kalerkantho



ম্যাক্স-বিএসপিএ নাইট

কালের কণ্ঠ’র জয়জয়কার

১৮ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



কালের কণ্ঠ’র জয়জয়কার

ক্রীড়া প্রতিবেদক : অবশেষে! পুরস্কারপ্রাপ্তির পর তাত্ক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় এটাই বললেন নোমান মোহাম্মদ। আসলেই তো! ২০১৬ সালে ক্রীড়া সাংবাদিকদের পেশাগত স্বীকৃতি প্রদানের অনুষ্ঠান ম্যাক্স-বিএসপিএ নাইটে পর পর দুইবারের রানার-আপ তিনি। এবার বর্ষসেরার মনোনয়ন প্রাপ্তির পর তাঁর মনে হয়তো আশঙ্কার মেঘ। নেদারল্যান্ডস ফুটবল দলের মতো তিনবার রানার্স-আপ হয়েই ফিরতে হবে না তো? কিংবা আরো সাম্প্রতিক উদাহরণ হিসেবে যদি বলা যায়, লিওনেল মেসির মতো তিনটি ফাইনালের রানার্স-আপ ট্রফিই আক্ষেপের প্রতীক হয়ে থাকবে না তো তাঁর শোকেসে? তবে ভাগ্যদেবী শেষ পর্যন্ত মুখ ফিরিয়ে নেননি। চার বছরের কন্যা ঋষিকাব্যকে সঙ্গে নিয়ে অনুষ্ঠানে এসেছিলেন নোমান, কন্যাকে কোলে নিয়েই উঠেছিলেন মঞ্চে। কন্যাভাগ্যেই বোধ হয় এবারে শিকে ছিঁড়ল নোমানের! সহকমী সনৎ বাবলা ও সুহৃদ মোহাম্মদ ইসামকে ছাড়িয়ে ম্যাক্স-বিএসপিএ নাইটে বর্ষসেরা সাংবাদিকের পুরস্কারটা জিতে নিয়েছেন কালের কণ্ঠ’র এই সিনিয়র রিপোর্টার। শুধু বর্ষসেরা নোমানই নয়, সেরা সাক্ষাৎকারের জন্য কালের কণ্ঠ’র সনৎ বাবলা, একই বিভাগে রানার-আপ কালের কণ্ঠ’র মাসুদ পারভেজ এবং নোমান মোহাম্মদও। সেরা ফিচারে রানার-আপ শাহজাহান কবিরও, ফটো সাংবাদিকতায়ও কালের কণ্ঠ’র মীর ফরিদ পেয়েছেন পুরস্কার। বিশেষ সম্মাননা পেয়েছেন রাহেনুর ইসলাম। সব মিলিয়ে এবারের ম্যাক্স-বিএসপিএ নাইটে ছিল কালের কণ্ঠ’র জয়জয়কার।

বর্ষসেরার স্বীকৃতি পাওয়া নোমান শ্রেষ্ঠত্বের স্বীকৃতি পেয়েছেন সব বিভাগেই। ভলিবল খেলোয়াড় নিখিল পালের সাক্ষাৎকারের জন্য তিনি রানার-আপ হয়েছেন সেরা সাক্ষাৎকার বিভাগে। এক্সক্লুসিভ রিপোর্ট বিভাগেও তিনি রানার-আপ দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে ক্রিকেটারদের ক্যাসিনো গমনের রিপোর্টটির জন্য। স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের বেঁচে থাকা সব সদস্যের সঙ্গে কথা বলে ২৭ পর্বের দীর্ঘ ধারাবাহিক রিপোর্টের জন্য নোমান পেয়েছেন সেরা সিরিজ রিপোর্টের পুরস্কার আব্দুল হামিদ ট্রফি। সব কীর্তির সম্মিলিত পুরস্কার হিসেবেই নোমান জিতেছেন ম্যাক্স-বিএসপিএ নাইট ২০১৮’র বর্ষসেরা ক্রীড়া সাংবাদিকের পুরস্কার। রানার-আপ কালের কণ্ঠ’র বিশেষ প্রতিনিধি সনৎ বাবলা ও ক্রিকইনফোর বাংলাদেশ প্রতিনিধি মোহাম্মদ ইসাম। কাল ফারস রিসোর্টস অ্যান্ড হোটেলের সিঁদুরপুর হলে আয়োজিত জমকালো পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে তাঁর হাতে পুরস্কার তুলে দেন দক্ষিণ এশিয়ার ফুটবল ফেডারেশন ও বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি কাজী মোহাম্মদ সালাউদ্দিন। বিএসপিএ সভাপতি মোস্তফা মামুনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ম্যাক্স গ্রুপের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার গোলাম মোহাম্মদ আলমগীর। সাবেক সাধারণ সম্পাদক রেজওয়ানুজ্জামান রাজীবের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন বিএসপিএর সাধারণ সম্পাদক সুদীপ্ত আহমেদ আনন্দ।

এবারের আয়োজনে পরিসর বেড়েছে ম্যাক্স-বিএসপিএ অ্যাওয়ার্ডের। যুক্ত হয়েছেন ফটো সাংবাদিক ও অন্য দুই ক্রীড়া সাংবাদিক সংগঠনের সদস্যরাও। পুরস্কারের মঞ্চেও তাঁদের গর্বিত পদচারণ। সেরা সাক্ষাৎকারের জন্য আতাউল হক মল্লিক ট্রফি জিতেছেন কালের কণ্ঠ পত্রিকার বিশেষ প্রতিনিধি সনৎ বাবলা। ১৫ই আগস্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার প্রতিবাদে মালয়েশিয়ায় মারদেকা কাপ খেলতে যাওয়া বাংলাদেশ ফুটবল দলের মাঠে নামার অস্বীকৃতির প্রসঙ্গ উঠে আসে বাবলার নেওয়া আশরাফ হোসেন চুন্নুর সাক্ষাৎকারে। রানার-আপ একই প্রতিষ্ঠানের নোমান মোহাম্মদ ও মাসুদ পারভেজ। বর্ষসেরা এক্সক্লুসিভ রিপোর্টের জন্য বদি-উজ-জামান ট্রফি পেয়েছেন এটিএন নিউজের শেখ আশিক। তাঁর রিপোর্টটি ছিল খুলনা বিভাগীয় মহিলা ক্রীড়া কমপ্লেক্সের দুর্নীতি নিয়ে। রানার-আপ হয়েছেন নোমান মোহাম্মদ ও চ্যানেল টোয়েন্টিফোরের রিয়াসাদ আজিম। সেরা সিরিজ রিপোর্টের জন্য আব্দুল হামিদ ট্রফি জিতেছেন নোমান মোহাম্মদ, রানার-আপ শামীম চৌধুরি (এশিয়ানমেইল২৪ ডটকম) ও মাসুদ আলম (প্রথম আলো)। সেরা ফিচার রিপোর্ট/ডকুমেন্টারির জন্য রণজিৎ বিশ্বাস ট্রফি জিতেছেন ক্রিকইনফোর বাংলাদেশ প্রতিনিধি মোহাম্মদ ইসাম। তিনি লিখেছিলেন বাংলাদেশের ক্রিকেটার তৈরির সূতিকাগার ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ নিয়ে। রানার-আপ রানা আব্বাস, শাহজাহান কবির ও সনৎ বাবলা। ফতুল্লা স্টেডিয়ামের পরিত্যক্ত দশার ছবি তুলে সেরা আলোকচিত্রের জন্য বদরুল হুদা ট্রফি জিতেছেন নিউ এজ পত্রিকার সৌরভ লষ্কর। রানার-আপ কালের কণ্ঠ’র মীর ফরিদ ও প্রথম আলোর শামসুল হক টেংকু। অনুষ্ঠান শেষে সংগীত পরিবেশন করেন শিল্পী কনকচাঁপা।



মন্তব্য