kalerkantho


মুকুট ফিরে পেলেন রানী

১৯ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০



মুকুট ফিরে পেলেন রানী

৭৪ বছর বয়সেও সেই রানী হামিদের শিরোপা ক্ষুধা যে মরেনি সে এক বিস্ময়। কালই জাতীয় দাবার ১৯তম শিরোপা জিতলেন দেশের মহিলা দাবার এই পথিকৃৎ।

 

ক্রীড়া প্রতিবেদক : বাংলাদেশের মহিলা দাবায় তিনি কিংবদন্তি। যতবার শিরোপা জিতেছেন তাতে গিনেস রেকর্ড হয়। ৭৪ বছর বয়সেও সেই রানী হামিদের শিরোপা ক্ষুধা যে মরেনি সে এক বিস্ময়। কালই জাতীয় দাবার ১৯তম শিরোপা জিতলেন দেশের মহিলা দাবার এই পথিকৃৎ।

শেষ রাউন্ডে রানীর সামনেই ছিল কঠিন প্রতিপক্ষ। জিততে হলে হারাতে হবে সাবেক চ্যাম্পিয়ন ফিদে মাস্টার জাকিয়া সুলতানাকে। সমান পয়েন্ট নিয়ে শেষ রাউন্ড খেলতে নামা ফিদে মাস্টার নাজরানা খানের প্রতিপক্ষ জান্নাতুল ফেরদৌস। এ তরুণীর কাছেই শেষ পর্যন্ত হেরে গেলেন ২০০০ ও ২০১৬ সালের চ্যাম্পিয়ন নাজরানা। ওদিকে রানীর মুকুট পুনরুদ্ধারের পথে বাধা হতে পারেননি জাকিয়া। সর্বশেষ ২০১১ সালে শিরোপা জিতেছিলেন জাতীয় মহিলা দাবার প্রথম ছয়বারের চ্যাম্পিয়ন রানী। গত সাত বছরে তাঁর প্রাধান্য কমেছে শামিমা আক্তার ও শারমিন সুলতানার উত্থানে। রানীর পর দেশের প্রথম মহিলা আন্তর্জাতিক মাস্টারও হয়েছেন শামিমা। এ আসরে অবশ্য তিনি খেলেননি। গতবার রানার্স-আপ হয়েছিলেন। গতবারের চ্যাম্পিয়ন শারমিনও টুর্নামেন্ট থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন। দুজনই অলিম্পিয়াডের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন লাটভিয়ার কোচ ইগর রাউসিসের কাছে। সেই প্রস্তুতির মাঝপথে এ টুর্নামেন্টটা খেলতে চাননি শারমিন। সঙ্গে শামিমাও সরে দাঁড়ানোয় এবারের জাতীয় মহিলা দাবা কিছুটা হলেও প্রতিদ্বন্দ্বিতা হারিয়েছিল। তবে দুই ফেভারিট রানী ও নাজরানার মধ্যে জোর লড়াই হয়েছে।

রানী তৃতীয় রাউন্ডে প্রতিভা তালুকদারের কাছে অঘটনের শিকার হয়েছেন; কিন্তু পুরো টুর্নামেন্টে সেটাই তাঁর একমাত্র পা হড়কানো। নাজরানাও শেষ রাউন্ডের আগ পর্যন্ত শুধু রানীর কাছেই হেরেছিলেন। শেষ রাউন্ডে তাঁকে হারিয়ে দেওয়া জান্নাতুল ফেরদৌস আসরে চতুর্থ হয়েছেন। রানীর কাছে হারা জাকিয়া হয়েছেন পঞ্চম। নোশিন আঞ্জুম হয়েছেন তৃতীয়। রানী, শামিমাদের পর জান্নাতুল, নোশিনরা মহিলা দাবার তৃতীয় প্রজন্ম। রানী এখনো তাঁদের সামনে জীবন্ত অনুপ্রেরণা। গত বছর জোনাল দাবায় চ্যাম্পিয়ন হয়ে নাম লিখিয়েছেন বিশ্বকাপেও। এবারের শিরোপা জয়ে গত বছরের সেই পারফরম্যান্স আত্মবিশ্বাস জুগিয়েছে বলেই জানালেন, ‘জাতীয় দাবার চেয়ে জোনাল দাবা তো কঠিন আসর। গত বছর সেই টুর্নামেন্টের শিরোপা জেতার পর নতুন উদ্যম পেয়েছি আমি। এ শিরোপা তারই ফসল। যদিও জাতীয় দাবায় অনেকবার চ্যাম্পিয়ন হয়েছি। তবু এ শিরোপার মজাটা সব সময়ই আলাদা আমার কাছে।’ এই আনন্দ ক্ষুধা নিয়ে রানী যে আরো কত দূর যাবেন!



মন্তব্য