kalerkantho


মেয়েদের ‘ফাইনাল’ আজ

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



মেয়েদের ‘ফাইনাল’ আজ

ক্রীড়া প্রতিবেদক : লিগ পদ্ধতিতে খেলা। তবু সব কিছু এমনভাবে হলো যে আসরের সেরা দুটি দল আজ যখন শেষ ম্যাচে মুখোমুখি হচ্ছে, তখন সেটিই হয়ে যাচ্ছে অঘোষিত ফাইনাল। টুর্নামেন্টে এ পর্যন্ত বাংলাদেশ ও ভিয়েতনাম—কোনো দলই হারেনি। কেউ কোনো গোলও হজম করেনি এ পর্যন্ত এবং সব মিলিয়ে দুই দলই করেছে ২৫টি করে গোল। এমন সাম্যাবস্থার পর সেই ‘ফাইনালটি’ যে জিভে জল এনে দেওয়া একটা ম্যাচ হতে যাচ্ছে, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। আজ বিকেল সাড়ে ৩টায় কমলাপুর স্টেডিয়ামে মেয়েদের এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ চ্যাম্পিয়নশিপ বাছাইয়ের শেষ এই ম্যাচটি।

 

আগের হিসাব-নিকাশের কারণেই শুধু নয়, এই ম্যাচ উত্তাপ ছড়াচ্ছে ভবিষ্যৎ সম্ভাবনার সলতেতেও। যারা জিতবে তারা শুধু এই আসরের চ্যাম্পিয়নই না, মূল পর্বে খেলার লড়াইয়েও উঠে যাবে পরের ধাপে। এশিয়ার ছয়টি জোনে হচ্ছে এই বাছাই পর্ব। এই ছয় জোনের ছয় চ্যাম্পিয়ন ও সেরা দুই রানার্স-আপ দল খেলবে চূড়ান্ত বাছাই রাউন্ড। সেখান থেকেই চারটি দল যাবে এশিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপে। বাংলাদেশ এর আগে ঢাকায় হওয়া গ্রুপ পর্বে চ্যাম্পিয়ন হয়েই উঠে গিয়েছিল মূল পর্বে। এবার দল বেড়েছে, তাই বাছাইটাও হচ্ছে দুই ধাপে। প্রথম ধাপেই লাল-সবুজের বাদ পড়া তবু মানায় না। ভিয়েতনামকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার এই চাপ নিয়েই তাই আজ মাঠে নামছে মারিয়া, শামসুন্নাহাররা। কোচ গোলাম রব্বানী অবশ্য আত্মবিশ্বাসী যে তাঁর দলের খেলোয়াড়রা নিজেদের স্বাভাবিক খেলাটা খেলতে পারলেই এই ম্যাচে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়বে, ‘নিজেদের সামর্থ্যটা মাঠে পুরোপুরি ঢেলে দেওয়াটাই আমাদের মূল চ্যালেঞ্জ। আমার বিশ্বাস মেয়েরা তাদের স্বাভাবিক খেলাটা খেলতে পারলে আমরাই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে বেরোব।’

দুই দলের পরিসংখ্যানই বলছে ভিয়েতনাম ছেড়ে কথা বলবে না। রব্বানীর প্রতিপক্ষের সেই শক্তিমত্তা মাথায় রেখেই এই ম্যাচে বুঝেশুনে খেলার তাগিদ তাঁর দলের মেয়েদের প্রতি, ‘ভিয়েতনামের আগের তিনটি খেলাই আমি দেখেছি। অবশ্যই ওরা শক্তিশালী দল। ওরাও গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্যই এসেছে। তবে তাদের সেই শক্তিমত্তার কথা মাথায় রেখেই সতর্ক ফুটবল খেলার পরিকল্পনা আমাদের। কী করতে হবে, তা বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে।’ ভিয়েতনামি কোচ থি মাইলান অবশ্য নিজেদের সেরা বলে চাপ নিতে রাজি নন, স্বাগতিকদেরই এগিয়ে রাখছেন তিনি এই গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের আগে, ‘আমার মনে হয় এই টুর্নামেন্টে বাংলাদেশই সেরা দল। আগের ম্যাচগুলো যতটা সহজে জিতেছি। এই ম্যাচে তা সম্ভব হবে না।’ কঠিন ম্যাচের অপেক্ষা করছে বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা। আগের দিন আমিরাতের বিপক্ষে তাই গুরুত্বপূর্ণ তিন খেলোয়াড়কে বিশ্রামও দিয়েছিলেন রব্বানী। সেই মারিয়া মান্ডা, শামসুন্নাহার ও ঋতুপর্ণ চাকমা আজ একাদশে ফিরছে। সেই ম্যাচে হ্যাটট্রিক করে একাদশে ফেরা অনুচিং মোগিনিও আজ ‘ফাইনালে’ অবদান রাখতে মুখিয়ে। দেশের মাটিতে ২০১৬-তে এই আসরে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর গত বছর এই কমলাপুরে অনূর্ধ্ব-১৫ সাফেও যে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাদেশ। ঘরের মাঠে শিরোপার সেই ধারা ধরে রাখতেও যে মুখিয়ে আজ বাংলাদেশের মেয়েরা।



মন্তব্য