kalerkantho



কেইনের গোলে সেরা চারে ইংল্যান্ড

১৯ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



কেইনের গোলে সেরা চারে ইংল্যান্ড

ওয়েম্বলিতে খেলছিল আসলে তিন দল। ক্রোয়েশিয়া-ইংল্যান্ডের মধ্যে যারা জিতবে তারাই যাবে উয়েফা নেশনস লিগের শেষ চারে। কিন্তু ম্যাচ ড্র হলে তারা কেউ নয়, সেই সেমিফাইনালে পা রাখবে স্পেন। ত্রিমুখী লড়াই নয়তো কি। অনেকক্ষণ গোলশূন্য, গোল হওয়ার পর অনেকক্ষণ আবার ১-১ স্কোরলাইনে স্প্যানিশদের আশা জেগেও ছিল ৮৫ মিনিট পর্যন্ত। শেষ পর্যন্ত স্পেন বা ক্রোয়েশিয়া নয়, ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডকেই জুনের ওই চূড়ান্ত পর্বে তুলে দিয়েছেন হ্যারি কেইন।

বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ গোলদাতা ম্যাচের শুরুতেই সহজ সুযোগ নষ্ট করেছিলেন। ক্রোয়েশিয়া সেই সুযোগ নিয়ে এগিয়ে যায় ৫৭ মিনিটে ক্রামারিচের গোলে। জেস লিনডার্গ স্বাগতিকদের সমতায় ফেরান। এরপর ৮৫ মিনিটে কেইনের ওই জয়সূচক গোল। ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোকে ছাড়া উয়েফা নেশনস লিগের ‘শেষ চার’-এ নাম লিখিয়েছে পর্তুগাল তার আগেই। পরশু সান সিরোতে ইতালিকে গোলশূন্য রুখে দিয়ে লিগ ‘এ’-র গ্রুপ থ্রিতে শীর্ষস্থান নিশ্চিত করেছে তারা।

৫০ বছর পর বিশ্বকাপে খেলার যোগ্যতা হারানো ইতালিকে সেই সেমিফাইনালের আশা বাঁচিয়ে রাখতে জিততেই হতো এ ম্যাচে। আক্রমণের ফোয়ারা ছুটিয়েও জয়ের জন্য সেই গোলের দেখা পায়নি রবার্তো মানচিনির দল। পর্তুগাল অনেকটা হার এড়াতেই খেলেছে। তাতে কঠিন পরীক্ষা দিতে হয়েছে রুই প্যাত্রিসিওকে। শুরুতেই লরেঞ্জো ইনসিনিয়ের দূরপাল্লার শট ফিরিয়ে পোস্ট অক্ষত রাখেন এই গোলরক্ষক। ভাগ্যেরও সহায়তা পেয়েছে তারা। লিওনার্দো বনুচ্চির হেড নইলে এভাবে পোস্ট ঘেঁষে বেরিয়ে যাবে কেন। চিরো ইমোবিলকেও আবার ওয়ান অন ওয়ানে হতাশ করেছেন প্যাত্রিসিও। দ্বিতীয়ার্ধে জুয়াও মারিও যোগ হলে পর্তুগালের আক্রমণেও ধার বাড়ে। উইলিয়াম কারভালহোর শট ফেরাতে প্রাণপণ ঝাঁপাতে হয় তাই জিয়ানলুইগি দুন্নারুমাকেও। জর্জিয়ো কিয়েল্লিনি, বনুচ্চিদের ডিফেন্স বাকিটা সামলে নেন সহজেই। কিন্তু যে গোলের জন্য অপেক্ষা সেটিই ধরা দেয়নি তাদের। ৬৯-৩১ বলের দখল, ১০-৫ শটে এগিয়ে থেকেও তাই সমতা নিয়ে শেষ করতে হয় ম্যাচ।

বিশ্বকাপ বাছাইয়ের প্লে-অফে সুইডেনের বিপক্ষে ১৮০ মিনিটের লড়াইয়ে গোল করতে না পেরেই রাশিয়ায় যাওয়া হয়নি আজ্জুরিদের। নেশনস লিগে রোনালদোহীন পর্তুগালের বিপক্ষে আক্রমণের ঝড় বইয়েও তারা কতটা এগোল, তাই প্রশ্ন থাকেই। গ্রুপে পর্তুগালের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে তো তারা হেরেছেই ১-০তে। নিজেদের মাঠেও জিততে পারেনি পোল্যান্ডের বিপক্ষে। ১-০ গোলের একমাত্র জয় তাদের পোল্যান্ডের বিপক্ষেই তাদের মাঠে। তাতেই গ্রুপে দ্বিতীয় হয়ে লিগ ‘এ’-র ১৬ দলে নিজেদের টিকিয়ে রাখল ‘দ্য ব্লু’রা। পোলিশরা এক ম্যাচ হাতে রেখেই অবনমিত। গোলডটকম



মন্তব্য