kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ নভেম্বর ২০১৯। ২৭ কার্তিক ১৪২৬। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

লেবাননকে হারিয়ে এগিয়ে থাকতে চায় বাংলাদেশ

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



লেবাননকে হারিয়ে এগিয়ে থাকতে চায় বাংলাদেশ

বাংলাদেশ নিজেদের প্রথম ম্যাচে বাহরাইনকে ১০-০ গোলে উড়িয়ে দিয়ে সেই লেবাননেরই চ্যালেঞ্জ নিতে যাচ্ছে আজ। বাংলাদেশের লক্ষ্যটা পরিষ্কার এই ম্যাচ। কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন যেমন বলেছেন, ‘দুই ম্যাচ জিতে লেবানন এরই মধ্যে ভালো একটা অবস্থানে পৌঁছে গেছে। ওদের হারিয়ে আমরাও সেই ভালো অবস্থানে যেতে চাই।’

 

ক্রীড়া প্রতিবেদক : টানা দুই ম্যাচ জিতে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৫ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের ‘এফ’ গ্রুপে এখন শীর্ষে লেবানন। বাংলাদেশ নিজেদের প্রথম ম্যাচে বাহরাইনকে ১০-০ গোলে উড়িয়ে দিয়ে সেই লেবাননেরই চ্যালেঞ্জ নিতে যাচ্ছে আজ। বাংলাদেশের লক্ষ্যটা পরিষ্কার এই ম্যাচ। কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন যেমন বলেছেন, ‘দুই ম্যাচ জিতে লেবানন এরই মধ্যে ভালো একটা অবস্থানে পৌঁছে গেছে। ওদের হারিয়ে আমরাও সেই ভালো অবস্থানে যেতে চাই।’

প্রথম ম্যাচে বাহরাইনকেই ৮-০-তে বিধ্বস্ত করেছে লেবানিজ মেয়েরা। পরশু আরব আমিরাতের জালে ৬ গোল দিলেও অবশ্য ৩ গোল হজম করেছে তারা। আজ তাদেরও আসল পরীক্ষা স্বাগতিকদের বিপক্ষে। বাংলাদেশের জন্য ভিন্ন চ্যালেঞ্জ নিয়ে আজই প্রথম সকাল সাড়ে ১১টায় ম্যাচ খেলতে নামছে তারা। এ মুহূর্তে ঢাকার যে আবহাওয়া, তাতে মধ্যদুপুরে কমলাপুর স্টেডিয়ামের অ্যাস্ট্রো টার্ফ রীতিমতো আগুন ঝরাবে। সেই প্রতিকূলতা আগে জয় করতে হবে মনিকা, মারিয়াদের। টুর্নামেন্টের প্রস্তুতিতে বাফুফের অ্যাস্ট্রো টার্ফে দুপুরবেলা তারা অনুশীলন করেছে এ ম্যাচ মাথায় রেখেই। লেবানন অবশ্য টুর্নামেন্টের মধ্যেই এক ম্যাচ খেলে ফেলেছে এ তপ্ত আবহাওয়ায়।

ফুটবলীয় শক্তিমত্তার দিক দিয়ে বাংলাদেশের কোচ অবশ্য নিজেদেরই এগিয়ে রাখছেন, ‘লেবানন অবশ্যই ভালো দল। তবে গতি ও শক্তির দিক দিয়ে আমরা ওদের চেয়ে এগিয়ে থাকব।’ আগের দুটি ম্যাচ দেখেই দলটির চুলচেরা বিশ্লেষণ করেছে বাংলাদেশের টিম ম্যানেজমেন্ট। তাতে দুই ফরোয়ার্ড জারা আসাফ, নাথালিয়া আলাবেদকে নিয়ে আলাদা ভাবনা থাকছেই কোচের। জারা আমিরাতের বিপক্ষে একাই করেছে ৪ গোল, বাহরাইনের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক ছিল নাতালিয়ার। এ দুজনকে জোনাল মার্কিংয়ের পরিকল্পনা বাংলাদেশ দলের। প্রথম ম্যাচ বিবেচনায় বাংলাদেশের শামসুন্নাহার, মারিয়া মান্দারাও থাকতে পারে লেবানন কোচের রাডারে। সেই ম্যাচে জোড়া গোল করলেও আরো কিছু সহজ সুযোগ নষ্ট করায় আনুচিং মোগিনিকে তুলে নেওয়া হয়েছিল। আজ শুরুর একাদশে তার থাকা নিয়ে অনিশ্চয়তা। সেই ম্যাচে বদলি নেমে আঁখি খাতুনের লং পাসে নয়ন-জুড়ানো গোল করা সাজেদা এই পজিশনে দাবি জানিয়ে রেখেছে। সেই ম্যাচে সারাবান তহুরাও ছিল ফ্লপ। বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৬ দলটির অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়ই ধরা হয় এই কিশোরীকে। কিন্তু বাহরাইনের জালে স্বাগতিকদের ১০ গোলের মাত্র একটি গোল ছিল তার, সেটিও ম্যাচের শেষ দিকে। রব্বানী অবশ্য তহুরার ফর্ম নিয়ে ভাবনায় নেই, ‘ওই ম্যাচে বাহরাইন ডিফেন্সে ভিড় বাড়িয়ে রেখেছিল বলেই ওর খেলাটা কঠিন হয়ে যাচ্ছিল। জায়গা পেলে সেটা কাজে লাগাতে সে ওস্তাদ। আশা করি লেবাননের বিপক্ষে নিজেকে মেলে ধরার সেই সুযোগ সে পাবে।’

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা