kalerkantho

শুক্রবার । ২৩ আগস্ট ২০১৯। ৮ ভাদ্র ১৪২৬। ২১ জিলহজ ১৪৪০

নেইমার-সালাহরা নক আউটে

১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



নেইমার-সালাহরা নক আউটে

‘মৃত্যুকূপ’ হয়ে উঠেছিল গ্রুপ ‘সি’। পিএসজি, লিভারপুল, নাপোলি—তিন দলই কোনো না কোনো সময় ছিল শীর্ষে, আবার বাদ পড়ার ঝুঁকিতেও! শেষ পর্যন্ত কাটা পড়ল নাপোলি। নেইমার-এমবাপ্পেদের পিএসজি গ্রুপের শেষ ম্যাচে ৪-১ গোলে বিধ্বস্ত করেছে রেড স্টার বেলগ্রেডকে। মোহামেদ সালাহর একমাত্র গোলে নাপোলি হেরেছে লিভারপুলের কাছে। ইতালিয়ান দলটি তাই নেমে গেল ইউরোপায়। আর নক আউটে পিএসজি ও লিভারপুল।

ইতালির আরেক জায়ান্ট ইন্টার মিলানও বাদ গ্রুপ পর্ব থেকে। গত পরশু সান সিরোতে পিএসভির সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করে পুড়েছে তাদের কপাল। বার্সেলোনার সঙ্গে ন্যু ক্যাম্পে ১-১ ড্রতে এই গ্রুপ থেকে রানার্স-আপ হয়ে নক আউটে হ্যারি কেইনের টটেনহাম। আগেই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় বার্সা সেরা একাদশে রাখেনি লিওনেল মেসিসহ কয়েকজন তারকাকে। তবে মাঝমাঠ থেকে প্রায় ৫০ মিটার দৌড়ে উসমান দেম্বেলের গোলে মিশে ছিল ঘোর লাগা সৌন্দর্য। গত পরশুই নির্ধারিত হয়ে গেছে শেষ ষোলোর ১৫টি দল। গ্রুপ ‘এফ’ থেকে অলিম্পিক লিওঁ আর শাখতার দোনেেস্কর যেকোনো এক দল নিয়ে পূর্ণ হবে বৃত্তটা।

নক আউটে যেতে অ্যানফিল্ডে জিততেই হত লিভারপুলকে। বাঁচা-মরার ম্যাচটিতে তারা পোস্টে নিয়েছে ২২ শট। ৩৪ মিনিটে জালে জড়ায় এর একটিই। জেমস মিলনারের পাসে ডি বক্সে দ্রুত এগিয়ে একজনের বাধা পেরিয়ে দুরূহ কোণ থেকে গোল করেছেন মোহাম্মদ সালাহ। প্রিমিয়ার লিগে আগের ম্যাচেই হ্যাটট্রিক করা তাঁর মৌসুমে এটা ১৩তম গোল। ইনজুরি টাইমে লিভারপুলের ত্রাতা গোলরক্ষক আলিসন। মিলিচের আট গজ দূর থেকে নেওয়া শট ঠেকিয়ে বিশ্বের সবচেয়ে দামি এই গোলরক্ষক নিশ্চিত করেন লিভারপুলের জয়। এই সেভ নিয়ে লিভারপুল কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপের প্রশংসা, ‘যদি জানতাম ও এতটা ভালো তাহলে দ্বিগুণ দামে কিনতাম!’

গ্রুপের আরেক ম্যাচে রেড স্টার বেলগ্রেডকে ৪-১ গোলে বিধ্বস্ত করেছে পিএসজি। একটি করে গোল এদিনসন কাভানি, নেইমার, মারকুইনহোস ও কিলিয়ান এমবাপ্পের। এই গ্রুপে ৬ ম্যাচ শেষে ১১ পয়েন্ট নিয়ে চ্যাম্পিয়ন পিএসজি। লিভারপুল ও নাপোলির পয়েন্ট সমান ৯। দুই দলের মুখোমুখি লড়াই আর গোল গড়েও সমতা। তবে নাপোলির ৭ আর লিভারপুলের গোল ৯টি, এ জন্যই বেশি গোলের সুবাদে নক আউটের টিকিট সালাহদের।

গত সপ্তাহে অনুশীলনে দেরি করে আসায় সমালোচনার মাত্রা বাড়ে উসমান দেম্বেলেকে ঘিরে। তার পরও কোচ এরনেস্তো ভালভের্দে টটেনহামের বিপক্ষে নামিয়েছিলেন একাদশে। এর প্রতিদান দেন সপ্তম মিনিটে অসাধারণ এক গোলে। মাঝমাঠ থেকে ওয়াকার পিটার্সের কাছ থেকে বল কেড়ে প্রায় ৫০ মিটার দৌড়ে এই ফরাসি ঢুকে পড়েন বক্সে। উইনাক্স শেষ বেলায় স্লাইড করেও পারেননি দেম্বেলেকে আটকাতে। বাঁ পায়ের নিখুঁত শটে বল জালে জড়িয়ে ন্যু ক্যাম্পকে উল্লাসে ভাসান তিনি। বিরতির পর লিওনেল মেসি নামলেও আর গোল পায়নি বার্সা। উল্টো ৮৫ মিনিটে লুকাস মৌরার গোলে ১-১ সমতায় মাঠ ছাড়ে টটেনহাম। গ্রুপের আরেক ম্যাচে নিজেদের মাঠে ইন্টার মিলান জিতলেই পেত নক আউটের টিকিট। এমন ম্যাচেই কিনা পিএসভির সঙ্গে ১-১ ড্র তাদের। ৬ ম্যাচ শেষে বার্সার পয়েন্ট ১৪, টটেনহামের ৮, ইন্টারের ৮ আর পিএসভির ২। পয়েন্ট সমান হলেও গোল গড়ে নক আউটে টটেনহাম আর ইন্টার ছিটকে গেছে ইউরোপায়। তাই খুশি টটেনহাম কোচ মরিসিও পচেত্তিনো, ‘সবাই বলছিল এটা মিশন ইম্পসিবল হতে যাচ্ছে। সেই চ্যালেঞ্জে জিতেছি আমরা।’

গ্রুপ ‘এ’তে সমান ১৩ পয়েন্ট বরুশিয়া ডর্টমুন্ড ও অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদের। গত পরশু রাফায়েল গুইরেরোর জোড়া গোলে ডর্টমুন্ড ২-০ ব্যবধানে হারিয়েছে মোনাকোকে। আর ক্লাব ব্রুজের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র অ্যাতলেতিকোর। তাই গোল গড়ে এগিয়ে গ্রুপ সেরা হয়ে পরের রাউন্ডে ডর্টমুন্ড আর রানার্স-আপ অ্যাতলেতিকো। আগেই গ্রুপ ‘ডি’র চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল পোর্তো ও রানার্স-আপ শালকে। গত পরশু শেষ ম্যাচে এর মান রেখে পোর্তো ৩-২ গোলে গালাতাসারেকে ও শালকে ১-০ গোলে হারায় লোকোমোতিভ মস্কোকে। এএফপি

মন্তব্য