সাধারণ সম্পাদক মিনহাজুল ইসলাম বলেছেন, ‘আসলে লম্বা লিগ চালিয়ে নেওয়ার মতো সামর্থ্য অনেকের নেই। তাই ক্লাবগুলোর স্বার্থ বিবেচনা করে লিগের দৈর্ঘ্য কমিয়ে আনার দাবি জানিয়েছে সবাই। বাফুফে সেটা মেনে নিয়েছে এবং জুলাইয়ের মাঝামাঝিতে শেষ হবে বলে আমাদের আশ্বস্ত করেছে।’ এখন সপ্তাহে তিন ম্যাচের পরিবর্তে চারটি ম্যাচ হবে, সুবাদে লিগের দৈর্ঘ্য কিছুটা কমবে। আসলে লিগের সূচি চূড়ান্ত হলে বোঝা যাবে, কবে শেষ হবে এটা। জুলাইয়ে শেষ হওয়া মানে এবারও ভরা বর্ষা এড়ানো গেল না। লিগ কমিটির চেয়ারম্যানও স্বীকার করেছেন, ‘বর্ষা এড়াতে চেয়েছিলাম কিন্তু নানা কারণে পারিনি। আশা করছি, বর্ষা মৌসুমে খুব একটা সমস্যা হবে না।’ অথচ জাতীয় দল, এএফসি অনূর্ধ্ব-২৩ চ্যাম্পিয়নশিপ ও ঢাকা আবাহনীর এএফসি কাপ খেলার সময় লিগে বিরতি থাকবে। এর সঙ্গে প্রতিবারের মতো অনাকাঙ্ক্ষিত বিরতি ধরলে বাফুফে জুলাইয়ের মাঝামাঝিতে লিগ শেষ করতে পারবে, এটা হলফ করে বলা যাবে না। এই লিগ থেকে দুটো দলের অবনমন হবে আর একটি দলের প্রমোশন হবে চ্যাম্পিয়নশিপ লিগে। আগামী দুই-তিন দিনের মধ্যে স্পন্সর বিষয়টা নিশ্চিত হবে এবং তার থেকে প্রাপ্ত অর্থ সিংহভাগ ক্লাবগুলোকে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন সালাম মুর্শেদী।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা